এপ্রিলে একটাও স্মার্টফোন বিক্রি হয়নি ভারতে, সারাবিশ্বে বিক্রি কমেছে ১৩ শতাংশ

বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস কে রুখতে ভারত সরকার ২৪ মার্চ সারাদেশে লকডাউনের ঘোষণা করেছিল। এরপর ফের লকডাউন বাড়িয়ে ৩ মে করা হয়। এবং সম্প্রতি তৃতীয় দফায় এই লকডাউন বাড়িয়ে ১৭ মে পর্যন্ত করা হয়েছে। লকডাউনে সরকার ই-কমার্স সাইটগুলিকে কেবল প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রির অনুমতি দিয়েছিল, যাতে সামাজিক দূরত্বের নিয়ম যথাযথ পালন হয়। এরফলে বিরাট প্রভাব পরে টেক ইন্ডাস্ট্রির উপর। বিভিন্ন কোম্পানি তাদের ইভেন্ট বাতিল করে দেয়। সম্প্রতি একটি রিপোর্টে জানা গেছে ভারতে লকডাউনের কারণে এপ্রিলে একটি স্মার্টফোন ও বিক্রি হয়নি।

কাউন্টারপয়েন্টের অ্যাসসিয়েট ডিরেক্টর তরুণ পাঠক আইএএনএসকে বলেছেন, ‘এপ্রিল মাসে স্মার্টফোনের শিপমেন্ট শূন্য এবং লকডাউনের কারণে আমরা অনিশ্চিয়তার মধ্যে যাচ্ছি। ফলে ২০২০ এর দ্বিতীয় কোয়ার্টার স্মার্টফোন কোম্পানিগুলিকে একটি বড় চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করাবে।’

প্রসঙ্গত সমস্ত স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি যেমন Samsung থেকে Xiaomi এবং Realme মার্চেই তাদের স্মার্টফোন উৎপাদন এবং এসেমব্লিং করা বন্ধ করে দিয়েছে। ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণার পরে রিয়েলমি তাদের ফোনের বিক্রি ও উৎপাদন সম্পূর্ণ বন্ধ বলে ঘোষণা করেছিল।

তবে শুধু ভারতে নয়, সারাবিশ্বে লকডাউনের কারণে স্মার্টফোন বিক্রি কমেছে ১৩ শতাংশ। এরআগে কোনো কোয়ার্টারে এত স্মার্টফোন বিক্রি পরিমান কমার নজির নেই। শুধু তাই নয়, লকডাউনের কারণে মানুষ অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে। এর প্রভাব স্মার্টফোন বিক্রির উপর প্রভাব ফেলেছে এবং কিছুমাস ফেলবেও। বিশেষজ্ঞদের ধারণা মানুষ পরবর্তী দুইবছর লো বাজেট স্মার্টফোন কেনার কথা কথা ভাববে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।