Suzuki Hayabusa গতির ঝড় তুলতে ২৬ এপ্রিল ভারতে লঞ্চ হচ্ছে

suzuki-hayabusa-india-launch-date-announced-on-26-aparil

অনেকে একে “ধুম” বাইক বলেন ডাকেন। আবার অনেকে বলেন “দানব”৷ ২০০৪ সালে ‘ধুম’ ছবিটি মুক্ত পাওয়ার পর এর নাম সবার মুখে মুখে ঘুরতো। প্রথম উপমাটি এই কারণে। আর দ্বিতীয় উপমাটি বিলক্ষণ তার চেহারার সঙ্গে জুতসই৷ কার কথা বলছি? Suzuki-র আইকনিক স্পোর্টসবাইক Hayabusa-র প্রসঙ্গেই এখানে আলোচনা হচ্ছে। ৬ই ফেব্রুয়ারি Suzuki Hayabusa-র  2021ভার্সনের গ্লোবাল লঞ্চ হয়েছিল। তার এক সপ্তাহ পরেই ভারতে কয়েকজন ডিলার বাইকটির আনঅফিসিয়াল বুকিং নেওয়া চালু করে দেয়। আবার সুজুকি ঘনঘন টিজার আপলোড করে বুসার (হায়াবুসার সংক্ষিপ্ত নাম) ভারতে লঞ্চের ইঙ্গিত দিতে থাকে। কিছু দিন আগে সুজুকি মোটরসাইকেল ইন্ডিয়ার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে জানানো হয়, এই মাসেই তারা হায়াবুসা সুপারবাইকের বিএস-৬ ভার্সন ভারতে লঞ্চ করছে। আর আজ সুজুকি, বুসাপ্রেমীদের যাবতীয় প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলের মাধ্যমে ভারতে সুপারবাইকটির লঞ্চের তারিখ ঘোষণা করে দিল।

বিশ্ববাজারে সুপারবাইক সেগমেন্টের রাজা সুজুকি হায়াবুসা আগামী ২৬ এপ্রিল ভারতে পা রাখছে। বাইকটির লঞ্চ স্মরণীয় করে রাখার জন্য সুজুকি ধুমধাম করে “Busa Day” আয়োজনের কথা বিবেচনা করছিল বলে সূত্রের খবর। তবে দেশে প্রতিদিন করোনাভাইরাসে সংক্রামিতদের সংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, তা বিচার করে সুজুকি এরকম ইভেন্টের পরিকল্পনা খুব সম্ভবত বাতিল করার রাস্তায় হাঁটবে বলে অনুমান করা যায়।

বছরের পর বছর হায়াবুসা ভারতে তুমুল জনপ্রিয়তা উপভোগ করেছে। ছোট্ট একটি পরিসংখ্যা দিলেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে। গত বছর এদেশে বিএস-৬ বিধি কার্যকর হওয়ার আগেই মার্চের মধ্যে হায়াবুসার সমস্ত বিএস-৪ মডেল বিক্রি হয়ে গিয়েছিল। ফলস্বরূপ, হায়াবুসার আপডেট হওয়া মডেলটির আগের মতোই যে এদেশে চাহিদা তৈরি করবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ২০২১ সুজুকি হায়াবুসার অন্যতম হাইলাইট হল আপডেটেড ইলেকট্রনিক্স প্যাকেজ৷ পুরোনো মডেলের মতো নতুন ভার্সনেও ১,৩৪০ সিসি-র ইনলাইন ফোর-সিলিন্ডার ইঞ্জিন দেখা যাবে। যা সর্বোচ্চ ১৯০ পিএস পাওয়ার ও ১৫০ এনএম টর্ক জেনারেট করতে পারে৷ উল্লেখ্য, বিশ্বের প্রথম প্রোডাকশন বাইক হিসেবে হায়াবুসা ৩০০ কিমি/ঘন্টা গতি ছোঁয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছিল।

Hayabusa-র নতুন ভার্সনের দাম পুরোনো মডেলের তুলনায় Suzuki কিছুটা বাড়াবে বলেই ধরে নেওয়া যায়। সেক্ষেত্রে, এর এক্স-শোরুম দাম ১৬-১৮ লক্ষ টাকার মধ্যে হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাহলে এখন প্রশ্ন হল, এই সুপারবাইক ভারতে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে কাকে পাবে? Kawasaki ZX-14R স্পোর্টসবাইকটির BS-6 ভার্সন এখনও লঞ্চ হয়নি। তাই নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে BMW S 1000 RR ও Kawasaki Z H2-কে ধরে নেওয়া যায়।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন