Samsung লঞ্চ করলো নতুন দুটি ল্যাপটপ Galaxy Book Pro ও Galaxy Book Pro 360

samsung-galaxy-book-pro-and-galaxy-book-pro-360-laptop-launched-price-specifications

দক্ষিণ কোরিয়ার টেক জায়ান্ট Samsung, গতকাল একটি ভার্চুয়াল ইভেন্টে ‘গ্যালাক্সি বুক’ সিরিজের অন্তর্গত নতুন দুটি ল্যাপটপ Galaxy Book Pro এবং Galaxy Book Pro 360 -এর ওপর থেকে পর্দা সরালো। এই ল্যাপটপ দুটি ১৩ ইঞ্চি ও ১৫ ইঞ্চি স্ক্রিন সাইজ, ১১ প্রজন্মের ইন্টেল প্রসেসর ও ৬৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ এসেছে। আবার গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০, ৫জি কানেক্টিভিটি ও S Pen stylus সাপোর্ট সহ লঞ্চ হয়েছে। যদিও ল্যাপটপগুলি ভারতে কবে পাওয়া যাবে তা এখনো জানা যায়নি।

Samsung Galaxy Book Pro ও Galaxy Book Pro 360 ফিচার ও স্পেসিফিকেশন :

স্যামসাং গ্যালাক্সি বুক প্রো এবং গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ -উভয় মডেলেই রয়েছে ১৩.৩ ইঞ্চি (Samsung Galaxy Book Pro 13, Samsung Galaxy Book Pro 360 13) ও ১৫ ইঞ্চি (Samsung Galaxy Book Pro 15, Samsung Galaxy Book Pro 360 15) স্ক্রিন সাইজ। এর মধ্যে গ্যালাক্সি বুক প্রো মডেলগুলি মাইস্টিক ব্লু, মাইস্টিক সিলভার এবং মিস্টিক পিঙ্ক গোল্ড রঙে এসেছে। অন্যদিকে, মাইস্টিক নেভি, মাইস্টিক সিলভার এবং মিস্টিক ব্রোঞ্জ রঙের বিকল্প সহ পাওয়া যাবে গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ মডেলগুলি। দুটি ল্যাপটপের ডিসপ্লে রেজোলিউশন ফুল এইচডি।

এছাড়া সদ্য লঞ্চ হওয়া এই গ্যালাক্সি বুক প্রো এবং গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ ল্যাপটপ দুটিতে থাকছে, ৬০০০-সিরিজ অ্যালুমিনিয়াম সহ মিলিটারি গ্রেডের মজবুত স্ট্রাকচার। সম্ভবত, এই একই মিশ্রণ এরোস্পেস (aerospace) নির্মাতাদের দ্বারাও ব্যবহৃত হয়। সুতরাং, বোঝাই যাচ্ছে যে দৈনন্দিন ব্যবহারের জন্য ল্যাপটপ দুটি যথেষ্টই টেকসই হবে। স্যামসাং জানিয়েছে, গ্যালাক্সি বুক প্রো সিরিজের অন্তর্গত এই দুটি মডেল সুপার অ্যামোলেড (AMOLED) ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি, উক্ত ডিসপ্লেটি স্যামসাং স্মার্টওয়াচ, স্মার্টফোন, ট্যাবলেট সহ আরো বেশ কিছু ডিভাইসে ব্যবহৃত হলেও, এই প্রথমবার কোনো উইন্ডোজ পিসি তে ব্যবহার করতে দেখা গেলে সংস্থাটিকে। মডেল দুটিতে থাকা এই সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে, স্ট্যান্ডার্ড এলসিডিএস (LCDs) ডিসপ্লে গুলির থেকে থেকে কম ব্লু লাইট নির্গমন করার ফলে ইউজারদের আই সাইট থাকবে সুরক্ষিত। আর এই কারণে, সার্টিফিকেশন সংস্থা এসজিএস (SGS) -এর তরফ থেকে গ্যালাক্সি বুক প্রো সিরিজের ল্যাপটপ দুটি ‘আই কেয়ার-সার্টিফাইড’ তকমাও অর্জন করেছে।

