২৫ আগস্ট ভারতে লঞ্চ হবে Samsung Galaxy Note 20 এবং Galaxy Note 20 Ultra

ভারতে ২৫ আগস্ট দুপুর ১২ টা থেকে কোম্পানির ইউটিউব চ্যানেলে গ্যালাক্সি নোট ২০ সিরিজ এর লঞ্চ ইভেন্ট লাইভ দেখা যাবে।

Samsung Galaxy Note 20 Ultra
Samsung Galaxy Note 20, Galaxy Note 20 Ultra 5G to Launch in India on August 25

আগামী ২৫ আগস্ট ভারতে লঞ্চ হবে Samsung Galaxy Note 20 এবং Galaxy Note 20 Ultra। স্যামসাং ইন্ডিয়া থেকে টুইট করে আজ এই খবর জানানো হয়েছে। কোম্পানির তরফে টুইটে বলা হয়েছে, ভারতে ২৫ আগস্ট দুপুর ১২ টা থেকে কোম্পানির ইউটিউব চ্যানেলে গ্যালাক্সি নোট ২০ সিরিজ এর লঞ্চ ইভেন্ট লাইভ দেখা যাবে। ইতিমধ্যেই কোম্পানির নতুন এই সিরিজের দাম ও স্পেসিফিকেশন জানা গেছে। এর সেল শুরু হবে ২৮ আগস্ট থেকে। ফোনগুলি Amazon ও Samsung.Com থেকে কিনতে পারবেন। আপাতত গ্যালাক্সি নোট ২০ সিরিজ প্রিঅর্ডারের জন্য উপলব্ধ।

Samsung Galaxy Note 20 ও Galaxy Note 20 Ultra এর ভারতে দাম:

ভারতে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ এর ৪জি ভ্যারিয়েন্ট অর্থাৎ ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের দাম রাখা হয়েছে ৭৭,৯৯৯ টাকা। এই ফোনটি মিস্টিক ব্ল্যাক, মিস্টিক ব্রোঞ্জ এবং মিস্টিক গ্রিন কালারে পাওয়া যাবে। আবার স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা এর ৫জি ভ্যারিয়েন্ট (১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ) এর দাম রাখা হয়েছে ১,০৪,৯৯৯ টাকা। ফোনটি ৫১২ জিবি স্টোরেজের দাম এখনও জানানো হয়নি। এই ফোনটি মিস্টিক ব্ল্যাক, মিস্টিক ব্রোঞ্জ এবং মিস্টিক হোয়াইট কালারে পাওয়া যাবে।

Samsung Galaxy Note 20 স্পেসিফিকেশন:

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ ফোনে ৬.৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ইনফিনিটি O সুপার এমোলেড ডিসপ্লের সাথে এসেছে। এর পিক্সেল রেজুলেশন ১০৮০ x ২৪০০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। আবার এতে ফ্লাট স্ক্রিন পাবেন, যার রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্জ। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য আছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৬ প্রটেকশন। এই ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস (আমেরিকা ও অন্যান্য) ও এক্সিনস ৯৯০ প্রসেসর (ইউরোপ ও ইন্ডিয়া) ব্যবহার করা হয়েছে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবেনা।

Samsung Galaxy Note 20 ফোনে আছে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রধান ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল। এতে এফ/১.৮ লেন্স, ডুয়েল পিক্সেল অটো ফোকাস আছে। এছাড়াও অন্য দুটি ক্যামেরা ক্যামেরা হল ৬৪ মেগাপিক্সেল টেলিফোটো সেন্সর ও ১২ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স। টেলিফোটো সেন্সরে ৩এস লসলেস জুম, ৩০ এক্স স্পেস জুম ও ৮কে ভিডিও সাপোর্ট করে। সেলফির জন্য এখানে ডুয়েল পিক্সেল অটো ফোকাস ও এফ/২.২ লেন্স সহ ১০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

এই ফোনে ২৫ ওয়াট চার্জারের সাথে ৪,৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এই ব্যাটারি ০-৫০ শতাংশ চার্জ হতে ৩০ মিনিট সময় নেয়। চার্জিংয়ের জন্য এখানে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এতে ব্লুটুথ ৫.০ ও ওয়াই-ফাই ৬ কানেক্টিভিটির জন্য আছে। সিকিউরিটির জন্য পাবেন ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফোনটি S Pen এর সাথে এসেছে, যার লেটেন্সি ২৬ মিলিসেকেন্ডস। অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমের সাথে আসা এই ফোনে পাবেন One UI ইন্টারফেস।

Samsung Galaxy Note 20 Ultra স্পেসিফিকেশন:

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ আলট্রা ফোনে পাবেন ৬.৯ ইঞ্চি ওয়াইড কোয়াড এইচডি ইনফিনিটি O ডাইনামিক এমোলেড ২এক্স ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লে কার্ভড এজের সাথে এসেছে। এই ডিসপ্লের পিক্সেল রেজুলেশন ১,৪৪০ x ৩২০০ পিক্সেল এবং আসপেক্ট রেশিও ১৯.৩:৯। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য এতে গরিলা গ্লাস ভিক্টস দেওয়া হয়েছে। এই ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস (আমেরিকা ও অন্যান্য) ও এক্সিনস ৯৯০ প্রসেসর (ইউরোপ ও ইন্ডিয়া) ব্যবহার করা হয়েছে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবে। তবে ৫জি ভ্যারিয়েন্টে এই সুবিধা থাকতে পারে। এতে দেওয়া S Pen এর লেটেন্সি ৯ মিলিসেকেন্ডস।

Galaxy Note 20 Ultra ফোনের ক্যামেরার কথা বললে ফোনটি ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ এর সাথে এসেছে। এর প্রাইমারি ক্যামেরা এফ/১.৮ লেন্স এর সাথে ১০৮ মেগাপিক্সেল। এই ক্যামেরা ৫০ এক্স জুম, ২৪ এফপিএস এ ৮কে ভিডিও অপটিকাল স্টেবিলাইজেশন এর মতো ফিচারের সাথে এসেছে। এই ফোনের পিছনে অন্য দুটি ক্যামেরা হল ১২ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স ও ১২ মেগাপিক্সেল টেরতিয়ারী সেন্সর (এফ/৩.০ লেন্স)। সেলফির জন্য এই ফোনে এফ/২.২ লেন্স সহ ১০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

পাওয়ারের কথা বললে এই ফোনে ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এতে ২৫ ওয়াট চার্জার আছে। আবার এতে সাপোর্ট করবে ১৫ ওয়াট ফাস্ট ওয়্যারলেস চার্জিং ও ৯ ওয়াট রিভার্স ওয়্যারলেস চার্জিং। চার্জিংয়ের জন্য এখানে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এতে ব্লুটুথ ৫.০ ও ওয়াই-ফাই ৬ কানেক্টিভিটির জন্য আছে। সিকিউরিটির জন্য পাবেন ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমের সাথে আসা এই ফোনে পাবেন One UI ইন্টারফেস। এই ফোনে পাবেন Ultra-Wide Band (UWB) সাপোর্ট যা দ্রুত ফাইল শেয়ার করতে সাহায্য করবে।