এবার সুপ্রিম কোর্টের প্রশ্নের মুখে WhatsApp, জবাব না মিললে ফল হতে পারে ভয়ানক

supreme-court-asks-whatsapp-whether-upi-data-share-with-facebook-third-parties

প্রাইভেসি পলিসি আপডেট সংক্রান্ত বিতর্ক সবে থেমেছে, এরই মধ্যে ভারতে আইনি সওয়াল জবাবের জড়িয়ে পড়ল হোয়াটসঅ্যাপ (WhatsApp) এবং তার মালিক সংস্থা ফেসবুক (Facebook)। আসলে সাম্প্রতিক সময়ে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপটি, সমস্ত ইউজারের জন্য ইউপিআই পেমেন্ট ফিচার চালু করার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে। সেক্ষেত্রে WhatsApp, ইউপিআই পেমেন্ট অপশন ব্যবহারের জন্য ইউজারদের সংগৃহীত ডেটা তার মালিক সংস্থা Facebook বা অন্য কোনো কোম্পানীর সাথে শেয়ার করে কিনা – তা স্পষ্টরূপে জানতে চেয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রীম কোর্ট।

সংবাদ সংস্থা PTI জানিয়েছে, সুপ্রীম কোর্টের এই প্রশ্নের পেছনে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক RBI (রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া) এবং NPCI (ন্যাশনাল পেমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া)-র বড় একটি ভূমিকা রয়েছে। আসলে গুগল বা হোয়াটসঅ্যাপের মতো বেসরকারী সংস্থাগুলি অনলাইন পেমেন্ট ফিচার উপলব্ধ করার সময় ন্যাশনাল পেমেন্ট কর্পোরেশন নির্ধারিত নিয়ম মেনে চলে কিনা তা খতিয়ে দেখতেই সুপ্রীম কোর্টে একটি পিটিশন দায়ের করা হয়। প্রায় কয়েক মাস ধরেই এই আবেদনটি বিচারাধীন অবস্থায় রয়েছে। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ বা ফেসবুক এখনও এই পিটিশনের জন্য কাউন্টার এফিডেভিট (হলফনামা) দাখিল করেনি বা কোনোরকম প্রতিক্রিয়া জানায়নি। ফলে, এই মামলার কোনো শুনানি করতে পারেনি কোর্ট।

এই বিষয়ে আজ প্রধান বিচারপতি এস এ ববদে, বিচারপতি এ এস বোপান্না এবং ভি রামসুব্রাহ্মণিয়ামের একটি বেঞ্চ জানিয়েছে, যদি হোয়াটসঅ্যাপ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সমস্ত প্রশ্নের জবাব না দেয়, তবে রাজ্যসভার সাংসদ বিনয় বিশ্বমের দায়ের করা আবেদনে উল্লিখিত অভিযোগ গ্রহণযোগ্য হিসাবে নেওয়া হবে এবং হোয়াটসঅ্যাপের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, প্রায় দু-বছর ধরে WhatsApp Pay নামক ইউপিআই পেমেন্ট ফিচার নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে হোয়াটসঅ্যাপ। এরপর গত নভেম্বরে এনপিসিআই-এর থেকে দেশব্যাপী সমস্ত ইউজারের জন্য এই ফিচারটি চালু করার অনুমতি পায় মেসেজিং মাধ্যমটি। সেক্ষেত্রে ‘হোয়াটসঅ্যাপ পে’ ফিচারটি প্রয়োজনীয় সমস্ত অনুমোদন পেয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট কপিল সিবাল।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন