Redmi Note 11 সিরিজ আগামী বছরের শুরুতেই বিশ্ব বাজারে আসছে, ডিজাইনে ও ফিচারে থাকবে চমক

রেডমি নোট ১১ সিরিজ ভিয়েতনামের বাজারে আগামী বছরের প্রথম প্রান্তিকে আসবে

redmi-note-11-series-global-launch-q1-2022-india-with-different-design-specifications

অক্টোবরের শেষ লগ্নে পৌঁছে নিজের দেশীয় মার্কেটে Redmi Note 11 (রেডমি নোট ১১) সিরিজের অধীনে তিন-তিনটি নতুন স্মার্টফোন (Redmi Note 11 5G, Redmi Note 11 Pro এবং Redmi Note 11 Pro+) লঞ্চ করেছে চীনা টেক জায়ান্ট Xiaomi (শাওমি)। মুক্তির পর প্রথম সেলেই ফোনগুলি রেকর্ড সংখ্যায় বিক্রি হয়েছে। এদিকে ঘরোয়া বাজারে সাফল্য পাওয়ার পর, সংস্থাটি সিরিজের বেস মডেল অর্থাৎ Redmi Note 11 5G-কে গতকাল Poco M4 Pro 5G নামে গ্লোবাল মার্কেটে চালু করেছে; জল্পনা রয়েছে খুব শীঘ্রই ফোনগুলিকে নাম বদলে ভারতেও আনা হবে। তবে এখন একটি নতুন রিপোর্ট ফাঁস হয়েছে, যাতে বলা হয়েছে গোটা Redmi Note 11 সিরিজটি আগামী বছরের ফার্স্ট কোয়ার্টারে স্ব-নামে ভিয়েতনামের বাজারে তথা বিশ্বব্যাপী চালু হবে। এছাড়া ভারতের ক্ষেত্রে, Redmi Note 10 সিরিজের মতই মার্চের কাছাকাছি সময়ে ফোনগুলি লঞ্চ হতে পারে (ভিন্ন নামে) বলে গুঞ্জন রয়েছে। চলুন, একনজরে দেখে নিই Xiaomi Redmi Note 11 মডেলগুলির লঞ্চের সাতকাহন!

আগামী বছর আন্তর্জাতিক বাজারে পা রাখবে Redmi Note 11 সিরিজ

দ্যা পিক্সেল (Thepixel)-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, রেডমি নোট ১১ সিরিজ ভিয়েতনামের বাজারে আগামী বছরের প্রথম প্রান্তিকে আসবে। তবে রিপোর্টে বলা হয়েছে ভিয়েতনামের বাজারের জন্য নোট ১১ সিরিজে আলাদা ডিজাইন এবং স্পেসিফিকেশন থাকবে। এমনকি এগুলিতে মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি চিপসেটের বদলে স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর দেখা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ভারতে রেডমি নোট ১১ মডেলটি Redmi Note 11T 5G নামে আসবে বলে জানা গেছে। টিপস্টার ক্যাসপার আরও বলেছেন যে, সিরিজের প্রো মডেলদুটিকে ‘Redmi’ ট্যাগ ছাড়াই এদেশের বাজারে আনা হবে। সেক্ষেত্রে রেডমি নোট ১১ প্রো মডেল Xiaomi 11i এবং নোট ১১ প্রো প্লাস সংস্করণটি Xiaomi 11i HyperCharge নামে এদেশে পা রাখবে।

Redmi Note 11 সিরিজে কী ফিচার রয়েছে

এই সিরিজের বেস মডেল, রেডমি নোক ১১ ফোনে ৬.৬ ইঞ্চি ৯০ হার্টজ ডিসপ্লে, মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮১০ প্রসেসর, ৮ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম, ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট এবং ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা রয়েছে। আবার রেডমি নোট ১১ প্রো এবং নোট ১১ প্রো প্লাসে আছে মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৯২০ প্রসেসর, ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটযুক্ত ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস অ্যামোলেড ডিসপ্লে, ৮ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম, ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর এবং ডুয়েল সিমেট্রিক্যাল জেবিএল টিউন স্পিকার। প্রো ভ্যারিয়েন্টগুলির পার্থক্য বলতে নোট ১১ প্রো ফোনে ৫,১৬০ এমএএইচ ব্যাটারি ও ৬৭ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি বিদ্যমান; যেখানে নোট ১১ প্রো প্লাসে ১২০ ওয়াট সুপার ফাস্ট চার্জিং সাপোর্টসহ ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি মিলবে।

A person who enjoys creating, buying, testing, evaluating and learning about new technology.