দুর্দান্ত ফিচার সহ শীঘ্রই আসছে Poco F2, জেনে নিন সম্ভাব্য দাম

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে হয়তো শীঘ্রই লঞ্চ হতে চলেছে Poco F2। এই ফোনটি প্রবল জনপ্রিয়তা পাওয়া পোকো এফ ১ এর আপগ্রেড ভার্সন হবে। Xiaomi এর সাব ব্র্যান্ডটি তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে পোকো-র নতুন ফোনের টিজার পোস্ট করেছে। শুক্রবার পোকো এই ফোন সম্পর্কে প্রথম টুইট করে। একদিন পরে ফের কোম্পানি শনিবার পোকো এফ ২ নিয়ে টুইট করেছে। দুটি টুইটেই কোম্পানি ‘ওয়েকআপ পোকো’ ট্যাগলাইন ব্যবহার করেছে।

আপনাকে জানিয়ে রাখি চীনে লঞ্চ হওয়া Redmi K30 Pro কে Poco F2 নামে ভারতে লঞ্চ করা হতে পারে। এর আগেও কয়েকটি টেক সাইট থেকে একই দাবি করা হয়েছিল। তবে তখন তার কোনো প্রমান মেলেনি। তবে সম্প্রতি এই সিরিজের Pro ভার্সনের দাম ফাঁস হওয়ার পর আর জানতে বাকি থাকেনা যে Redmi K30 Pro কেই Poco F2 নামে লঞ্চ করা হবে। কারণ পোকো এফ ২ প্রো এর দাম জানা গিয়েছে ৫৪,০০০ টাকা। এদিকে চীনে রেডমি কে ৩০ প্রো এর দাম প্রায় ৩০,০০০ টাকা। সেক্ষেত্রে বলা যায় কোম্পানি Poco F2 Pro কে Redmi K30 Pro এর রিব্রান্ডেড ভার্সন হিসাবে লঞ্চ করবে। এবং রেডমি কে ৩০ প্রো এর একই ফিচারের সাথে পোকো এফ ২ কে লঞ্চ করবে।

Redmi K30 Pro দাম :

রেডমি কে ৩০ প্রো 5G ফোনটি তিনটি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে লঞ্চ হয়েছে। যার ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের দাম প্রায় ৩২,৩০০ টাকা। আবার ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ এবং ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ দাম যথাক্রমে প্রায় ৩৬,৬০০ টাকা ও ৩৯,৪০০ টাকা। ফোনটি সাদা, নীল, গোলাপি ও ধূসর রঙে পাওয়া যাবে।

Redmi K30 Pro স্পেসিফিকেশন :

রেডমি কে ৩০ ফোনে ৬.৬৭ ইঞ্চি সুপার AMOLED ডিসপ্লে আছে। যেটিতে এইচডিআর ১০ প্লাস সাপোর্ট ও ১৮০ হার্জ টাচ স্যাম্পলিং রেট রয়েছে। এই ডিসপ্লের স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৯২.৭ শতাংশ। পারফরম্যান্সের কথা বললে iQOO 3 এবং Realme X50 Pro এর মত এই ফোনেও কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এই ফোনে দ্রুত ফাইল ট্রান্সফারের জন্য দেওয়া হয়েছে ইউএফসি ৩.১ সাপোর্ট। ফোন গরম না হওয়ার জন্য এখানে কুলিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। এই ফোনে পাবেন ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংয়ের সাথে ৪,৭০০ ,এমএএইচ ব্যাটারি।

শাওমি রেডমি কে ৩০ প্রো ফোনে পাবেন পপ আপ সেলফি ক্যামেরা। আবার পিছনে গোল আকারে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ আছে। যার প্রধান ক্যামেরা ৬৪ মেগাপিক্সেল।এই ক্যামেরায় ডুয়েল অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশনের সাথে ৩ এক্স অপটিক্যাল জুম সাপোর্ট করবে। পিছনের অন্য তিনটি ক্যামেরা হল ১৩ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স, ৮ মেগাপিক্সেল টেলিফোটো সেন্সর এবং ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সেলফির জন্য এই ফোনে ২০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে। এই ফোনটি আইপি৫৩ রেটিং সহ অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমের সাথে এসেছে। কানেক্টিভিটির জন্য এই ফোনে পাবেন ডুয়েল মোড ৫জি, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, এনএফসি, ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট সাপোর্ট।