চীনা অ্যাপকে ব্যান করায় আহ্লাদে আটখানা ভারতীয় অ্যাপ ShareChat ও Chingari

সম্প্রতি ভারত সরকার Tiktok, CamScanner সহ ৫৯টি চীনের অ্যাপ্লিকেশনকে ভারতে ব্যান করে দিয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের সমর্থনে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ভারতের টিকটক অ্যাপ্লিকেশনের বিকল্প, চিঙ্গারি। এছাড়াও সরকারের এই রায়ের স্বপক্ষে রয়েছে অত্যন্ত জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন শেয়ারচ্যাট এবং খবরি। আসুন জেনে নিই এই তিনটি অ্যাপের থেকে কি প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে।

ফোন কিনতে এখানে ক্লিক করুন।

চিঙ্গারি অ্যাপ্লিকেশনের কো-ফাউন্ডার এবং চিফ প্রোডাক্ট অফিসার,‌ সুমিত ঘোষ জানিয়েছেন,” ভারত সরকার এবং তথ্যপ্রযুক্তি দপ্তরের এই সিদ্ধান্তটি ভারতের জন্য অত্যন্ত মঙ্গলকারী। দীর্ঘ সময় ধরে চীনের অ্যাপ্লিকেশন টিকটক ভারতের ব্যবহারকারীদের উপরে নজর রাখছিল এবং তাদের তথ্য সরাসরি চীন সরকারের হাতে তুলে দিচ্ছিল। যা ভারতীয় ব্যবহারকারীদের পক্ষে অত্যন্ত খারাপ। তাই এই সিদ্ধান্তের জন্য আমরা সকলেই খুব খুশি।”

ফোন কিনতে এখানে ক্লিক করুন।

অন্যদিকে খবরি অ্যাপ্লিকেশনের কো-ফাউন্ডার সন্দীপ সিংহ জানিয়েছেন, ” ভারত সরকারের এই রায় কে আমরা স্বাগত জানাই। চীনের কোম্পানি গুলিকে ব্যান করে দেবার মাধ্যমে ভারতের নিজের কোম্পানিগুলির উত্থানের রাস্তা অনেকটা সহজ হয়ে‌ যাবে। যদিও আমরা মনে করি, ভারতের এই লক্ষ্য তখন সম্পুর্ন হবে যখন, ভারতীয় অ্যাপ্লিকেশন এবং কোম্পানিতে চীনা বিনিয়োগ সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করে দেওয়া হবে। এই চীনা বিনিয়োগ ডেটা প্রাইভেসি অথবা সিকিউরিটির ক্ষেত্রে একটি প্রশ্ন চিহ্ন রেখেই দেয়। এই পদক্ষেপ গ্রহণ করলে ভারতের নিজস্ব স্টার্টআপগুলি বড় হওয়ার সুযোগ পাবে এবং আমরা নিজেদের দেশের আলাদা টিকটক, উইচ্যাট, এবং বাইদু-র মত অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারব।”

এছাড়াও শেয়ার চ্যাট এর পাবলিক পলিসি ডিরেক্টর বার্জেস মালু জানিয়েছেন,” এই পদক্ষেপ গ্রহণ করে ভারত সরকার এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন এর উপর বিধিনিষেধ নিয়ে এলো যেগুলি সাধারণ মানুষের ডেটা প্রাইভেসি নষ্ট করে। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি ভারতের সাইবার সিকিউরিটি এবং ন্যাশনাল সিকিউরিটিতে সমস্যা তৈরি করত। আমরা আশা রাখি যে, ভারত সরকার এভাবেই ভারতীয় স্টার্টআপগুলিকে আরো ভালোভাবে উন্নতি করার সুযোগ করে দেবে ভবিষ্যতে।”

আমাদেরকে ফলো করুন ইনস্টাগ্রামে