লকডাউনের পর BS4 গাড়ি বিক্রির আদেশ প্রত্যাহার করে নিল সুপ্রিম কোর্ট

করোনা পরিস্থিতিতে এখন গাড়ির প্রয়োজন সবার। সে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স মানার ক্ষেত্রে হোক অথবা নিজের কর্মক্ষেত্রের যাওয়ার জন্য। কিন্তু সেই গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে নতুন করে আদেশ নামা জারি করলো ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। পাশাপাশি ২৭ মার্চ দেওয়া নির্দেশিকাও প্রত্যাহার করে নিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এই নির্দেশিকায় শীর্ষ আদালত জানিয়েছিল লকডাউনের কারণে বিক্রি না হওয়া ১০ শতাংশ বিএস৪ গাড়ি, ডিলাররা বিক্রি করতে পারবেন।

এই বিক্রি লকডাউন শেষ হবার ১০ দিনের মধ্যে করতে হবে। পাশাপাশি বিক্রি হওয়া গাড়ি গুলিকে ১০ দিনের মধ্যেই Vahan পোর্টালে রেজিস্টার করতে হবে। তবে এদিন সুপ্রিম কোর্ট বিএস৪ সিরিজের গাড়ি বিক্রির ক্ষেত্রে তার পুরনো আদেশকে বদলে জানিয়েছে, লকডাউন শেষ হবার পরে ১০ দিন পর্যন্ত বিক্রি হওয়া গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নতুন করে আর হবে না। শুধুমাত্র সেই গাড়িগুলির রেজিস্ট্রেশন হবে যেগুলিকে বাহন পোর্টালের মাধ্যমে রেজিস্টার করা হয়েছে।

গত অক্টোবর, ২০১৮ তে সুপ্রিম কোর্ট আদেশ জারি করেছিল যে, ২০২০- র পয়লা এপ্রিল থেকে ভারতে বিএস -৪ মান প্রাপ্ত গাড়ির বিক্রি এবং রেজিস্ট্রেশন করা হবে না। অর্থাৎ বিএস৪ গাড়ি গুলি ডিলাররা ৩১ মার্চ, ২০২০ পর্যন্ত বিক্রি করতে পারবেন। তবে ২৫ মার্চ ভারত জুড়ে লকডাউন জারি হওয়ায় ডিলাররা গাড়ি বিক্রি করতে পারেনি। ফলে ২৭ মার্চ আদালত আদেশ দেয় লোকডাউন শেষ হওয়ার পর অতিরিক্ত ১০ দিন সময় দেওয়া হবে গাড়িগুলিকে বিক্রি করার জন্য।

কিন্তু লকডাউন শুরু হবার পরে, ভারতে বিএস ৪ মান প্রাপ্ত গাড়িগুলির বিক্রি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। এমনকি অনলাইনেও এই গাড়ি বিক্রি শুরু হয়ে যায়। সুপ্রিম কোর্টের আদেশ ছিল যে, যদি এরকম কোন গাড়ি ৩১ মার্চের আগে কেনা হয় তাহলে তার রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে। কিন্তু ৩১ মার্চ এরপরেও বহু গাড়ি বিক্রি হয়েছে। ভারত সরকারের ই-বাহন পোর্টালে ১৭০০০ গাড়ির বিবরণ এখনো আপলোড করা হয়নি। তাই সুপ্রিম কোর্ট আদেশ দিয়েছে যে, যদি কোন গাড়ির বিবরণ সরকারি পোর্টালে ৩১ মার্চের আগে আপলোড করা হয় তাহলে তার রেজিস্ট্রেশন করা হবে। এবং যদি সেই গাড়ির বিবরণ আপলোড ৩১ মার্চের পরে হয় তাহলে তা এখন রেজিস্টার করা হবে না।

সুপ্রিম কোর্টে তরফে জানানো হয়েছে যে, তারা ১.০৫ লক্ষ বিএস ৪ মান প্রাপ্ত গাড়ি বিক্রির অনুমতি দিয়েছিল। পরিবর্তে, অটোমোবাইল ডিলাররা বিক্রি করেছেন ২.৫৫ লক্ষ গাড়ি। ভারত বর্তমানে দুনিয়ার সবথেকে স্বচ্ছ ইঞ্জিন ব্যবহার করার পরিকল্পনা নিয়েছে। ভারতে বর্তমানে ইউরো ৪ এর পরিবর্তে ইউরো ৬ মানক ব্যবহার করা হচ্ছে। এছাড়াও এপ্রিল মাস থেকে ভারতে বিএস ৬ মানক প্রাপ্ত গাড়ি বিক্রি শুরু হবে। এই কারণেই সুপ্রিম কোর্টের আদেশ অনুযায়ী ভারতে এপ্রিল মাসের আগে বিএস ৪ মানক প্রাপ্ত গাড়ির বিক্রি বন্ধ করার আদেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অটোমোবাইল ডিলাররা সেই আদেশের লঙ্ঘন করায়, ৩১ মার্চের পরে বিক্রি হওয়া বিএস ৪ মানক প্রাপ্ত গাড়ির রেজিস্ট্রেশন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শীর্ষ আদালত।