হার্ডওয়ারের প্রসঙ্গে বলতে গেলে, ল্যাপটপ দুটি, ১১তম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই৭ প্রসেসর এবং ইন্টেল আইরিস এক্সই গ্রাফিক্স (i7 এবং i5) বা ইন্টেল ইউএইচডি গ্রাফিক্স (i3) দ্বারা চালিত হবে। সাথে আছে ৩২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম (LPDDR4x) ও ১ টিবি পর্যন্ত এসএসডি। স্যামসাং জানিয়েছে, ল্যাপটপ দুটিতে থাকা ‘ইন্টেলিজেন্ট পারফরম্যান্স ম্যানেজার’ (Intelligent Performance Manager) প্রযুক্তি ডিভাইসের টেম্পারেচার, ফ্যান নয়েজ এবং ব্যাটারির পারফরম্যান্সকে আরো উন্নত করবে।

এবার আসা যাক কী-বোর্ডের প্রসঙ্গে, ল্যাপটপ দুটিতে থাকছে ১মিমি দৈর্ঘ্য যুক্ত সিজার মেকানিসাম (scissor mechanism) প্রযুক্তি, যা ইউজাদের টাইপিং -এর ক্ষেত্রে দেবে আরামপ্রদ অভিজ্ঞতা। গ্যালাক্সি বুক প্রো এবং গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ ল্যাপটপ দুটিতেই এলটিই (LTE) ও ৫ জি ইন্টারনেট সংযোগ সাপোর্ট করে। এছাড়াও, এতে থাকছে ৬৫ ওয়াট সম্পন্ন দ্রুত চার্জিং ব্যবস্থা।

Samsung Galaxy Book মোবাইল ইকোসিস্টেম ইন্টিগ্রেশন :

স্যামসাং গ্যালাক্সি বুক প্রো সিরিজে থাকা মডেলগুলিকে অন্যান্য গ্যালাক্সি ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত করে নির্বিঘ্নে কাজ করা যাবে, বলে সংস্থাটি জানিয়েছে। যেমন, মাল্টিটাস্কিংয়ের সুবিধার্থে, গ্যালাক্সি বুক প্রো বা গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ ল্যাপটপের সাথে Galaxy Tab S7 ও Galaxy Tab S7+ ডিভাইস দুটিকে সংযুক্ত করে সেগুলিকে সেকেন্ডারি স্ক্রিন হিসাবে ব্যবহার করতে পারবে ইউজাররা। এছাড়া উইন্ডোজ -র সাথে ইউজাররা তাদের ফোন লিংক করার মাধ্যমে, তারা সরাসরি ল্যাপটপ থেকেই ভয়েস কলের উত্তর দেওয়া, এসএমএস বা নোটিফিকেশন চেক করার পাশাপাশি ফোনে থাকা ছবি অ্যাক্সেস করতে ও যেকোনো পাঁচটি অ্যাপ চালাতে সক্ষম হবেন।

এই মডেল দুটিতে থাকছে গ্যালাক্সি বুক স্মার্ট সুইচ (Smart Switch), যা আপনার বিদ্যমান উইন্ডোজ পিসি থেকে গ্যালাক্সি বুক প্রো সিরিজের ল্যাপটপ গুলিতে ফটো, মুভি, ফাইল, অ্যাপস এবং সেটিংস স্থানান্তর করতে সহায়তা করবে। পরিশেষে জানিয়ে রাখি, গ্যালাক্সি বুক প্রো ও গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ ল্যাপটপে কুইক শেয়ার (Quick Share) এবং স্মার্ট থিংগস ইন্টিগ্রেশন (SmartThings integration) -এর মতো উন্নত প্রযুক্তিও বর্তমান থাকছে।

Samsung Galaxy Book Pro ও Galaxy Book Pro 360 এর দাম :

স্যামসাং গ্যালাক্সি বুক প্রো এর দাম শুরু হয়েছে ৯৯৯ ডলার থেকে, যা প্রায় ৭৪,৪০০ টাকা। আবার গ্যালাক্সি বুক প্রো ৩৬০ কিনতে গেলে ব্যয় করতে হবে কমপক্ষে ১,১৯৯ ডলার, যা প্রায় ৮৯,৩০০ টাকা।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন