স্যামসাং স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য সুখবর, লেনদেনের সুবিধার্থে আসছে ডেবিট কার্ড

অ্যাপেল হুয়াওয়ে এবং গুগলের পরে এবারে স্যামসাং তাদের পেমেন্ট পোর্টাল এবং সার্ভিসের উন্নতি সাধন করার জন্য নিয়ে আসতে চলেছে কার্ড ফিচার। এই দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানিটির নিজস্ব একটি পেমেন্ট সার্ভিস রয়েছে যার নাম Samsung Pay। এই স্যামসাং পে শীঘ্রই একটি তাদের নিজস্ব নতুন ডেবিট কার্ড ফিচার লঞ্চ করতে চলেছে। Samsung তাদের ৫-বছরের স্যামসাং পে সার্ভিস সেলিব্রেশনে এই ঘোষণা করেছে। তারা জানিয়েছে যে, এই গ্রীষ্মকালেই Samsung Debit Card রিলিজ করা হবে। এবং এই কাজের জন্য তাদের সহযোগিতা করেছে সান ফ্রান্সিসকোর ফিনটেক কোম্পানি SoFi।

এর ব্যাপারে বেশি কিছু তথ্য জানানো হয়নি, তবে জানা গিয়েছে এই কার্ড ক্যাশ ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে চলবে এবং ব্যবহারকারীর স্মার্টফোনের মাধ্যমে এটিকে চালানো যাবে। এছাড়াও এই কার্ড স্যামসাং পে ব্যবহারকারীদের তাদের প্রতিদিনের খরচের হিসাব রাখতে ব্যবহার করা যাবে। এছাড়াও একটি রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে, স্যামসাং প্রথম ‘মোবাইল ফার্স্ট মানি ম্যানেজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম’ তৈরি করতে চলেছে। এছাড়াও তারা জানিয়েছে যে, এই সার্ভিসগুলি তাদের ব্যবহারকারীদের আর্থিক ক্ষেত্রে সাহায্য করবে।

তাদের নিজস্ব পেমেন্ট সার্ভিস স্যামসাং পে-র উন্নতি সাধনের জন্য স্যামসাং বিগত পাঁচ বছরে বেশ কিছু কোম্পানির সাথে চুক্তি করেছে। আজ স্যামসাং পে শুধুমাত্র সবথেকে বেশি ব্যবহার হওয়া পেমেন্ট পোর্টাল হওয়ার পাশাপাশি এতে রয়েছে এমএসটি সাপোর্ট যা একে করে তোলে অত্যন্ত ফ্লেক্সিবল। এছাড়াও আপনারা স্যামসাং পে ব্যবহার করলে রিওয়ার্ড পেতে পারেন। এবং সেই রিওয়ার্ড ব্যবহার করে আপনারা তাদের বিশেষ কিছু সার্ভিস ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও এটাকে আপনারা বিভিন্ন রিওয়ার্ড ক্লেইম করতেও ব্যবহার করতে পারেন। আবার একটি ক্যাশব্যাক প্রোগ্রামের দরুন ব্যবহারকারীরা বাছাই করা কিছু দোকান থেকে জিনিসপত্র কিনলে ১২ শতাংশ ক্যাশব্যাক পেয়ে যাবেন।

এবার যদি আপনাদের মনে হয় যে অ্যাপেল কার্ডের সঙ্গে স্যামসাং কার্ড একেবারে সমান, তাহলে আপনাদের জানিয়ে রাখি এই দুটি কার্ডের মধ্যে বেশ কিছু তফাৎ রয়েছে। স্যামসাং পে কার্ড একটি ডেবিট কার্ড অন্যদিকে অ্যাপেলের কার্ড একটি ক্রেডিট কার্ড। দুটি কার্ড ই ব্যাংকিং সার্ভিসের সঙ্গে যুক্ত, তবে তফাৎ থেকে যাচ্ছে তাদের সার্ভিস প্রোভাইডারের ক্ষেত্রে। স্যামসাং এর ক্ষেত্রে যেখানে কাজ করছে SoFi, সেখানে অ্যাপেলের ক্ষেত্রে কাজ করছে Goldman Sachs। এছাড়াও শুধু স্যামসাং কার্ড নয় এই কোম্পানিতে ভবিষ্যতে আরো বেশকিছু সার্ভিস লঞ্চ করতে পারে বলে জানা গিয়েছে।