দাম শুরু মাত্র ৩৯৯ টাকা থেকে, Infinix আনল SNOKOR iRocker Stix ও Bass Drops ইয়ারফোন

iRocker Stix এবং Bass Drops ইয়ারফোন দুটি নতুন মডেল হিসেবে এসেছে

snokor-irocker-stix-bass-drops-earphones-launched-in-india-price-starting-rs-399

গত বছর Infinix-এর অডিও কোম্পানি SNOKOR ভারতীয় বাজারে ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাডস iRocker Stix এবং ওয়্যার্ড Bass Drops নামে দুটি হেডফোন লঞ্চ করেছিল। এবার আজ ঠিক এক বছর পর সেই দুটি হেডফোনই নতুন রুপে লঞ্চ হল। আগের বছর লঞ্চের সময় iRocker Stix ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাডটির দাম ছিল ১,৪৯৯ টাকা। তবে নতুন মডেলটির দাম কমে হয়েছে ১,০৯৯ টাকা। অন্যদিকে, ৪৯৯ টাকা দামের Bass Drops ওয়্যার্ড হেডফোনটির নতুন মডেলের দাম এখন ৩৯৯ টাকা রাখা হয়েছে। দুটি হেডফোনকেই ই-কমার্স সাইট ফ্লিপকার্ট থেকে কেনা যাবে।

iRocker Stix ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাডের ফিচার

আইরকার স্টিক্স ইয়ারবাডটি কালো ও সাদা এই দু’টি রঙের ভ্যারিয়েন্টে উপলব্ধ। কানেক্টিভিটির জন্য ডিভাইসটিতে আছে ব্লুটুথ ভার্সন ৫.০। ফলে ভিড়ের মধ্যেও এটি নিজের পরিসর বাড়িয়ে নিতে পারে এবং নির্বিঘ্নে ফোনের সাথে সংযোগ স্থাপন করা যায়। গ্রাহকেরা ইয়ারবাডটির মাধ্যমে এইচডি কলিংয়ের মজা উপভোগ করতে পারবেন। পাশাপাশি, কেস থেকে বার করার মাত্র ২ সেকেণ্ডের মধ্যেই ডিভাইসের সঙ্গে ইয়ারবাডটি নিজে নিজেই কানেক্ট হয়ে যায়। দুটি বাডই একটি স্বাধীন চিপ ডিজাইনের সাথে এসেছে, ফলে সিঙ্গল বা ডবল ইয়ারফোন মোডে পরিবর্তন করা অনেক সহজ।

শক্তিশালী ব্যাস সাউন্ডের জন্য ইয়ারবাডে রয়েছে ১৪.২মিমি ডায়নামিক ব্যাস বুস্ট ড্রাইভার। এর সঙ্গে আবার আছে হাই ফিডেলিটি স্পিকার। এছাড়া ইয়ারবাডে ২০ হার্টজ থেকে ২০,০০০ হার্টজের ফ্রিকোয়েন্সি রেঞ্জ আছে যা লো, মিড এবং হাই ফ্রিকোয়েন্সি রেঞ্জে পরিষ্কার ভোকাল তৈরি করে। ওজনের দিক থেকে ইয়ারবাডটি একেবারে হালকা। প্রতিটির ওজন মাত্র ৪ গ্রাম। পাশাপাশি, এটি স্কিন ফ্রেন্ডলি। ইয়ারবাডটি একটি চৌকো শেপের মিনিয়েচার কেসের সাথে এসেছে। ফলে এটি খেলাধূলা, জগিং এবং জিমে ব্যবহারের জন্য আদর্শ।

আইরকার স্টিক্স ইয়ারবাডটিতে আছে একটি মাল্টিফাংশনাল বটন, যেটিকে একবার প্রেস করলে মিউজিক প্লে/পজ হয়, দু’বার চাপ দিয়ে পরবর্তী গানে যাওয়া যায় এবং তিন বার চাপে আবার আগের গানে ফিরে আসা যায়। অন্যদিকে, Google ও SIRI ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট সাপোর্ট থাকায় ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে স্মার্টফোনকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। ইয়ারবাডের বোতামগুলিকে ২ সেকেন্ডের জন্য ধরে থাকলেই ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট সক্রিয় হয়ে যাবে। এছাড়া বাডে একবার ক্লিক করলে ফোন রিসিভ হয়ে যাবে। চেপে ধরে থাকলে ফোন কেটে যাবে। আর কলে থাকালীন একবার ক্লিক করলেও ফোন কেটে দেওয়া যাবে।

ব্যাটারি লাইফের কথা বলতে গেলে, ইয়ারবাডটির কেসে আছে ৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি ও প্রতিটি বাডে আছে ৪০ এমএএইচ করে ব্যাটারি যা ১৬ ঘন্টা পর্যন্ত প্লেব্যাক টাইম অফার করে। চার্জিংয়ের জন্য আছে টাইপ সি কুইক চার্জ ফিচার যা কয়েক মিনিটের মধ্যে ব্যাটারিকে চার্জ করে দেয়। সম্পূর্ণ চার্জ হতে সময় লাগে দেড় ঘন্টা।

Bass Drops ওয়্যার্ড হেডফোনের ফিচারঃ

ব্যাস ড্রপস ওয়্যার্ড হেডফোনটি লাল, সবুজ ও কালো এই তিনটি রঙের ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে। হেডফোনটি ট্যাঙ্গল-ফ্রি কেবল এবং স্মুথ ভলিউম স্লাইডারের সাথে এসেছে। এর ১৪.৩ মিমি ব্যাস বুস্ট ড্রাইভারটি দ্বিগুণ পরিমাণ ব্যাস সাউন্ড উৎপন্ন করে।

ব্যাস ড্রপস ওয়্যার্ড হেডফোনটির ওয়ান বাটন কন্ট্রোল ফিচারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা একবার ক্লিক করে গান চালাতে বা থামাতে পারেন, দু’বার ক্লিক করে পরবর্তী গানে যেতে পারেন এবং তিনবার ক্লিক করে আগের গানে ফিরে আসতে পারেন। আবার যে কোনো একবার ক্লিক করলে কল ধরা যাবে বা কল চলাকালীন মিউট বা আনমিউট করা যাবে। Google এবং SIRI ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট সাপোর্ট থাকায় হেডফোনটিতে ভয়েস কন্ট্রোলের সুবিধা উপভোগ করা সম্ভব।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।