Sunday, November 17, 2019

Redmi 7A রিভিউ: কেমন হলো এই ফোন? আপনার কি কেনা উচিত?

কয়েকদিন আগে শাওমি ভারতে Redmi 7A লঞ্চ করেছে, যার মূল্য 5999 টাকা থেকে শুরু। বাজারে এই মূল্যের আরো অনেক ফোন আছে। কিন্তু এই ফোনটি তার অত্যাধুনিক ক্যামেরা সেনসর এবং লেন্সের মাধ্যমে সবাইকে চমকে দিয়েছে। আবার এই ফোনটি আপনি জুলাই মাসের মধ্যে 200 টাকা কমে কিনতে পারবেন। Redmi 7A হল কম মূল্যের মধ্যে একটি দুর্দান্ত স্মার্টফোন যার 11 ই জুলাই থেকে বিক্রি শুরু হবে। এই ফোনটি চার দিন ব্যবহার করার পর আমরা আপনাদের কাছে এই ফোনটির রিভিউ নিয়ে আসছি।

ডিজাইন এবং বিল্ড কোয়ালিটি :

ফোনটি অত্যন্ত চকচকে। যদি পিছনের প্যানেলের কথা বলা যায় তবে এখানে Redmi ব্র্যান্ডিং নতুন রকমের। ফোনটির উপরের দিকে ডানদিকে ক্যামেরা আছে এবং একটি LED ফ্ল্যাশ আছে। এর নিচের দিকে Redmi ব্র্যান্ডিং এবং উপরে সেলফি ক্যামেরা দেখা যায়। ডানদিকে ভলিউম বাটন, পাওয়ার বাটন, নিচে স্পিকার এবং মাইক্রো USB পোর্ট আছে। হেডফোনের জ্যাক উপরের দিকে। Redmi 7A- এর বক্সে আপনারা একটি চার্জার পাবেন এবং ইয়ারফোন এটির সাথে থাকে না। এই ফোনটির সাথে কোন কেস কভার দেওয়া হয়নি।

যদি বিল্ড কোয়ালিটির কথা বলা যায় তবে এর বিল্ড কোয়ালিটি হলো প্লাস্টিকের যেটা দেখে অনেকটা মেটাল কোয়ালিটি মনে হয় এবং যা খুব টেকসই।

লুক এবং ফিল:

লুক এবং অনুভূতির দিক থেকে দেখতে গেলে ফোনটি একেবারে পরিপূর্ণ মনে হয়। যদিও হাতে এটি একটু মোটা লাগে কিন্তু এটি দেখতে খুবই টেকসই । কোম্পানির পক্ষ থেকে এর কোন ড্রপ টেস্ট করা হয়নি।

ডিসপ্লে:

Redmi 7A -এর ডিসপ্লে 5.45 যেটি IPS প্যানেলযুক্ত এবং যা HD+। এর অ্যাসপেক্ট রেশিও 18:9। ফোনটির ডিসপ্লে বেশ উজ্জ্বল কিন্তু এতে নতুনত্ব কিছু নেই। এর ডিসপ্লে আরো অত্যাধুনিক করা যেতে পারত। কিন্তু যদি আপনি এর দাম দেখেন তবে এই দামের মধ্যে আর ভালো ডিসপ্লে দেওয়া সম্ভবপর নয়। তবুও যদি কোম্পানি আরেকটু ভালো কোয়ালিটি ডিসপ্লে দিত তবে ভাল হত।এর ডিসপ্লের জন্য হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই।

পারফরম্যান্স:

সরাসরি এবার Redmi 7A- এর পারফর্মেন্সের কথায় আসা যাক। Redmi 7A তে Qualcomm Snapdragon 439 প্রসেসর দেয়া হয়েছে, এছাড়াও দুটি মেমোরি ভেরিয়েন্ট আছে। একটিতে 2 GB RAM এর সাথে 16 GB মেমরি এবং দ্বিতীয়তে 2GB RAM- এর সাথে 32GB মেমরি পাওয়া যাবে। মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট রয়েছে। *কিন্তু এর পারফর্মেন্স খুব একটা অত্যাধুনিক নয় । বেসিক ইউজ এর জন্য 5999 টাকার এই ফোনটি খুব ভালো। বেশি ব্যবহারের জন্য এই ফোনটি একদমই ভালো নয়। বড় গেমগুলি এই ফোনের দ্বারা খেলা যাবে না। সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন অ্যাপ যেমন ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার, টেলিগ্রাম এই জাতীয় অ্যাপ গুলি বিনা দ্বিধায় এই ফোনে চলবে। ফোনে কিছু প্রিলোডেড অ্যাপ ও দেওয়া রয়েছে। Redmi 7A অ্যান্ড্রয়েড Pie- এর দ্বারা চলে যার মধ্যে MIUI 10 দেওয়া আছে। কোম্পানি এর ইন্টারফেসে বহু লাভজনক পরিবর্তন এনেছে । এতে ডার্ক মোড দেওয়া আছে এবং এটি ব্যবহার করা সত্যি একটি ভাল অভিজ্ঞতা।

