Homeবিজ্ঞানকম খরচে ঘুরে আসতে পারবেন চাঁদ থেকে, আগামীকাল ফের Artemis 1 উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি নিচ্ছে NASA

কম খরচে ঘুরে আসতে পারবেন চাঁদ থেকে, আগামীকাল ফের Artemis 1 উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি নিচ্ছে NASA

নাসা ভবিষ্যতে চাঁদের কক্ষপথে একটি স্পেস স্টেশন বা ল্যাবরেটরি নির্মাণের পরিকল্পনা করছে, যার নাম চন্দ্র মিশন। এর পর চাঁদের কাছাকাছি থেকে গবেষণা করতে পারবেন মহাকাশচারী ও বিজ্ঞানীরা

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা (NASA) আরও একবার চাঁদে মানুষ পাঠাতে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সারছে। এজন্য তারা আর্টেমিস (Artemis) মিশন নিয়ে কাজ করছে। উল্লেখ্য, গত ২৯ আগস্ট আর্টেমিস-১ (Artemis 1)-এর উৎক্ষেপণ প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে স্থগিত করতে হয়। লঞ্চের ঠিক আগে ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দেয়। যারপর নাসা এই উৎক্ষেপণের জন্য ৩রা সেপ্টেম্বর তারিখ নির্ধারণ করেছে।

আর্টেমিস মিশনের ম্যানেজার মাইকেল সারাফিন বলেছেন, “আমরা শনিবার আর্টেমিস-১ আরও একবার লঞ্চের চেষ্টা করব, যেহেতু আমরা আগের সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠেছি।” এর আগে গত ২৯ আগস্ট উৎক্ষেপণ করা রকেটের চারটি ইঞ্জিনের মধ্যে একটিতে প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দেয়। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে, ৩ সেপ্টেম্বর ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে দুপুর ২ টো বেজে ১৭ মিনিটে আর্টেমিস-১ চাঁদের উদ্দ্যেশ্যে পাড়ি জমাবে।

নাসার আর্টেমিস-১ মিশন কি?

আপনাদের জানিয়ে রাখি, আর্টেমিস মিশনের মাধ্যমে নাসা প্রায় ৫০ বছর পর ফের একবার চাঁদে মহাকাশচারী পাঠানোর চেষ্টা করছে। ১৯৬৯ থেকে ১৯৭২ সালের মধ্যে অ্যাপোলো মিশনে অনেক মহাকাশচারী চাঁদে গিয়েছিলেন, কিন্তু তারপর থেকে আর কেউ চাঁদে অবতরণ করেনি। আর্টেমিস মিশনের চতুর্থ বা পঞ্চম মিশন অর্থাৎ ২০২৫ সাল থেকে মানুষকে চাঁদে নিয়ে যাওয়াই নাসার লক্ষ্য। আর্টেমিস মিশনের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো একজন নারী ও একজন কৃষ্ণাঙ্গ নভোচারীকে চাঁদে পাঠানো হবে।

চাঁদের কক্ষপথে তৈরি হবে ল্যাব

নাসা ভবিষ্যতে চাঁদের কক্ষপথে একটি স্পেস স্টেশন বা ল্যাবরেটরি নির্মাণের পরিকল্পনা করছে, যার নাম চন্দ্র মিশন। এর পর চাঁদের কাছাকাছি থেকে গবেষণা করতে পারবেন মহাকাশচারী ও বিজ্ঞানীরা। একইসঙ্গে মহাকাশে যেতে চাইলে তার খরচও কমতে চলেছে আগামী কয়েক দশকে।

শীঘ্রই আপনি স্পেস ট্যুরে যেতে সক্ষম হবেন

আশা করা হচ্ছে, নাসা চাঁদে পা রাখার পর মহাকাশ পর্যটনও সস্তা হবে এবং সাধারণ মানুষ টিকিট নিয়ে মহাকাশভ্রমণে যেতে পারবেন। আর্টেমিস মিশনের জন্য স্পেস-এক্সের মতো বেসরকারি সংস্থারও সাহায্য নিচ্ছে নাসা।

আরও পড়ুন