আপনি কবে সেক্স করেছেন জানে ফেসবুক : গবেষণা

  

আপনি শেষবার কবে সেক্স করেছিলেন সেটা অবধি জানে আপনার ফেসবুক। শুধু তাই নয় মহিলাদের পিরিয়ডসের ইনফর্মেশন, এবং তারা কি ধরনের গর্ভনিরোধক ট্যাবলেট ব্যবহার করেন এই তথ্যও ফেসবুকের কাছে রয়েছে। এমনই দাবি করা হয়েছে প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনালের একটি রিপোর্টে। সেখানে বলা হয়েছে মহিলাদের দ্বারা ব্যবহার করা পিরিয়ড ট্র্যাকার অ্যাপগুলি তাদের স্বাস্থ্যের সমস্ত তথ্য জমা করে রাখে সঙ্গে সঙ্গে সেগুলিকে বিভিন্ন থার্ড পার্টি অ্যাপের সঙ্গে শেয়ারও করে। এই থার্ড পার্টি অ্যাপগুলির মধ্যেই একটি অ্যাপ হলো দুনিয়ার সবথেকে বেশি ব্যবহৃত সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক।

রিসার্চে ধরা পড়েছে মহিলাদের পিরিয়ড ট্রাকিং অ্যাপগুলির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল Maya ও MIA অ্যাপ। এই দুটি অ্যাপ ফেসবুক সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট কিটের মাধ্যমে বিভিন্ন থার্ড পার্টি অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের সঙ্গে তাদের ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করে। মায়া অ্যাপটিকে গুগল প্লে স্টোর থেকে ৫০ লাখেরও বেশি বার এবং মিয়া অ্যাপটিকে গুগল প্লে স্টোর থেকে ২০ লাখেরও বেশি বার ডাউনলোড করা হয়েছে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে এই দুটি অ্যাপ ফেসবুক সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে তাদের বিভিন্ন ফিচারগুলিকে উন্নত করে তাদের ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে সেগুলো ফেসবুকের সাথে শেয়ার করত, যাতে সেই ব্যবহারকারীকে টার্গেট করে বিভিন্ন অ্যাড দেখানো যায়। শুধু তাই নয় এই অ্যাপ দুটিতে ব্যবহারকারীরা নিজেদের ব্যক্তিগত তথ্য দিতেন এবং তাদের তথ্যগুলোকে সংগ্রহ করে অন্যান্য অনেক ওয়েবসাইটে পাঠিয়ে দেওয়া হতো।

বাজফিডের রিপোর্ট অনুযায়ী মায়া অ্যাপটি ব্যবহারকারী প্রাইভেসি পলিসিতে সম্মতি জানানোর আগেই তাদের তথ্য ফেসবুকের সাথে শেয়ার করে দিত। কিছু এমন ফিচার এনেছিল যেগুলি সে ব্যবহারকারীর মনের অবস্থা ট্র্যাক করে নিত এবং সেই হিসেবে ওই ব্যবহারকারীর ফেসবুকে অ্যাড প্রদর্শন করা হতো। এইভাবে বিজ্ঞাপন দেখানোর ফলে কোম্পানিগুলির অনেক মুনাফাও বৃদ্ধি পেত কারণ গর্ভবতী মহিলাদের কেনাকাটার মধ্যে হঠাৎ করে অনেকটা পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা থাকে।

পিরিয়ড এবং প্রেগনেন্সি ট্রাকিং অ‍্যাপগুলির উপর এরকম অভিযোগ আসার পরে বেশ কয়েকজন মহিলা এই অ্যাপগুলিকে ব্যবহার করাও বন্ধ করে দিয়েছেন কারণ তাদের ধারণা এই অ্যাপগুলি তাদের ব্যক্তিগত তথ্য তাদের কর্মচারী এবং বীমা কোম্পানির সাথেও শেয়ার করে। তাই কয়েকজন মহিলা এখন এই অ্যাপগুলিকে ব্যবহার করলেও তাতে নিজের সঠিক তথ্যের বদলে ভুল তথ্য দিয়ে ব্যবহার করছেন।

এ ব্যাপারে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে তারা প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনালের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে যোগাযোগ করবেন। এছাড়াও তারা সেই অ্যাপগুলিকে খোঁজার চেষ্টাও চালাচ্ছে যারা সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট কিটের মাধ্যমে তথ্য শেয়ার করছে।

ফেসবুকের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন তাদের কাছে এমন কিছু সিস্টেম রয়েছে যার মাধ্যমে তারা ওই তথ্যগুলিকে খুঁজে বের করে সেগুলিকে ডিলিট করে দেবে। এবং পরবর্তীকালে যাতে এরকম ঘটনা আর না ঘটে সেদিকেও ফেসবুক কড়া নজর রাখবে।

Amazon প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

পড়ুন : ফোন গরম হলেই পাবেন অ্যালার্ট, অ্যান্ড্রয়েড ১০ এর আকর্ষণীয় ফিচারগুলো জানুন

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন