হোয়াটসঅ্যাপ পে বিশ্বস্ত নয়, সুপ্রিম কোর্টকে জানালো রিজার্ভ ব্যাংক

rbi-tells-sc-whatsapp-pay-not-authorized-in-india-for-full-upi-based-operations

বহুদিন ধরে ভারতে কাজ শুরু করার চেষ্টায় রয়েছে জনপ্রিয় সোশাল নেটওয়ার্ক হোয়াটসঅ্যাপ এর ইউপিআই প্ল্যাটফর্ম WhatsApp Pay। তবে এখনও অবধি এই প্ল্যাটফর্ম ভারতে নিজের কাজ শুরু করার অনুমতি জোগাড় করতে সক্ষম হয়নি। জানা গিয়েছে, রিজার্ভ ব্যাংক আবারও হোয়াটসঅ্যাপের আবেদন নাকচ করে জানিয়েছে, যে এখনও WhatsaApp তাদের বিশ্বাস অর্জনে সক্ষম হয়নি। সুপ্রিম কোর্টকে একটি রিপোর্টে তারা জানিয়েছে, এখনও WhatsApp কর্তৃপক্ষকে ইউনাইটেড পেমেন্ট ইন্টারফেস (ইউপিআই) প্ল্যাটফর্মে পুরোদমে কাজ করার অনুমতি তারা দেয়নি।

রিজার্ভ ব্যাংক তাদের কাউন্টার এফিডেভিটের মাধ্যমে সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছে, ” NPCI এর দ্বারা পেশ করা সমস্ত রিপোর্ট খতিয়ে দেখার পরেই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, WhatsApp কে তারা এখনই ভারতে ইউপিআই শুরু করার অনুমতি দেবে না। তার কারণ, WhatsApp ভারত ব্যতীত অন্য দেশে এখনও পেমেন্ট সংক্রান্ত কিছু তথ্য স্টোর করে রাখে। এই বিষয়টি ভারতের সুরক্ষার পরিপন্থী। ফলে সার্কুলারের নিয়ম অনুযায়ী, যতদিন না বেঁধে দেওয়া নিয়মের মধ্যে WhatsApp Pay এর সমস্ত অপারেশন কাজ করছে, ততদিন অবধি এই ফিচার ভারতে চালু করা হবেনা। জুনে জারি করা “স্টোরেজ অ্যান্ড পেমেন্ট সিস্টেম ডেটা” নিয়মাবলির নিরিখেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক।

জানিয়ে রাখি একটি এনজিও পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টের কাছে অনুরোধ করা হয়েছিল যাতে, WhatsApp কে ভারতে তাদের ইউপিআই প্ল্যাটফর্মের ট্রায়াল করতে বাধা দেওয়া হয়। লোকাল রেগুলেশন অর্জন করার পরেই WhatsApp কে এই প্ল্যাটফর্মে আসার অনুমতি দেয়া হক – এই মর্মে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আর্জি পেশ করে ওই এনজিও। যার পরে কোর্ট রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে এবিষয়ে জানতে চায়।

এর আগে ১ নভেম্বরে লেখা একটি চিঠিতে রিজার্ভ ব্যাংক NCPI কে WhatsApp Pay প্ল্যাটফর্মের সমস্ত পেমেন্ট সংক্রান্ত সমস্ত স্টোর করা তথ্যের একটি বিস্তারিত রিপোর্ট তৈরি করার অনুরোধ জানায়। এই চিঠির পরিপ্রক্ষিতেই NCPI ফেসবুকের এই প্ল্যাটফর্মের দ্বারা সাবমিট করা ” স্টোরেজ অ্যান্ড পেমেন্ট সিস্টেম ডেটা ” সংক্রান্ত একটি অডিট রিপোর্ট ফরওয়ার্ড করে। এই রিপোর্ট খতিয়ে দেখার পরেই WhatsApp কে ভারতে ইউপিআই প্ল্যাটফর্মের প্রসারে বাধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ভারতের রিজার্ভ ব্যাংক।

প্রসঙ্গত, গত ৭ জানুয়ারী RBI এর কাছে একটি চিঠিতে NPCI জানিয়েছিল যে, তারা WhatsApp কর্তৃপক্ষের থেকে এই মর্মে একটি অনুরোধ পত্র পেয়েছে। সেই অনুরোধ পত্রে WhatsApp এর তরফ থেকে জানানো হয়েছিল যে, তারা আগামী ৩১ মে এর মধ্যে সমস্ত পেন্ডিং সমস্যাগুলির সমাধান করে ফেলবে। এই কারণে তাদের যেন ভারতে WhatsApp Pay সিস্টেম চালু করার অনুমতি দেওয়া হয়। এছাড়াও WhatsApp এর তরফ থেকে জানানো হয়েছিল যে, তারা ৫টি সমস্যার মধ্যে ২টি ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সমাধান করে ফেলবে। বাকি ৩ টির সমাধান করবে আগামী ৩১ মের মধ্যে। তারপর একটি থার্ড পার্টি অডিট রিপোর্ট পেশ করা হবে কোর্টের কাছে। তবে রিজার্ভ ব্যাংকের দাবি এখনও WhatsApp সম্পূর্ণ পরিষ্কার ভাবে রিপোর্ট পেশ করতে সক্ষম হয়নি এবং তারা এখনও পেমেন্ট সংক্রান্ত কিছু তথ্য ভারতের বাইরে অন্য দেশে সঞ্চয় করে। এই কারণেই এখনও WhatsApp কে ভারতে তাদের ইউপিআই প্ল্যাটফর্ম চালাতে দেওয়া হবেনা বলে উচ্চ আদালতকে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকটি।