Suzuki Avenis 125: তরুণ প্রজন্মের মনের মতো স্পোর্টি এবং ডাইনামিক স্কুটার লঞ্চ করল সুজুকি

Suzuki Avenis স্কুটারের রেগুলির কালার ভ্যারিয়েন্টগুলির দাম রাখা হয়েছে ৮৬,৭০০ টাকা (এক্স-শোরুম)

suzuki-avenis-scooter-race-edition-launched-in-india-price-rs-86700-feature

‘মিলেনিয়াল’ বা তরুণ প্রজন্মের কেমন স্কুটার পছন্দ? অবশ্যই যে স্কুটারে ডাইনামিক ও ভাইব্র্যান্ট ডিজাইন থাকবে, ফিচারের তালিকা হবে লম্বা, এবং সর্বোপরি পারফরম্যান্স যেন সন্তুষ্টি আনে৷ TVS Ntorq এবং Yamaha RayZR তরুণ রাইডারদের সেই চাহিদা অনেকাংশে পূরণ করলেও, আরও স্পোর্টি এবং উন্নত ফিচারসমৃদ্ধ নতুন স্কুটারের খোঁজে ছিলেন অনেকেই। তাঁদের সেই খেদ মেটাতে আজ আত্মপ্রকাশ করল Suzuki Avenis, যা Access ও Burgman-এর পর ভারতে সুজুকির ১২৫ সিসির তৃতীয় স্কুটার।

Suzuki Avenis-এর ডিজাইন কেমন, দামই বা কত, খাতায় কলমে স্পেসিফিকেশন বা ফিচারের দিক থেকে কতটা প্রত্যাশা পূরণ করতে পারল – সেই বিষয়গুলি এবার দেখে নেওয়া যাক।

সুজুকি অ্যাভিনিস দাম (Suzuki Avenis Price)

সুজুকি অ্যাভিনিস চারটি সাধারণ কালার ভ্যারিয়েন্ট এবং একটি স্পেশ্যাল এডিশন মডেলের সাথে এসেছে। রেগুলির কালার ভ্যারিয়েন্টগুলির দাম রাখা হয়েছে ৮৬,৭০০ টাকা (এক্স-শোরুম)৷ স্কুটারটি বেছে নেওয়া যাবে ব্ল্যাক, হোয়াইট, অরেঞ্জ, এবং ফ্লুরোসেন্ট গ্রিন পেইন্ট স্কিমের মধ্যে।

অন্য দিকে,Suzuki Avenis-এর স্পেশ্যাল রেস এডিশন (Race Edition) ভ্যারিয়েন্ট মেটালিক ট্রাইটান ব্লু কালারে এসেছে, যা মোটোজিপি থেকে অনুপ্রাণিত। এতে বাড়তি হিসেবে রেসিং গ্রাফিক্স দেওয়া হয়েছে। এই মডেলটির দাম ৮৭,০০০ টাকা ধার্য করা হয়েছে (এক্স-শোরুম)।

সুজুকি অ্যাভিনিস ডিজাইন (Suzuki Avenis Design)

সুজুকির বেস্ট সেলিং স্কুটার অ্যাক্সেস-এর চেয়ে আরও স্পোর্টি ডিজাইন রয়েছে নতুন অ্যাভেনিস মডেলে। সুজুকির দাবি, মোটরসাইকেল থেকে অনুপ্রেরণা নিয়েই তারা অ্যাভিনিস-এর স্টাইলিং এলিমেন্টগুলি নির্ধারণ করেছে।

Suzuki Avenis স্কুটারে রয়েছে ভার্টিকাল এলইডি ডিআরএল দিয়ে সজ্জ্বিত টুইন এলইডি হেডলাইট, চমৎকার বডি গ্রাফিক্স, সাইড বডি প্যানেলে অ্যাভেনিস ব্যাজিং, স্লিক ফ্রন্ট অ্যাপরন, শর্ট ভাইজার, স্প্লিট গ্রাব রেল, চওড়া সিঙ্গেল-পিস সিট, টুইন ট্রায়াঙ্গুলার এলইডি টেলল্যাম্প এবং বাইকের মতো রিয়ার ইন্ডিকেটর।

উল্লেখ্য, নতুন লঞ্চ হওয়া Aprilia SR 125 ও 160 -এর মতো Suzuki Avenis-এর টার্ন ইন্ডিকেটরগুলি হ্যান্ডেলবার কাউলের উপর রাখা হয়েছে। সাইড প্যানেলগুলিতে কাট ও ক্রিজ একটু বেশিই। যদিও এর জন্য স্কুটারের স্টাইলে একটা ধারালো ভাব এসেছে। আবার ডুয়েল টোন পেইন্ট স্কিম স্কুটারকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলেছে।

সুজুকি অ্যাভিনিস ইঞ্জিন (Suzuki Avenis Engine)

সুজুকি অ্যাভিনিস স্কুটারে রয়েছে ১২৫ সিসি-র সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন। যার আউটপুট ৬,৭৫০ আরপিএমে ৮.৫ বিএইচপি ও ৫,৫০০ আরপিএমে ১০ এনএম। সিভিটি ট্র্যান্সমিশনের মাধ্যনে পিছনের চাকায় শক্তি সরবাহিত হবে।

সুজুকি অ্যাভিনিস হার্ডওয়্যার (Suzuki Avenis Hardware)

টেলিস্কোপিক ফ্রন্ট ফোর্ক, সিঙ্গেল রিয়ার শক অ্যাবজর্ভার, ১২ ইঞ্চি (সামনে) ও ১০ ইঞ্চি (পিছনে) ফাইভ-স্পোক ব্ল্যাক অ্যালয় হুইল, টিউবলেস টায়ার, ডিস্ক ব্রেক (ফ্রন্ট) সহযোগে এসেছে সুজুকি অ্যাভিনিস। স্কুটারের ওজন (কার্ব) ১০৬ কেজি।

সুজুকি অ্যাভিনিস ফিচার্স (Suzuki Avenis Features)

সুজুকি অ্যাভিনিস-এ ডিজিটাল ইনস্ট্রুমেন্ট কনসোল দেওয়া হয়েছে। এটি ব্লুটুথ কানেক্টিভিটি সাপোর্ট করবে৷ অর্থাৎ স্কুটার কানেক্ট করা ‌যাবে আপনার স্মার্টফোনের সঙ্গেই। তার জন্য গুগল প্লে বা অ্যাপ স্টোর থেকে ফোনে ইনস্টল করতে হবে সুজুকি রাইড কানেক্ট (Suzuki Ride Connect) অ্যাপ্লিকেশন। তারপরেই আসল মজা৷ ফোন কানেক্ট হয়ে গেলেই ক্লাস্টারে ফুটে উঠবে ব্যাটারি স্টেটাস ও সিগনাল স্ট্রেংথের তথ্য, জানতে পারবেন কে কল করেছে আপনাকে, কী টেক্সট মেসেজ এল আপনার নম্বরে, হোয়াটসঅ্যাপেই বা কী মেসেজ ঢুকল, প্রভৃতি।

Suzuki Avenis-এর অন্যান্য স্মার্ট ফিচারগুলির মধ্যে রয়েছে স্পিড এলার্ট (নির্দিষ্ট গতির চেয়ে জোরে চালালে সাবধান করবে), ইটিএ আপডেট, টার্ন-বাই-টার্ন নেভিগেশন, শর্ট ডিসট্যান্স ইন্ডিকেটর।

এছাড়াও এই সেগমেন্টের অন্যান্য স্কুটারের মতো সুজুকি অ্যাভিনিস-এ দেওয়া হয়েছে সাইড স্ট্যান্ড ইন্টারলক, ইঞ্জিন কিল সুইচ, ডুয়াল লাগেজ হুকস, ফোন চার্জ দেওয়ার জন্য ইউএসবি চার্জিং পোর্ট, স্টোরেজের জন্য ফ্রন্ট র‌্যাক।

টেকগাপে শুভ্রর প্রথম প্রযুক্তি বিষয়ক লেখায় হাতেখরি৷ স্নাতক স্তরের পড়াশোনার পাশাপাশি এখানেই চলতে থাকে শুভ্রর লেখালেখি৷ কলেজের অধ্যায় শেষ হওয়ার পর শুভ্র এখন টেকগাপের কনটেন্ট টিমের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