ম্যাচ ফিক্সিংয়ে ফাঁসলেন দুই ভারতীয়, লেজেন্ড লিগে করা হয়েছিল ফিক্সিংয়ের চেষ্টা

Published on:

Indian National Accused for Match Fixing

লেজেন্ডস ক্রিকেট লিগ (Legends League Cricket) চলাকালীন ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগে শ্রীলঙ্কার যোনি প্যাটেল (Yoni Patel) ও পি আকাশের (P Akash) পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। দু’জনেই বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তারা ৮ থেকে ১৯ মার্চ ক্যান্ডির পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত লিগের ম্যাচগুলো ফিক্সিংয়ের চেষ্টা করেছিল। ফাইনালে রাজস্থান কিংস নিউ ইয়র্ক সুপার স্ট্রাইকার্সকে পরাজিত করে।

প্যাটেল ক্যান্ডি সোয়াম্প আর্মি দলের মালিক। শ্রীলঙ্কার সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক ও জাতীয় নির্বাচক কমিটির বর্তমান চেয়ারম্যান উপুল থারাঙ্গা (Upul Tharanga) এবং নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার নেইল ব্রুম শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিশেষ তদন্ত ইউনিটকে জানিয়েছেন, লিগে বাজে পারফরম্যান্সের কারণে তারা দুজনই ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা ছাড়তে পারবেন না প্যাটেল ও আকাশ। এই লিগটি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট থেকে আইসিসি কর্তৃক স্বীকৃত নয়।

শ্রীলঙ্কার সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক ও বর্তমান প্রধান নির্বাচক উপুল থারাঙ্গা এবং নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার নেইল ব্রুম ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিশেষ তদন্ত ইউনিটের কাছে অভিযোগ করেছিলেন যে লিগে খারাপ পারফরম্যান্স করে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের জন্য প্যাটেল ও আকাশ তাদের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নির্দেশে প্যাটেল ও আকাশকে দেশ ছাড়তে নিষেধ করা হয়েছিল।

দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে শ্রীলঙ্কা ২০১৯ সালে দুর্নীতি ও ম্যাচ ফিক্সিংয়ের বিরুদ্ধে আইন করে এবং এটিকে অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করে। এই আইনে যে কোনও খেলোয়াড় বা ব্যক্তি দোষী সাব্যস্ত হলে ১০ বছর পর্যন্ত জেল এবং জরিমানাও হতে পারে। এই আইনে দুর্নীতির অভিযোগ না করা খেলোয়াড়দের শাস্তিরও বিধান রয়েছে।

সঙ্গে থাকুন ➥