Sony আনলো নতুন ইয়ারবাড WF-1000XM4, পাবেন অসাধারণ অডিও কোয়ালিটি

sony-wf-1000xm4-tws-launched-with-anc-ldac-bluetooth-codec-support-price-specifications

অডিও প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে জাপানি কোম্পানি সনি (Sony) অন্যতম সেরা একটি ব্র্যান্ড। প্রসিদ্ধ এই সংস্থা এবার বিশ্বব্যাপী লঞ্চ করল তাঁদের এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে উন্নত মানের ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাড, WF-1000XM4। হাই কোয়ালিটির প্রিমিয়াম এই ইয়ারবাডটিকে কেবল অ্যাপল ইয়ারপডস (Apple AirPods) কিংবা স্যামসাং গ্যালাক্সি বাডস প্রো (Samsung Galaxy Buds Pro)-এর সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। ইয়ারবাডটিতে আছে হাই-রেজোলিউশন এলডিএসি ব্লুটুথ কোডেক (LDAC Bluetooth codec), অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যানসেলেশন (ANC) এবং কিউআই ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের (Qi wireless charging) মতো উল্লেখযোগ্য প্রিমিয়াম ফিচার। আসুন বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক Sony WF-1000XM4 ইয়ারবাডটির দাম, প্রাপ্যতা, স্পেসিফিকেশন এবং ফিচার সম্বন্ধে।

Sony WF-1000XM4 ইয়ারবাডটির দাম ও প্রাপ্যতা:

Sony WF-1000XM4 প্রিমিয়াম ইয়ারবাডটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭৯ আমেরিকান ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় ২০,৪০০ টাকা)। ইয়ারবাডটি ব্ল্যাক এবং সিলভার- এই দুটি রঙের ভ্যারিয়েন্টে এসেছে। খুব শীঘ্রই ইউরোপ, আমেরিকার মার্কেটে এটি পাওয়া যাবে। বলাই বাহুল্য, ইয়ারবাডটি অ্যাপল ইয়ারপডস (Apple AirPods), স্যামসাং গ্যালাক্সি বাডস প্রো (Samsung Galaxy Buds Pro) এবং জাবরা এলিট ৮৫টি (Jabra Elite 85t) -এর মতো প্রিমিয়াম ইয়ারবাডগুলিকে মার্কেটে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলবে।

তবে, ভারতীয় বাজারে এর দাম কত হতে পারে তা এখনও জানানো হয়নি। আশা করা যায় সনি (Sony) এই নতুন ইয়ারবাডটিকে ভারতে উপলব্ধ করবে। কারণ, এই ইয়ারবাডটির পূর্বসূরী WF-1000XM3 -কে ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে ভারতে লঞ্চ করা হয়েছিল, যার দাম ছিল ১৯,৯৯০ টাকা।

Sony WF-1000XM4 ইয়ারবাডটির স্পেসিফিকেশন এবং ফিচার:

অন্যান্য প্রিমিয়াম ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাডের মতোই Sony WF-1000XM4 ইয়ারবাডটিতে আছে অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যানসেলেশন ফিচার (ANC)। সনি দাবী করেছে যে, এই ফিচারটি XM3 প্রজন্মের চেয়েও ৪০ শতাংশ বেশী ভালো কাজ করে। এটিতে সনির নিজস্ব ভিওয়ান (V1) প্রসেসিং চিপ ব্যবহার করার কারণে নয়েস ক্যানসেলেশন, অডিও কোয়ালিটি এবং কানেক্টিভিটির ক্ষেত্রগুলি আরও উন্নততর হয়েছে। ডিজাইনের বিচারে এই ইয়ারবাডটি পূর্বসূরী WF-1000XM3 -এর তুলনায় বেশ ছোটো এবং একেবারে নতুন ডিজাইনটি ব্যবহারের দিক থেকে অনেক বেশী স্বচ্ছন্দ্য।

আলোচ্য ইয়ারফোনটির সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ফিচার হল, এলডিএসি ব্লুটুথ কোডেক (LDAC Bluetooth codec) সাপোর্ট। সাধারণত ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারফোনে এসবিসি (SBC), এএসি (AAC), কোয়ালকম অ্যাপ্টএক্স (Qualcomm aptX) ব্লুটুথ কোডেক দেখা যায়। সেখানে এই ফিচারটি এমন একটি হাই-রেজোলিউশন ব্লুটুথ কোডেক যা উপরোক্ত কোডেকগুলির তুলনায় অনেক এগিয়ে এবং ফলস্বরূপ ইয়ারবাডটি ব্লুটুথের মাধ্যমে প্রচুর বেশী ডেটা বহন করতে পারবে। এছাড়াও অডিও কোয়ালিটি হবে অসাধারণ এবং ইয়ারবাডে হাই-রেজোলিউশনের অডিও কন্টেন্টও অবলীলায় সাপোর্ট করবে। পাশাপাশি, ইয়ারবাডে ডিএসইইই এক্সট্রিম অডিও (DSEE Extreme audio) আপস্কেলিং ও ৩৬০ রিয়েলিটি অডিও (360 Reality Audio) সাপোর্ট করে।

WF-1000XM4 ইয়ারবাডটিতে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রিমিয়াম ফিচার আছে, সেটি হল কেস চার্জের জন্য কিউআই ওয়্যারলেস চার্জিং (Qi wireless charging)। ইয়ারবাডটি একবার চার্জে ২৪ ঘন্টা (৮ ঘন্টা ইয়ারফোনে, ১৬ ঘন্টা বাড়তি কেসে) সার্ভিস দেবে, নয়েস ক্যানসেলেশন মোড অন থাকলেও। ইয়ারবাডটি আইপিএক্স ৪ (IPX4) সার্টিফিকেশন প্রাপ্ত ফলে জল এবং ধুলো-ময়লা প্রতিরোধ করতে সক্ষম। এটিতে সনির হেডফোন কানেক্ট অ্যাপের সুবিধা থাকায় সহজেই স্মার্টফোনের ডিফল্ট ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট ও গুগল ফাস্ট পেয়ার (Google Fast Pair) প্রোটোকল অ্যাক্সেস করা যাবে। আগেও আমরা সনির ওভার-ইয়ার ওয়্যারলেস হেডফোনে স্পিক-টু-চ্যাট (Speak-to-chat) ফিচার লক্ষ্য করেছিলাম যা WF-1000XM4 ইয়ারবাডেও বিদ্যমান।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন