ভিডিও দেখা ও চ্যাট হবে একসাথে, লঞ্চ হল অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড Realme UI 2.0

realme-ui-2-0-launched-as-android-11-based-rollout-to-start-with-realme-x50-pro

প্রত্যাশা মতই, আজ, ভারতে Narzo 20 সিরিজের লঞ্চ ইভেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক Realme UI 2.0 কাস্টম স্কিনের ওপর থেকে পর্দা সরালো Realme। আপগ্রেড এই ইউজার ইন্টারফেসে উন্নত ডার্ক মোড, নতুন ওয়ালপেপার এবং আইকন, অপ্টিমাইজ নাইট চার্জিং ইত্যাদি বেশ কিছু ফিচার পাওয়া যাবে। এছাড়াও অ্যান্ড্রয়েড ১১-র প্রায় সমস্ত ফিচারই এতে উপলব্ধ হবে।

আপনারা হয়তো জানেন, গত বছর থেকেই রিয়েলমি, তার ফোনগুলিতে আর OPPO-র ColorOS ব্যবহার করছেনা। বদলে সংস্থাটি নিজস্ব Realme UI এনেছে। কিন্তু এই নতুন Realme UI 2.0 কাস্টম স্কিন এবং সম্প্রতি লঞ্চ হওয়া OPPO-র ColorOS 11 UI-এর মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়নি। ColorOS 11-তে যেমন নতুন কাস্টমাইজেশন অপশন, লো ব্যাটারি মেসেজ ফিচার, সুপার পাওয়ার সেভিং মোড ইত্যাদি ফিচার রয়েছে। রিয়েলমি ইউআই ২.০ তেও একই ফিচার উপলব্ধ।

এদিকে, অপ্পোর মতই, রিয়েলমি-ও এই নতুন ইউআই-এর আপডেট টাইমলাইন বা কোন কোন ডিভাইসে এটি উপলব্ধ হবে – সেবিষয়ে কিছুই জানায়নি (রিয়েলমি এক্স ৫০ প্রো ছাড়া)।

সপ্তাহখানেক আগেই একটি ডেডিকেটেড ইভেন্টে Android 11-বেসড কাস্টম ওএস ColorOS 11 লঞ্চ করেছে অপ্পো। এর ঠিক তিন-চার দিন পর অপ্পোর এক সময়ের সাথী রিয়েলমি জানায়, তারা Realme Narzo 20 সিরিজের লঞ্চ ইভেন্টে নতুন Realme UI প্রকাশ করবে। পরিকল্পনা মাফিক, আজকের ইভেন্টে তিনটি স্মার্টফোন লঞ্চ করেছে রিয়েলমি। ইভেন্টের শেষের দিকে নতুন অপারেটিং সিস্টেমটির ঘোষণা করা হয়েছে।

আগেই বলেছি, ColorOS 11 এবং realme UI 2.0-এর মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই। দুটি কাস্টম স্কিন যেনো টাকার এপিঠ-ওপিঠ।রিয়েলমির এই ইউআই-এ ছোটখাটো কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে। তবে উপস্থাপনার সময় ব্র্যান্ডটি কেবলমাত্র এই ওএসের কয়েকটি মূল ফিচার উল্লেখ করেছে।

প্রসঙ্গত, আজকের ইভেন্টে সংস্থাটি তার ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন Realme X50 Pro-এর রোলআউট শিডিউল প্রকাশ করেছে। এই হ্যান্ডসেটটিতে অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড রিয়েলমি ইউআই ২.০ এর “আর্লি অ্যাক্সেস” (ক্লোজড বিটা ভার্সন) পাওয়া যাবে ২৪শে সেপ্টেম্বর থেকে। এরপর অক্টোবরের শেষের দিকে ডিভাইসটির “ওপেন বিটা” সংস্করণ উপলব্ধ হবে এবং নভেম্বরের শেষে এটির “স্টেবল রিলিজ” করা হবে।

Realme UI 2.0 এর বিশেষ কয়েকটি ফিচার

  • – ডিজিটাল হেলথ ফিচার উপলব্ধ। এছাড়াও এতে সেল্ফ ডেভেলপ করা স্লীপ ক্যাপসুল আছে। যেটি স্বাস্থ্য ও ঘুম ট্র্যাক করতে সাহায্য করবে।

– এতে পাবেন ফ্লোটিং উইন্ডো, যার ফলে ভিডিও ও চ্যাট একসাথে করা যাবে।

  • – এতে ডিপ সি প্রাইভেসী প্ল্যান আছে, যেখানে ইনভিসিবলডোর, প্রাইভেট স্পেস, সিকিউরিটি শিল্ড উপলব্ধ। এগুলি আপনাকে আরও সুরক্ষা প্রদান করবে।
  • – আবার এই কাস্টম ওএস এ পাবেন সাবটাইটেল স্টিচিং বৈশিষ্ট্য, যা সিনেমা দেখার সাথে সাথে সাবটাইটেলও দেখাবে।
  • – এছাড়াও এতে আইকন কাস্টোমাইজেশন, থার্ড পার্টি লঞ্চের প্রভৃতি ফিচার আছে।