কিন্তু রেডমির এই ফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর নামক কোন জিনিস নেই। ফোন লক করতে হলে পিন, প্যাটার্ন এবং ফ্রেস-এর ব্যবহার করতে হয় । ফেস আনলক সেলফি ক্যামেরা দ্বারা হয় এবং এটি একদমই নিরাপদ নয়। তবুও যদি আপনি এটি ব্যবহার করতে চান, আপনি ব্যবহার করতে পারেন। যদিও এটি কখনো কখনো ফেস ডিটেক্ট করতে অনেক সময় লাগায় ,ধীরে ধীরে আপনি এটির ব্যবহারগুলি সম্বন্ধে পরিচিত হয়ে যাবেন।

একটি অ্যাপ থেকে আরেক অ্যাপ এ যেতে গেলে কোন সমস্যা হয় না। হ্যাঁ, যদিও একটি অ্যাপ থেকে আর একটি অ্যাপ এ যেতে হলে এর রেসপন্স একটু দেরিতে হয় এবং সময় বেশি লাগে যা আপনি লক্ষ্য করতে পারবেন। যদিও এই ফোনটিকে এন্ট্রি লেভেল এর উপরেই তৈরি করা হয়েছে, তাই আপনি কোন অভিযোগ করতে পারেন না। ভিডিও, মিউজিক এবং কলিং এর জন্য ফোনটি খুবই লাভজনক। বেসিক ইউজ-এর জন্য এই ফোনে কোনো সমস্যা পাওয়া যায়নি। এটি চারদিন ব্যবহারের পর ফোনটি হ্যাং করার মতো কোনো সমস্যা দেখা যায়নি ।তাই এটি ব্যবহার করা যেতেই পারে। প্রথমবার স্মার্টফোনের গ্রাহকদের জন্য ফোনটি খুবই উপযোগী কারণ এর ক্যামেরা ও ভালো।

ক্যামেরা:

Redmi 7A তে Redmi Note 7 এবং MI 2 -এর মতো একই ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এবার প্রশ্ন হল ,ক্যামেরার পারফরমেন্সে কি ওই স্মার্ট ফোনগুলোর মতই? উত্তর– না। ক্যামেরা পারফরম্যান্স ওই স্মার্টফোন গুলোর মত নয় কারণ এতে একটি মাত্র লেন্স দেওয়া হয়েছে এবং এই স্মার্টফোনটির সেগমেন্ট আলাদা । তাই ওরকম ক্যামেরা কোয়ালিটির আশা করাও বৃথা। ফোনের পিছনের ক্যামেরা 12 মেগাপিক্সেল-এর। Redmi 7A- এর রেয়ার ক্যামেরা একটিমাত্র যাতে কোম্পানি Sony IMX486 সেন্সর দিয়েছে ।

ফটোগ্রাফির জন্য এই ফোন একদমই ভালো নয়। কিন্তু সাধারন ফটো তোলার জন্য এটি ঠিকঠাক। চারিদিকে আলো ঠিকঠাক থাকলে তবেই ভালো ফটো আসবে। ক্যামেরাতে Pro মোড আছে । যদি আপনার নতুন কিছু করতে ইচ্ছা হয়, তবে আপনি এই মোডটি ট্রাই করতে পারেন। কিন্তু ব্যবহারের পর আমি এটার মধ্যে কোন নতুনত্ব খুঁজে পাইনি। বিউটিফিকেশন-এর মত ফিচারস এই ফোনে আছে। Redmi 7A- এর দ্বারা ভালো ছবি তুলতে হলে আপনাকে কিছুটা সময় দিতে হবে কারণ ফোকাস করার সময় কিছুটা সময় লাগে। HDR ঠিকঠাক কাজ করে, কিন্তু যে স্থানে আলো কম সেই স্থানে এই ক্যামেরা হতাশ করে।

মোট মিলিয়ে আমরা আবারও সেই কথাই বলতে পারি, এই দামের মধ্যে এর ফটোগ্রাফি আপনাদের হয়তো খুব ভালো লাগবে। কোথাও না কোথাও শাওমি স্মার্টফোনের USP- ও এটাই আর এর জন্যই এটি ভারতীয় মার্কেটে নাম্বার 1 স্মার্টফোন হিসেবে বিবেচিত।

ব্যাটারি:

Redmi 7A ফোনে 4000mAh ব্যাটারি আছে । এটা সত্যিই দারুণ। সম্পূর্ণ চার্জ করে আপনি এক দিন পর্যন্ত এটির ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন। সম্পূর্ণ চার্জ করতে মোটামুটি দুই ঘন্টা সময় লাগে।যদি আপনি বেশি ফোন ব্যবহার করে না থাকেন তবে এর ব্যাটারি ব্যাকআপ দুই দিন পর্যন্ত পেতে পারেন। আমি ব্যবহারের মাধ্যমে এটি দেড় দিন পর্যন্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ পেয়েছি, সোশ্যাল মিডিয়া ,ফটো ক্লিক এ সব কিছু করার পর ও । Redmi 7A একটি দারুন প্যাকেজ কিন্তু এর একটি ভেরিয়েন্ট 3 GB হওয়া উচিত ছিল। ডিসপ্লে আরো ভালো হতে পারতো।

পড়ুন : Motorola One Vision রিভিউ: জেনে নিন কেমন হলো এই ফোন, আপনার কি নেওয়া উচিত?

প্রযুক্তির সাম্প্রতিক খবর আর রিভিউস জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা Whatsapp গ্রুপে যুক্ত হোন আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube.

- Advertisment -