ভিভো, লাভাদের সাথে হাত মিলিয়ে স্মার্টফোন আনছে Jio, দাম হবে ৮ হাজার টাকার কাছাকছি

Reliance Jio সংস্থাটি একদিকে যেমন টেলিকম পরিষেবার ক্ষেত্রে বিপ্লব এনেছে, তেমনি পরিবর্তন এনেছে কীপ্যাড ফোন বা ফিচার ফোনের ধারণাতেও। 4G সাপোর্টের সাথে আসা Jio Phone না তো কেবল কথা বলার জন্য ব্যবহার হয়, বরং এতে হোয়াটসঅ্যাপ, ইউটিউব প্রভৃতি জনপ্রিয় অ্যাপও সাপোর্ট করে। তবে এবার গ্রাহকদের আকর্ষিত করতে এবং Vodafone-Idea বা Airtel-এর মত প্রতিদ্বন্দ্বী টেলিকম সংস্থাগুলিকে টেক্কা দিতে নতুন ফন্দি এঁটেছে মুকেশ আম্বানির সংস্থাটি। সম্প্রতি পাওয়া খবর অনুযায়ী, এই টেলকো ফিচার ফোনের বদলে খুব শিগগিরই স্মার্টফোন নির্মাতা ব্র্যান্ড Vivo-র সাথে হাত মিলিয়ে ভারতীয় মার্কেটে নতুন এবং এক্সক্লুসিভ জিও স্মার্টফোন (Jio Smartphone) আনার পরিকল্পনা করছে। Jio এর এই স্মার্টফোনগুলি থেকে বিভিন্ন ওটিটি প্ল্যাটফর্মের ফ্রি অ্যাক্সেস, ওয়ান টাইম স্ক্রিন রিপ্লেসমেন্ট, শপিং বেনিফিট ইত্যাদি কিছু বিশেষ সুবিধা পাওয়া যাবে বলেও জানা গিয়েছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, শুধু Vivo-ই নয়, Reliance Jio আলোচনা চালাচ্ছে Carbon, Lava-র মত ভারতীয় ব্র্যান্ড এবং অন্যান্য চীনা স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের সাথেও। সূত্রের দাবি, সংস্থাটি ভিভোর সাথে জোট বেঁধে ৮ হাজার টাকা বা তার চেয়েও কম দামে স্মার্টফোন বাজারে আনার কথা ভাবছে।

বেশ কয়েকদিন আগে শোনা গিয়েছিল, জিও ভারতে নতুন 4G স্মার্টফোন আনতে চাইনিজ স্মার্টফোন নির্মাতা iTel-এর সাথে জোট বেঁধেছে। এই ফোনগুলির দাম ৩,০০০ টাকা থেকে ৪,০০০ টাকার মধ্যে থাকবে। যদিও এখনও এই ধরণের কোনো স্মার্টফোন বাজারে এসে পৌঁছায়নি। তবে ইকোনমিক টাইমস এর দাবি, Vivo-র সাথে হাত মিলিয়ে Jio স্মার্টফোন লঞ্চ হওয়া এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা।

এপ্রসঙ্গে গ্লোবাল কনসালটিং এন্ড রিসার্চ ফার্ম, অ্যানালিসিস ম্যাসনের প্রিন্সিপাল, শ্রী আশ্বিন্দর শেঠি জানিয়েছেন, ‘4G ফিচার ফোনগুলির ইউজারদের সাথে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই জিও হ্যান্ডসেট বান্ডলিং এবং হ্যান্ডসেট সাবসিডির মত সুবিধা প্রদান করে মার্কেটে শেয়ার বাড়াতে চাইছে।’

বিশ্লেষকদের মতে, জিওর এই নতুন পদক্ষেপগুলির মাধ্যমে সংস্থার গ্রাহক সংখ্যা আরও বাড়বে। ভারতে প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন মানুষ ফিচার ফোন ব্যবহার করেন। জিও ফোনের ইউজারবেসও কম নয়। সুতরাং আগামী দিনে জিও যদি স্মার্টফোন মার্কেটের একটা বড় অংশ দখল করে, তাতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই!