চাঁদে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ, স্বপ্নের সফরে পাড়ি দিতে এখনই নাম রেজিস্টার করুন

spacex-moon-flight-register

বিরস বদনে ‘চাঁদ কেন আসেনা আমার ঘরে’ গেয়ে হাহুতাশ করার দিন এবার শেষ। কেননা প্রতিবেশীর চোখ কপালে তুলে দিয়ে শিগগিরি আপনিও পা রাখতে পারেন চাঁদে! বিশ্বাস হচ্ছে না তো? না হবারই কথা। কিন্তু এই প্রতিবেদনে কোথাও একফোঁটাও জল মেশানো নেই। জাপানের শিল্পপতি য়ুসাকু মেজ়াওয়া (Yusaku Maezawa) চাঁদে যাওয়ার জন্য সত্যিই আট জন সহযাত্রী খুঁজছেন! মেজ়াওয়ার ডাকে সারা দিয়ে পৃথিবীর যে কোন প্রান্তের মানুষ এই চন্দ্রাভিযানে শামিল হতে পারেন। এই পুরো প্রকল্পটিকেই ‘dearMoon’ নামে ডাকা হচ্ছে। এই উদ্দেশ্যে আগামী ২০২৩ সালে একটি SpaceX স্টারশিপ রকেট মহাকাশে প্রেরণ করা হবে। এখানেও প্রধান উদ্যোগী হিসেবে আরেক বিলিওনেয়ার এলোন মাস্কের (Elon Musk) নাম উঠে আসে। প্রকৃতপক্ষে মূল চন্দ্রাভিযানের পরিকল্পনাটি তারই মস্তিষ্কপ্রসূত। এক্ষেত্রে মেজ়াওয়া অভিযানের সর্বপ্রথম যাত্রী হিসেবে আগেভাগেই নিজের নাম নথিভুক্ত করেছেন। বিগত ২০১৮ সালে অভিযানের জন্য তার মোটা অঙ্কের অর্থ প্রদান আপাতত ইতিহাস। ২০২৩ সালের কোন এক শুভক্ষণে এই ইতিহাসের সর্বোজ্জ্বল মুহূর্ত তিনি স্বয়ং চাঁদের মাটিতে হাজির থেকে উপভোগ করবেন।

spacex-moon-flight-register-your-name-to-win-seat-trip-dearmoon

উল্লেখ্য, মোট ১২ জন সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে SpaceX -এর ‘Mission Moon’ যাত্রার সূচনা হবে। এক্ষেত্রে ১২ টার মধ্যে ৮ টা সীট মেজ়াওয়া সারাদুনিয়ার মানুষের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। সুতরাং চাইলেই কয়েকটি সহজ পদ্ধতি অনুসরণের মাধ্যমে আপনি চন্দ্রাভিযানের জন্য নিজের নামটিও দাখিল করতে পারবেন। এজন্য –

১। সর্বপ্রথমে আপনাকে dearMoon ওয়েবসাইট ওপেন করতে হবে। এখানে অভিযান সম্পর্কিত সমস্ত তথ্যাবলি সংরক্ষিত রয়েছে।

২। এরপর ওয়েবসাইটের হোম পেজে উপলব্ধ রেজিস্ট্রেশন ফর্মটি পূরণ করতে হবে। এর মাধ্যমে আপনার নাম, দেশ, ই-মেইল আইডি, ছবি প্রভৃতি তথ্যগুলি ওয়েবসাইট গ্রহণ করবে। তাছাড়া কোন কোন সামাজিক মাধ্যমে আপনি মেজ়াওয়াকে অনুসরণ করেন, সেটিও উল্লেখ করতে হবে। প্রি-রেজিস্ট্রেশনের পর ওয়েবসাইটটি পরবর্তী বাছাই পর্বের জন্য আপনাকে ই-মেইল প্রেরণ করবে।

৩। সর্বোপরি অভিযানে যাত্রী হিসেবে নির্বাচিত হলে আপনাকে একটি শংসাপত্র প্রদান করা হবে যা আপনার প্রথম চন্দ্রাভিযানের সুপ্রমাণ!

dearMoon প্রোজেক্ট সম্পর্কে কিছু কথা

আগেই উল্লেখ করেছি যে নিজের এই প্রকল্পটিকে শিল্পপতি মেজ়াওয়া ‘dearMoon’ নামে ডাকতে আগ্রহী। নেহাতই চাঁদে ঘুরতে যাওয়া নয়, এই প্রকল্পের আরো কয়েকটি উদ্দেশ্য রয়েছে, যদিও সে সম্পর্কে এখনো বিশেষ কিছুই প্রকাশ করা হয়নি। তবে অসংখ্য আবেদনের মধ্যে অভিযানের যাত্রী হিসেবে যে যোগ্য প্রার্থীদেরকেই নির্বাচিত করা হবে, তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। উল্লেখ্য, একাধিক যাত্রী সহ চাঁদে পাড়ি দেওয়ার জন্য ২০১২ সাল থেকেই SpaceX স্টারশিপটিকে উপযুক্তভাবে গড়ে তোলা হচ্ছে। তাছাড়া আগামী দিনে মঙ্গল গ্রহেও এই ধরনের অভিযানের কথা তারা ভাবছেন বলে এলোন মাস্ক জানিয়ে দিয়েছেন।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন