Share Market: করোনার কারণে শেয়ার বাজারে বিপুল ধস, ১৪০০ পয়েন্ট নামল সেনসেক্স, নিফটিতেও পতন

সকাল ১০ টা নাগাদ ১২০০ পয়েন্টেরও বেশী নীচে নেমে যায় সেনসেক্স এবং সকাল ১১ টায় ১৪০৮ পয়েন্ট নীচে নেমে গিয়ে ৫৭,৩১৫ পয়েন্টে পৌঁছায়

share-market-updates-sensex-plunges-1400-points-nifty-below-17-300-on-weak-global

গত কয়েকদিন ধরেই শেয়ার বাজার বেশ খানিকটা নিম্নমুখী রয়েছে। আজ, শুক্রবার, S&P বোম্বাই স্টক এক্সচেঞ্জে (BSE) সেনসেক্স একলাফে আরও ১৪০০ পয়েন্ট নীচে নেমে গেল। নিফটি (Nifty) ৫০ সূচকেও দেখা গিয়েছে পতন। সম্প্রতি, বিশ্বে একটি নতুন করোনা ভাইরাস এর প্রজাতির আবির্ভাবের পরেই সম্ভবত বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বাজার সম্পর্কে ভীত ও সন্দিহান হয়ে পড়েছেন, ফলত বিশ্ব বাণিজ্য ও অর্থনীতি সহ শেয়ার বাজারে এই বিরূপ প্রভাব পড়েছে বলে মত বিশেষজ্ঞ মহলের।

আজ সকালে, মার্কেট খোলার সময় থেকেই ক্রমশ নামতে শুরু করে শেয়ার বাজার। সকাল ১০ টা নাগাদ ১২০০ পয়েন্টেরও বেশী নীচে নেমে যায় সেনসেক্স এবং সকাল ১১ টায় ১৪০৮ পয়েন্ট নীচে নেমে গিয়ে ৫৭,৩১৫ পয়েন্টে পৌঁছায়। পাশাপাশি, নিফটির (Nifty) ৫০ সূচকও ২. ৪৩% বা ৪২৬ পয়েন্ট নীচে নেমে গিয়ে ১৭,১১০ পয়েন্টে এসে স্থিত হয়। ভারতীয় শেয়ার মার্কেটের এই বিপুল ধসে সর্বাধিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রি, HDFC, HDFC ব্যাংক, ICICI ব্যাংক, কোটাক মহিন্দ্রা ব্যাংক, ইনফোসিস ও স্টেট ব্যাংক এর মতো সংস্থাগুলি।

এছাড়া, এদিন এশিয়ান স্টকস্ কোম্পানিটিও গত দুমাসের মধ্যে সর্বাপেক্ষা বেশী ক্ষতির মুখোমুখি হয়। নতুন ভাইরাস প্রজাতিটির আগমনের খবর ছড়াতেই বিনিয়োগকারীরা ইয়েন, ডলার ও বন্ড গুলির নিরাপত্তা সম্পর্কে অধিক সতর্ক হয়ে পড়েন।

জাপানের বাইরে, এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের শেয়ার সংক্রান্ত MSCI এর বৃহত্তম সূচকেও দেখা গিয়েছে ১.৩% পতন, যা সেপ্টেম্বর মাস থেকে শুরু করে এখনও অবধি সবচেয়ে বড়।

এছাড়া, BSE কতৃক একত্রিত প্রায় ১৯ টি বিভাগের প্রত্যেকটিই তুলনামূলক নিন্মমুখী হয়ে ট্রেড করছে। অটো, মেটাল, কনসিউমার ডিউরাবেলস্ (Consumer durables), অয়েল অ্যান্ড গ্যাস, পাওয়ার, IT, টেলিকম, ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল, ব্যাংকিং ও ফিনান্স ইন্ডিসিস সহ সবকটি বিভাগেই ২ থেকে ৩.৫ % মতো পতন পরিলক্ষিত হয়েছে। তবে, এই তালিকায় ৫% এরও বেশী পতন ঘটিয়ে সবার প্রথমে রয়েছে S&P BSE রিয়েলিটি ইনডেক্স।

নিফটি ৫০ এর শেয়ারগুলির মধ্যে ৪৪ টিই নিন্মমুখী মূল্যে ট্রেড করছে। ONGC-র শেয়ারে দেখা গেছে ২.৭৪% পতন, যা বাকি সবকটির মধ্যে সর্বোচ্চ। এছাড়া মারুতি সুজুকি, কোটাক মহিন্দ্রা প্রমুখ কোম্পানিগুলির শেয়ারেও দেখা গিয়েছে লক্ষণীয় পতন।

অন্য দিকে, সম্পূর্ণ বিপরীত পথে গিয়ে সিপলা, ড: রেড্ডিস ল্যাব, সান ফার্মা, কোল ইন্ডিয়া প্রমুখ কোম্পানিগুলি লাভের মুখ দেখেছে। তবে, সবমিলিয়ে শেয়ার বাজার আজ নেতিবাচক ছন্দেই বিরাজ করছে। প্রায় ২,১৯২ টি শেয়ার নিন্মগামী রয়েছে, অপরদিকে, মাত্র ৮৯৬ টি শেয়ার BSE তে ওপরের দিকে উঠেছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।