হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে লটারি জেতার টোপ, গ্রাহকদের সতর্ক করলো স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া

state-bank-of-india-warns-customers-of-lottery-scam-via-whatsapp-calls-or-sms

সময়ের সাথে আমরা যতো বেশি ইন্টারনেট পরিষেবার ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছি, ততই বাড়ছে অনলাইন জালিয়াতির ফন্দি-ফিকির। রোজই নতুন নতুন ফাঁদ পেতে সাধারণ মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা করছে দুরাভীসন্ধীরা। ঠিক এই কারণেই গ্রাহকদের বিশেষ সতর্কবার্তা দিচ্ছে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া (SBI)। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকটি একটি টুইট পোস্টে জানিয়েছে, কিছু সাইবার অপরাধী, SBI গ্রাহকদের টার্গেট করছে এবং তারা হোয়াটসঅ্যাপে প্রতারণার জাল বিস্তার করছে। কিভাবে? আসুন বিস্তারিত জেনে নিই।

আমরা হামেশাই শুনে থাকি – ভুয়ো ফোন কল, এসএমএস বা URL-এর মাধ্যমে লটারি বা ফ্রি উপহারের প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে নিজেদের ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করে জালিয়াতিরা। ঠিক এমন কিছুই এখন ঘটছে স্টেট ব্যাংকের গ্রাহকদের সাথে। জালিয়াতিরা কোনো ভাবে গ্রাহকদের রেজিস্ট্রার্ড ফোন নম্বর বা হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর জোগাড় করছে। এরপর, তারা হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকদের ফোন বা মেসেজ করে লটারি বা কিছু পুরষ্কারের দরুন টাকা জেতার কথা জানিয়ে তাদের প্ররোচিত করার চেষ্টা করছে।

জালিয়াতরা, গ্রাহকদের স্টেট ব্যাংকের একটি নম্বরে ফোন করতে বলছে (যা সম্পূর্ণ ভুয়ো)। এই নম্বরগুলিতে কল করা প্রলুব্ধ গ্রাহকদের, নিজেদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং এই জাতীয় অন্যান্য গোপনীয় তথ্য শেয়ার করতে বলা হচ্ছে। জালিয়াতরা জানাচ্ছে, পুরষ্কারের টাকা প্রাপ্তির জন্য এই তথ্যগুলি জানানো বাধ্যতামূলক। আসলে, এই জালিয়াতরা, গ্রাহকদের ভুলের জন্য অপেক্ষা করে। টাকা জেতার চক্করে গ্রাহক যদি সামান্যতম ভুল করেন, তাহলে মুহূর্তের মধ্যে খোয়া যাবে ব্যাংকে সঞ্চিত সমস্ত অর্থ।

স্টেট ব্যাংক স্পষ্ট করে জানিয়েছে, তারা কোনো লটারি বা লাকি ড্র স্কিম পরিচালনা করছেনা বা ব্যাংক থেকে কোনো উপহারের অফারও দেওয়া হচ্ছে না। এছাড়া, এসবিআই বা সংস্থার কোনো কর্মকর্তা, কখনওই গ্রাহকদের থেকে ব্যাংক অ্যাকাউন্টের বিবরণ বা ব্যক্তিগত তথ্য জিজ্ঞাসা করেনা।

শুধু তাই নয়, দেশের বৃহত্তম পাবলিক সেক্টর সতর্ক করে দিয়েছে, গ্রাহকরা যেন কোনো অজানা নম্বরের হোয়াটসঅ্যাপ কল বা মেসেজের জবাব না দেন। কারণ এসবিআই, তার গ্রাহকদের এই ধরণের কোনো ইমেল, এসএমএস, ফোন কল, বা হোয়াটসঅ্যাপ কল করেনা।