Classic 350 বাইকের হাত ধরে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস বুকে নাম তুলল Royal Enfield

Royal Enfield Classic 350-র লঞ্চ ইভেন্টের ভিউয়ার্শিপে বিশ্ব রেকর্ড

royal-enfield-new-guinness-world-record-for-classic-350-launch-event-viewerships

ক্লাসিক ও রেট্রো লুকের বাইকের জন্য মানুষ মুখিয়ে থাকে প্রধানত একটি ব্র্যান্ডের দিকে, যার নাম Royal Enfield। সমগ্র বিশ্বে তো বটেই ভারতেও এর জনপ্রিয়তা চোখে পড়ার মতো। বেশি ডিসপ্লেসমেন্ট ও ব্যালেন্সড কার্ব ওয়েটের জন্য সংস্থার মোটরবাইকগুলির বিশাল চাহিদা। গত ১ সেপ্টেম্বর Royal Enfield ভারতে Classic 350-র নতুন ভার্সনটি লঞ্চ করে। এই লঞ্চ ইভেন্টটি অনলাইন বিভিন্ন মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত করা হয়, আর তাতেই ঘটে বিশ্ব রেকর্ড। হ্যাঁ শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। আসলে উক্ত ইভেন্টের ভিউয়ার্স সংখ্যা রেকর্ড করার মতোই ছিল। ওইদিন সকাল ১১:৩০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত লঞ্চ ইভেন্টটির লাইভ সম্প্রচার দেখেছেন একসাথে ১৯,৫৬৪ জন মানুষ, যা সংস্থার ১৩,৭৭৯ ভিউয়ার্শিপের পুরনো রেকর্ড ভেঙে দেয়। যদিও ১ সেপ্টেম্বরের অনুষ্ঠানের কিউমুলেটিভ ভিউয়ার্শিপের সংখ্যাটি লক্ষাধিক ছিল বলেই জানা গেছে। স্বভাবতই Royal Enfield-এর কনকারেন্ট পিক ভিউয়ার্শিপের এই রেকর্ড গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস-এ নাম তুলতে সহায়তা করেছে।

অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরার বাইক হিসেবে প্রসিদ্ধ রয়্যাল এনফিল্ড ক্লাসিক ৩৫০ মডেলটি দীর্ঘদিন ধরেই সংস্থার বেস্ট-সেলিং মডেলের তকমাটি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। সেই ২০০৯ সাল থেকে বাইকটি নিজের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর পাশাপাশি বিক্রির সংখ্যাও বাড়িয়েছে। এখনো পর্যন্ত ভারতে মোট ৩০ লক্ষ ক্লাসিক ৩৫০ মোটরসাইকেল বিক্রি হয়েছে এবং বর্তমানেও সংস্থার বিক্রি হওয়া বাইকগুলির মধ্যে ৬০-৭০% হল এই মডেলটি।

নতুন Royal Enfield Classic 350 এর বৈশিষ্ট্য

নতুন ভার্সনের বাইকটিতে কিছু পরিবর্তন ঘটানো হয়েছে। যেমন রয়্যাল এনফিল্ড মিটিওর ৩৫০ এর সাথে জে-সিরিজ ৩৫০ সিসি ইঞ্জিন এবং ডুয়েল ক্র্যাডেল চ্যাসিসের সাথে এসেছে বাইকটি। এর সাসপেনশনে ৪১ এমএম এর ফ্রন্ট ফর্কস এবং ডুয়েল রিয়ার শকস বাইকটির সওয়ারি অধিক আরামদায়ক করেছে। এছাড়াও রয়েছে আগের তুলনায় চওড়া ১৯ ইঞ্চির সামনের এবং ১৮ ইঞ্চির পেছনের হুইল। এতে ১০০ এমএম (ফ্রন্ট) ও ১২০ এমএম (রিয়ার) টায়ার থাকার ফলে মাটি কামড়ে দৌড়বে বাইকটি।

নতুন Royal Enfield Classic 350 এর ইঞ্জিন

রয়্যাল এনফিল্ড ক্লাসিক ৩৫০ বাইকটির SOHC ৩৫০ সিসি-র ইঞ্জিনটি থেকে সর্বোচ্চ ৬,১০০ আরপিএম গতিবেগে ২০.২ বিএইচপি শক্তি এবং ৪,০০০ আরপিএম গতিবেগে সর্বাধিক ২৭ এনএম টর্ক পাওয়া যায়।

প্রসঙ্গত, উপরিউক্ত বৈশিষ্ট্যগুলি Royal Enfield-কে বিশ্বের মিডিয়াম সাইজ মোটরসাইকেল সেগমেন্টে জায়গা করে দিয়েছে। বর্তমানের জনপ্রিয়তা ধরে রেখে আগামী দিনে নিজেদের ব্যবসা অধিক সম্প্রসারণের কথা জানিয়েছে সংস্থাটি। Royal Enfield Classic 350 নতুন ভার্সনটির ভারতে তথা বিশ্ব বাজারে বিক্রি বাড়াতে বিভিন্ন অফার নিয়ে আসার কথা ভাবছে সংস্থাটি।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।