মোট চারটি রঙে ভারতে কেনা যাবে Samsung Galaxy Note 20

গত ৫ আগস্ট দক্ষিণ কোরিয়ায় Samsung তাদের Galaxy Note 20 ফোনটিকে মিস্টিক ব্ল্যাক, মিস্টিক ব্রোঞ্জ এবং মিস্টিক গ্রিন কালারে লঞ্চ করেছিল। এর কিছুদিন পরেই এই ফোনের আরও তিনটি কালার ভ্যারিয়েন্ট সামনে আসে। যেগুলি হল রেড, ব্লু ও পিঙ্ক। যদিও নতুন কালারগুলি অন্যান্য দেশে পাওয়া যাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় ছিল। তবে কোম্পানি এবার Samsung Galaxy Note 20 এর Mystic Blue কালার ভারতে আনলো। অর্থাৎ এখন ভারতে গ্যালাক্সি নোট ২০ মোট ৪টি রঙে পাওয়া যাবে।

কয়েকদিন আগে জানা গেছে আগামী ২৮ আগস্ট ভারতে লঞ্চ হবে Galaxy Note 20। যদিও কোম্পানির তরফে এবিষয়ে কিছু বলা হয়নি। তবে ই-কমার্স সাইট Amazon এই ফোনের লঞ্চ ডেট সামনে এনেছে। ভারতে এই ফোনের প্রি-বুকিংও শুরু হয়েছে।  স্যামসাং প্রি-বুকিংকারীদের জন্য দুর্দান্ত অফারের ঘোষণা করেছে।

জানানো হয়েছে Galaxy Note 20 ফোনটি প্রি-বুক করলে ৬,০০০ টাকা ক্যাশব্যাক দেওয়া হবে। এছাড়াও এই এই ফোনের উপর কোম্পানি যথাক্রমে ৭,০০০ টাকা অতিরিক্ত বেনিফিট দেবে। আপনি এই বেনিফিট পেয়ে অন্যান্য স্যামসাং প্রোডাক্ট যেমন Galaxy Tabs, Galaxy Buds Live প্রভৃতি সস্তায় কিনতে পারবেন। আবার পুরানো ফোন এক্সচেঞ্জ করেও ৫,০০০ টাকা পাওয়া যাবে। ভারতে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ এর ৪জি ভ্যারিয়েন্ট অর্থাৎ ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের দাম রাখা হয়েছে ৭৭,৯৯৯ টাকা।

Samsung Galaxy Note 20 স্পেসিফিকেশন:

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ২০ ফোনে ৬.৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ইনফিনিটি O সুপার এমোলেড ডিসপ্লের সাথে এসেছে। এর পিক্সেল রেজুলেশন ১০৮০ x ২৪০০ এবং আসপেক্ট রেশিও ২০:৯। আবার এতে ফ্লাট স্ক্রিন পাবেন, যার রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্জ। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য আছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৬ প্রটেকশন। এই ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস (আমেরিকা ও অন্যান্য) ও এক্সিনস ৯৯০ প্রসেসর (ইউরোপ ও ইন্ডিয়া) ব্যবহার করা হয়েছে। মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবেনা।

Samsung Galaxy Note 20 ফোনে আছে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রধান ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল। এতে এফ/১.৮ লেন্স, ডুয়েল পিক্সেল অটো ফোকাস আছে। এছাড়াও অন্য দুটি ক্যামেরা ক্যামেরা হল ৬৪ মেগাপিক্সেল টেলিফোটো সেন্সর ও ১২ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড এঙ্গেল লেন্স। টেলিফোটো সেন্সরে ৩এস লসলেস জুম, ৩০ এক্স স্পেস জুম ও ৮কে ভিডিও সাপোর্ট করে। সেলফির জন্য এখানে ডুয়েল পিক্সেল অটো ফোকাস ও এফ/২.২ লেন্স সহ ১০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

এই ফোনে ২৫ ওয়াট চার্জারের সাথে ৪,৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এই ব্যাটারি ০-৫০ শতাংশ চার্জ হতে ৩০ মিনিট সময় নেয়। চার্জিংয়ের জন্য এখানে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এতে ব্লুটুথ ৫.০ ও ওয়াই-ফাই ৬ কানেক্টিভিটির জন্য আছে। সিকিউরিটির জন্য পাবেন ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফোনটি S Pen এর সাথে এসেছে, যার লেটেন্সি ২৬ মিলিসেকেন্ডস। অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমের সাথে আসা এই ফোনে পাবেন One UI ইন্টারফেস।