দেশে হাই-স্পিড 5G নেটওর্য়াক চালুর পরীক্ষা শুরু করলো Reliance Jio

reliance-jio-starts-advanced-5g-tests-in-india

গত ডিসেম্বরে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক মুকেশ আম্বানি জানিয়েছিলেন নতুন বছর অর্থাৎ ২০২১-এ নতুন প্রজন্মের নেটওয়ার্ক (5G) উপভোগ করতে পারবেন ভারতবাসী। কিন্তু স্পেকট্রাম ইস্যুর জন্য দেশে কবে ৫জি (5G) পরিষেবা চালু হবে তা এখনও পর্যন্ত নিশ্চিত নয়। এদিকে, এই দোলাচলের মাঝেই আজ রিলায়েন্স জিও (Reliance Jio)-র কর্ণধার, সংস্থার ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কে দ্রুত ৫জি পরিষেবা চালু করার জোরালো প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম কোম্পানিটি ইতিমধ্যেই দেশে পঞ্চম প্রজন্মের হাই-স্পিড নেটওয়ার্ক প্রস্তুত করার অগ্রিম পরীক্ষা শুরু করেছে।

২০১৬ সালে ভারতে সর্বপ্রথম 4G Volte পরিষেবা চালু করে টেলিকম দুনিয়ায় আমূল পরিবর্তন আনে Reliance Jio। এই কোম্পানির মাধ্যমে সাধারণ মানুষ প্রচুর সস্তায় হাই-স্পিড ইন্টারনেট ব্যবহার করতে এবং এইচডি (HD) কোয়ালিটিতে ফোন কল করতে সমর্থ হন। এরপর গত বছর থেকেই শোনা যাচ্ছে, মুকেশ আম্বানির মালিকানাধীন টেলকোটি দেশে পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্কের বিকাশের কাজ শুরু করেছে এবং এটি শীঘ্র ৫জি পরিষেবা রোলআউট করতে তৎপর হয়ে উঠেছে। কিন্তু, ভারত সরকার এখনও পর্যন্ত প্রয়োজনীয় স্পেকট্রামের নিলাম না করায়, সমস্ত ভারতীয় টেলিকম সংস্থারই ৫জি নেটওয়ার্ক বিকাশের কাজ বিলম্বিত হয়েছে।

গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার এক বিবৃতিতে জিও জানিয়েছে যে, সংস্থাটি ৫জি পরিষেবার রোলআউটকে ত্বরান্বিত করবে এবং দেশের প্রতিটি প্রান্তে সাশ্রয়ী মূল্যে এই পরিষেবা উপলব্ধ করবে। আপাতত সংস্থাটি স্থানীয়ভাবে বিকশিত সরঞ্জাম ব্যবহার করে ট্রান্সমিশন স্পিড পরীক্ষা করছে বলে জানা গিয়েছে। তবে প্রয়োজনীয় স্পেকট্রাম না মিললে নেটওয়ার্ক বিকাশের কাজ কতদূর এগোবে – তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। এদিকে প্রায় সামনেই এসে গেছে নির্বাচন প্রক্রিয়া, ফলে এর মধ্যে সরকার স্পেকট্রাম নিলামের ঘোষণা করবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

তদুপরি, বেঙ্গালুরু ভিত্তিক সংস্থা তেজস (Tejas) নেটওয়ার্ক সম্প্রতি জানিয়েছে যে ভারতে ৫জি নেটওয়ার্ক চালু হতে ২০২২ সাল পর্যন্ত সময় লাগবে। তাই আগামী কয়েকমাসে ৫জি পরিষেবা চালু হবে এমনটা আশা না করাই শ্রেয়! তবে প্রতিশ্রুতি রাখতে আগামী দিনে রিলায়েন্স জিও, ৫জি নেটওয়ার্ক চালু করতে কী পদক্ষেপ নেয় সেটাই এখন দেখার বিষয়…