ফোন নম্বর গোপন সহ Signal অ্যাপের এই ১১টি সুবিধা নেই হোয়াটসঅ্যাপে

signal-offers-these-11-features-that-whatsapp-not-provide

অন্তর্জাল নির্ভর দুনিয়ায় আমাদের ডেটা প্রাইভেসি কতটা সুরক্ষিত তা নিয়ে বহু বিতর্ক রয়েছে। কিন্তু সবকিছুর ঊর্ধ্বে প্রত্যেকেই নিজের গোপন তথ্যগুলি সুরক্ষিত রাখতে চান। আর এখানেই বাদ সাধছে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি শর্তাবলী এবং নীতিমালা, যেখানে তারা সরাসরি ইউজারের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে সেগুলিকে বিভিন্ন থার্ড পার্টি সোর্সের সঙ্গে বিনিময় করার কথা বলছে। ফলে বিরক্ত হয়ে ইতিমধ্যে অসংখ্য হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী অন্যান্য মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনগুলির দিকে ঝুঁকছেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য বিকল্প হিসেবে Signal অ্যাপ্লিকেশনটির কথা উঠে এসেছে। অতিরিক্ত ডেটা সুরক্ষার সঙ্গে এই সিগন্যাল অ্যাপে এমন ১১টি ফিচার আছে যা হোয়াটসঅ্যাপে উপলব্ধ নয়। এই প্রতিবেদনে আজ আমরা এই ফিচারগুলি সম্পর্কেই আলোচনা করবো।

১। সবথেকে প্রথমে Signal অ্যাপ্লিকেশনের যে সুবিধার কথা উল্লেখ করতে হয় তা হল ভার্চুয়াল ফোন নম্বরের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করে ইউজার এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। এর জন্য অবশ্য TextNow জাতীয় অ্যাপ ইনস্টল করা জরুরী। ভার্চুয়াল মোবাইল নম্বর ব্যবহার করায় ইউজারের আসল ফোন নম্বর সম্পূর্ণ গোপন থাকবে। এছাড়া সিগন্যাল কোনভাবেই ব্যবহারকারীর কন্ট্যাক্ট লিস্টের অ্যাক্সেস দাবি করে না।

২। রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে সিগন্যাল অ্যাপে অতিরিক্ত প্রাইভেসি সতর্কতা হিসেবে ইউজার নিজের প্রকৃত নাম ও ছবি ব্যবহার নাও করতে পারেন। আপাতত এই একই ব্যাপারটি আপনি হোয়াটসঅ্যাপেও করতে সক্ষম। তবে যারা দীর্ঘদিন ধরে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করছেন, ইতিমধ্যেই তাদের বহু ডেটা মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটির কাছে জমা হয়েছে। ফলে নাম এবং ছবি পরিবর্তন করে তাদের গোপনীয়তা কতটা রক্ষিত হবে সে বিষয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।

৩। আগেই বলেছি যে সিগন্যালে রেজিস্ট্রেশনের জন্য কেউ ভার্চুয়াল ফোন নম্বর ব্যবহার করতে পারেন। ফলে ইউজারের ডিজিটাল প্রোফাইলের সঙ্গে তার প্রকৃত নম্বরের কোন যোগ থাকেনা। এক্ষেত্রে তার অ্যাকাউন্ট একটি পিনের (PIN) সঙ্গে সংযুক্ত থাকে যার ফলে ইউজারকে ট্র্যাক করা সহজ নয়। বাড়তি সতর্কতা হিসেবে ইউজার প্রাইভেসি সেটিংসে গিয়ে ‘রেজিস্ট্রেশন লক’ (Registration Lock) বিকল্পটি সক্রিয় করতে পারেন। এর ফলে ব্যবহারকারী ভিন্ন ডিভাইস থেকে সিগন্যাল অ্যাকাউন্টে অনধিকার প্রবেশ রোধ করতে পারবেন।

৪। সিগন্যালের আরেকটি উল্লেখযোগ্য ফিচার হল কন্ট্যাক্ট তালিকার ডিফল্ট ছবিগুলিকে হাইড রাখা। এরজন্য অ্যাপিয়ারেন্স সেটিংস অপশনে গিয়ে ‘Use system contact photos’ বিকল্পটিকে নিষ্ক্রিয় করতে হবে।

৫। সিগন্যালে প্রাইভেসি সেটিংস অপশনে ক্লিক করার পর ইউজার Read Reciepts বিকল্পটিকে নিষ্ক্রিয় এবং ‘Always Relay Calls’ অপশনকে সক্রিয় করতে পারেন। এর ফলে ইউজারেরর আইপি অ্যাড্রেস গোপন থাকার পাশাপাশি তার গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলিও অনেকাংশে সুরক্ষিত থাকবে।

৬। যদি আপনি আইফোন ব্যবহার করে থাকেন, তবে প্রাইভেসি সেটিংসে গিয়ে ‘Show calls in Recent’ অপশনটি নিষ্ক্রিয় করতে পারবেন। এটি সিগন্যালের মাধ্যমে কৃত ভয়েস এবং ভিডিও কলগুলিকে কল হিস্ট্রিতে সংযোজন থেকে বিরত রাখবে।

৭। Signal অ্যাপে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত চ্যাট যাতে অপরে না দেখতে পান, সেজন্য তিনি সর্বনিম্ন এক মিনিটের ‘Screen Timeout’ অপশন সক্রিয় করে রাখতে পারেন। এর ফলে তার একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়গুলি অন্যের হস্তক্ষেপ থেকে মুক্তি পাবে।

৮। যে কোন অপরিচিত মানুষ যাতে হুট করে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে না পারে তা রোধ করার জন্যেও সিগন্যালে নির্দিষ্ট ফিচার রয়েছে। এজন্য প্রাইভেসি সেটিংসে গিয়ে ‘Allow from Anyone’ বিকল্পটি নিষ্ক্রিয় করতে হবে।

৯। এছাড়া সিগন্যাল ব্যবহারকারীরা অ্যাডভান্সড সেটিংসে গিয়ে ‘Debug log’ বিকল্পটি নিষ্ক্রিয় করে রাখতে পারেন। এটি আপনার ব্যক্তিগত তথ্যকে বাড়তি সুরক্ষা জোগাবে।

১০। সিগন্যাল অ্যাপ্লিকেশনে অপরের সঙ্গে বার্তা বিনিময়ের আগে প্রতিটি স্বতন্ত্র কন্ট্যাক্টের সেফটি নম্বর যাচাই করা সম্ভব, যা অন্যান্য মেসেজিং অ্যাপের থেকে সিগন্যালকে বেশী সুরক্ষিত রাখে।

১১। সবশেষে বলতে হয় ‘dissappearing messeges’ ফিচারটির কথা। হোয়াটসঅ্যাপের তুলনায় সিগন্যালে এই সুবিধাটি অধিক কার্যকর। কেননা এখানে একটি পক্ষ ডিস্যাপিয়ারিং মেসেজের বিকল্পটি সক্রিয় করলে, অপর ইউজারেরা অনুসরণ করতে বাধ্য থাকেন। এক্ষেত্রে অ্যাপ ব্যবহারকারী অন্ততপক্ষে পাঁচ সেকেন্ড সময় নির্দিষ্ট করতে পারেন। অর্থাৎ মেসেজ দেখার পাঁচ সেকেন্ড পরে, সেটি ইউজারের ডিভাইস থেকে মুছে যাবে।