টিভি, ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন বা এসি কেনার আগে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন, নইলে পস্তাবেন

point-to-keep-in-mind-befor-buying-tv-refrigerators-washing-machine-ac

যত দিন যাচ্ছে মানুষ তত আধুনিক হচ্ছে। এমন বাড়ি হয়তো খুঁজে পাওয়া দুষ্কর, যে বাড়িতে টিভি, ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন বা এসি মধ্যে কোনো একটিও নেই। আপনিও যদি আপনার বাড়ির জন্য বা অফিসের জন্য এই গ্যাজেটগুলির কোনো একটি খুঁজে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি অবশ্যই পড়ুন। কারণ এখানে আমরা কোন ধরণের TV, Refrigerators, Washing Machine বা AC কিনলে আপনি পরবর্তীতে সমস্যায় পড়বেন না সে বিষয়ে বলবো।

এসি (Air Conditioners) কেনার আগে জানুন:

১. এখন সব বাড়িতেই স্প্লিট এসি ব্যবহার হয়। তবে উইন্ডো এসিও খারাপ নয়। যদি আপনার বাড়িতে জায়গা থাকে তাহলে আপনি উইন্ডো এসিও কিনতে পারেন। কারণ উইন্ডো এসি কম দামে এবং কম সার্ভিস চার্জে আপনাকে ভালো সার্ভিস দিতে সক্ষম।

২. এসি কিনতে গেলে কম করে ১.৫ টনের এসি কিনবেন। কারণ ভারতের গ্রীষ্মকালে ১.৫ টনের কমের এসি ভালো কাজ করতে পারবেনা।

৩. উইন্ডো এসির জন্য জায়গা করা থাকলে এই এসি সেটআপ করতে কম খরচ পড়বে। অন্যদিকে স্প্লিট এসি সেটআপ খরচ একটু বেশি। আবার স্প্লিট এসি সেটআপ এর সঙ্গে পাইপের দৈর্ঘ্যের সম্পর্ক আছে। প্রত্যেক কোম্পানি প্রত্যেক মডেল বিশেষে কানেক্টিং পাইপের দৈর্ঘ্য একটি লিমিট অবধি প্রোভাইড করে।

৪. বাজেট ভালো থাকলে সবসময়ে চেষ্টা করুন ইনভার্টার এসি কেনার, কারণ ইনভার্টার এসির ক্ষেত্রে বিদ্যুতের খরচ কম হয়। অন্যদিকে, ফিক্সড ফ্যান এসির ক্ষেত্রে আবার বিদ্যুতের খরচ বেশি। কিন্তু, সার্ভিসিং এর ক্ষেত্রে ইনভার্টার এসির সার্ভিস চার্জ বেশি। তাই যদি মনে হয় সার্ভিসিং এর ক্ষেত্রে কম খরচ করবেন, তবে ফিক্সড ফ্যান এসির দিকে যান, কারণ সেক্ষেত্রে সার্ভিস চার্জ কম পড়বে, কিন্তু বিদ্যুতের খরচ একটু বাড়বে।

৫. অনেক এসিতে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট, এর মত অনেক স্মার্ট ফিচার রয়েছে। তবে তার জন্য আপনাকে বেশি টাকা দিতে হয়। তাই কুলিং এর দিকে প্রধান ফোকাস রাখুন এই ধরনের ফিচার যদি আপনার প্রয়োজন হয় তবে কিনুন এই ফিচার যুক্ত এসি।

৬. আপনার এসির প্লেসমেন্ট এর দিকে নজর রাখবেন, যে এসি অনেক দূরে হাওয়া ছোড়ে, সেগুলি খুব ভালো কুলিং দেবেনা। এই মার্কেটে কিছু এসি রয়েছে, যারা একেবারে ৯০° কোণ থেকে হাওয়া দিতে শুরু করে। অর্থাৎ একেবারে এসির নিচে বসলেও আপনারা হাওয়া পাবেন।

টিভি (TV) কেনার আগে নজর দিন:

১. টিভি কেনার সময়ে অবশ্যই নিজের ঘরের দৈর্ঘ্য দেখে তবেই কিনবেন। ৩২ ইঞ্চির টিভি দেখার স্বাভাবিক দূরত্ব ৪ ফুট হওয়া উচিত। তাই নিজের ঘরের দৈর্ঘ্যের নিরিখে টিভি কিনবেন।

২. আপনার টিভি তে আপনার প্রয়োজনের সঠিক কানেক্টিভিটি অপশন রয়েছে কিনা দেখে নেবেন।

৩. যদি আপনি সেট টপ বক্স ব্যবহার করেন তাহলে আপনি এইচডি রেডি ৭২০ পি টিভি কিনতে পারেন। তবে চেষ্টা করবেন ১০৮০ পি রেজোলিউশন এর টিভি কেনার।

৪. টিভির রিফ্রেশ রেট বেশি হওয়া ভালো, আপনার এক্সপেরিয়েন্স অনেক ভালো হবে। তাই আপনার বাজেটে যে টিভি ভালো রিফ্রেশ রেট দিচ্ছে সেটি নিন।

৫. সাউন্ড আউটপুট কোয়ালিটি দেখে নিয়ে টিভি নেবেন। কারণ সাধারণ বাজেটের মধ্যে সব টিভির সাউন্ড কোয়ালিটি একেবারে সাধারণ হয়। তাই যদি টিভি তে কনটেন্ট দেখতে চান, তাহলে ২.১ চ্যানেল স্পিকার কিনে নিন একটা।

৬. টিভি র কনট্রাস্ট রেশিও দেখে নেবেন কেনার আগে। কনট্রাস্ট রেশিও বেশি হলে টিভির স্ক্রিন কালার প্রোডাকশন এবং ইমেজ কোয়ালিটি ভালো হয়

ফ্রিজ (Refrigerators) কেনার আগে খেয়াল রাখুন:

১. ফ্রিজ কেনার আগে দেখে নিন আপনার প্রয়োজন কত লিটারের ফ্রিজ। তার পরই অর্ডার করুন।

২. ফ্রস্ট ফ্রি এবং অটো ক্লিন ফিচার যুক্ত ফ্রিজ কিনুন। তাহলে আপনার পরবর্তীকালে ব্যবহার করতে সুবিধা হবে।

৩. ফ্রিজের সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ অংশের মধ্যে একটা হলো ফ্রিজের কম্প্রেসার। তাই দেখে নেবেন যাতে আপনার ফ্রিজের কম্প্রেসার খারাপ না হয় এবং এতে ন্যূনতম ৫ বছরের ওয়ারেন্টি থাকে।

ওয়াশিং মেশিন (Washing Machine) কেনার আগে জানুন:

১. ওয়াশিং মেশিন কিনতে গেলে সঠিক মডেল চয়েস করবেন।

২. সেমি – অটোমেটিক মডেল ব্যবহার করতে পারেন, কারণ এগুলো হালকা হয় এবং ব্যবহার করা অনেক সহজ। ফুল অটোমেটিক মডেলের সব সময়ে জল সাপ্লাই এবং একটি ফিক্সড স্থান দরকার।

৩. ওয়াশ মোড এবং ফিচার আগে দেখে নেবেন আপনার সাধের ওয়াশিং মেশিন কেনার আগে।