পুরানো KTM 390 Adventure কিনবেন? সুবিধা ও অসুবিধাগুলি দেখে নিন

KTM 390 Adventure-এর ব্যবহৃত কোনো মডেল কেনার কথা ভাবলে এর সুবিধা ও অসুবিধাগুলি জেনে নিন

planning-used-ktm-390-adventure-buy-pros-cons

যাঁরা উচ্চ গতি ও অ্যাডভেঞ্চার বাইক পছন্দ করেন তাঁদের কাছে KTM ব্র্যান্ডটি অবশ্যই একটি আবেগের জায়গা। দুঃসাহসিকতা প্রেমীদের কাছে KTM 390 Adventure গত দু’বছরে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। উঁচু-নিচু ও এবড়ো-খেবড়ো রাস্তায় এর পারফরম্যান্স সম্পর্কে যথেষ্ট ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গিয়েছে। অনেকেরই এই অ্যাডভেঞ্চার মোটরসাইকেলটি কেনার সাধ থাকলেও সাধ্যে কুলিয়ে ওঠে না, কারণ এর উচ্চমূল্য। তাই বিকল্প পথ হিসেবে পুরানো মডেল কেনার কথা ভেবে থাকেন। আপনিও যদি KTM 390 Adventure-এর ব্যবহৃত কোন মডেল কেনার আগে কথা ভাবেন তবে এর সুবিধা ও অসুবিধাগুলি জেনে নিন।

KTM 390 Adventure-এর পুরানো মডেল কেনার সুবিধা

১) এর চাইতে অধিক দামের KTM 390 Duke এও একই ইঞ্জিন রয়েছে। KTM 390 Adventure-এর সিঙ্গেল সিলিন্ডার ৩৭৩ সিসি ইঞ্জিনটি থেকে ৯,০০০ আরপিএম গতিতে ৪৩ বিএইচপি শক্তি এবং ৭,০০০ আরপিএম গতিতে সর্বাধিক ৩৭ এনএম টর্ক উৎপন্ন হয়।

২) কেটিএম ৩৯০ অ্যাডভেঞ্চার-এ রয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির WF সাসপেনশন। এর সামনে ১৭০ এমএম এর নন-অ্যাডজাস্টেবল অফসাইড-ডাউন ফ্রন্ট ফোর্ক রয়েছে। এবং পেছনের সাসপেনশনটি ১৭৭ এমএম এর ১০-স্টেপ প্রিলোড অ্যাডজাস্টেবল প্রযুক্তির।

৩) ২০০ এমএম গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স যুক্ত বাইকটির ইঞ্জিনকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য পাওয়া যাবে ব্যাশ প্লেট (Bash Plate)। এর ফুটপেগটি সিরেটেড স্টাইলের।

৪) KTM 390 Adventure এর সামনের চাকাটি বড় যা ১৯ ইঞ্চির এবং পেছনের চাকাটি ১৭ ইঞ্চির। সাথে রয়েছে সব ধরনের রাস্তায় চলার উপযোগী টিউবলেস টায়ার।

৫) এর বেশ কয়েকটি ইলেকট্রনিক রাইডার এইড রয়েছে। যেমন – রাইড-বাই-অয়ার থ্রটেল, সুইটেবল লিন সেনসিটিভ ট্রাকশন কন্ট্রোল, কর্নারিং এবিএস। সাথে KTM Myride নামক স্মার্টফোন কানেক্টিভিটি সিস্টেম উপস্থিত, যেটা ফুল-কালার টিএফটি ইন্সট্রুমেন্ট কনসোল দ্বারা পরিচালনা করা যায়।

KTM 390 Adventure-এর পুরানো মডেল কেনার অসুবিধা

১) অসুবিধা বলতে এতে বটম-এন্ড গ্রান্ড নেই।

২) অফ-রোড প্রেমীদের জন্য KTM 390 Adventure থেকে সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স পেতে উচ্চতর দক্ষতার প্রয়োজন হতে পারে, যা অনেকেই পছন্দ করেন না।

৩) এছাড়া অফ-রোড চালকদের বাড়তি বাইকটিকে অয়্যার-স্পোক লাগাতে হতে পারে, কারণ ৩৯০ অ্যাডভেঞ্চার-এর স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনটি অ্যালয় হুইলের সাথে এসেছে। তবে নিত্য ব্যবহার, বেশি দূরত্বের যাত্রা এবং মিল্ড অফ-রোডিংয়ের ক্ষেত্রে কারোর কাছে এটি সর্বোত্তম প্রমাণিত হতে পারে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।