কোন সাপে কামড়ালে কি চিকিৎসা? কার ছোবলে কত বিষ, জানাবে স্নেকপিডিয়া অ্যাপ

snakepedia-app-launched-to-aware-people-about-various-snake.jpg

ভারতবর্ষের অনেক গ্রামেগঞ্জেই এখনও সাপে কামড়ানোর জেরে বহু মানুষের মৃত্যু ঘটে। কারণ, একবিংশ শতাব্দীর বুকে দাঁড়িয়েও সাপে কামড়ালে প্রাথমিক করণীয় কী তা অনেকরই জানা থাকেনা। যার ফলে অনেকেই, আক্রান্তকে ব্যক্তি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার বদলে ওঝার ঝাঁড়ফুকে বিশ্বাস করেন। সেক্ষেত্রে এবার, কেরালা অঞ্চলে সাধারণ মানুষের মধ্যে সাপে কামড়ানো সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য এবং চিকিৎসায় সহায়তার জন্য স্নেকপিডিয়া (Snakepedia) নামে একটি মোবাইল অ্যাপ আনল ডাক্তার, পরিবেশবিদ এবং বিজ্ঞানীদের একটি দল।

রিপোর্ট অনুযায়ী, এই Snakepedia অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপে ছবি, লেখা, ভিডিও, পডকাস্ট ইত্যাদির মাধ্যমে বিভিন্ন সাপ এবং সাপের কামড় সংক্রান্ত নানা তথ্য থাকবে। এটি সাপের কামড় সংক্রান্ত বিভিন্ন ধারণা বা কুসংস্কারকে ধ্বংস করার লক্ষ্য নিয়ে এগোবে এবং ফার্স্ট এইড বা সম্পূর্ণ চিকিৎসার ক্ষেত্রে সহায়তা করবে।

এই বিষয়ে লন্ডনের জুলজিক্যাল সোসাইটির এক ছাত্র সন্দীপ দাস বলেন, অনেক জায়গাতেই সাপে কামড়ালে রোগীর সাথে সেই সাপকেও সাথে নিয়ে হাসপাতালে পৌঁছানোর রেওয়াজ আছে; কারণ অনেকেই মনে করেন কোন সাপে কামড়েছে তা জানলে চিকিৎসায় হয়তো সুবিধা হবে। সেক্ষেত্রে এই নতুন অ্যাপটি, সাধারণ মানুষ এবং ডাক্তার – উভয়ের সাপ চেনার জন্যই সহায়ক হবে। পাশাপাশি কিছু হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের মাধ্যমে সাপ চিহ্নিতকারী চিকিৎসকদের গবেষণায় সহায়তার জন্যও কাজ চলছে বলে জানান সন্দীপ।

সন্দীপ আরও বলেছেন যে, সারা পৃথিবীতে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩,৬০০ রকমের সাপের হদিস পাওয়া গিয়েছে। তার মধ্যে ৩০০টি প্রজাতিকে ভারতে দেখা যায়। আবার তার মধ্যে ১০০ রকমের সাপ দেখা যায় শুধু কেরালাতেই। এক্ষেত্রে স্নেকপিডিয়া অ্যাপ্লিকেশনে ওই ১০০ রকম জাতের সাপের ছবি এবং তাদের সম্পর্কে সমস্ত তথ্য উপলব্ধ থাকবে।

এখনও পর্যন্ত সাপ বা সাপের কামড় সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে নানা ধরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কখনো পাঠ্যক্রমে এই বিষয়টিকে যুক্ত করা হয়েছে তো কখনো আবার গ্রামাঞ্চলগুলিতে প্রচার চালানো হয়েছে। তাই আগামী দিনে এই নতুন ভার্চুয়াল মাধ্যমটি কতটা কার্যকরী হয়, সেটাই দেখার…

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন