5G আসলেও বাড়বেনা স্পিড, জেনে নিন আসল কারণ

  

এরিকসন ইন্ডিয়া ও এরিকসন নেটওয়ার্ক সলিউশনের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া ও ইন্ডিয়ার মুখপাত্র নিতিন বানসল একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘ভারতে 5G পরিষেবা চালু করা খুবই সহজসাধ্য, কিন্তু আমরা যেহেতু বেশি দ্রুত ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করছি তাই 100Mhz ব্যান্ডউইডথ ছাড়া নেটওয়ার্ক স্পিড কোন ভাবেই 4G এর থেকে বেশি দ্রুত হবে না এবং সেক্ষেত্রে 5G পরিষেবা চালু করার জন্য সব উদ্যোগই বৃথা হবে।’ অপারেটররা যেসব এলাকাতে আধুনিক রেডিও ব্যবস্থা ব্যবহার করছে তারা চাইলেই 5G পরিষেবা চালু করে দিতে পারে, সেক্ষত্রে ইউজাররা স্পিড একই পেলেও কম ল্যাটেন্সির সুবিধা পাবে।

বর্তমানে এরিকসন 23টি নেটওয়ার্ক কোম্পানির সাথে কাজ করছে 5G পরিষেবা চালু করার জন্য। বনসল জানিয়েছেন , 4G পরিষেবা যখন প্রথম এসেছিল ইউজাররা তখন 3G নেটওয়ার্ক ব্যাকআপ হিসাবে ব্যবহার করত,কারন তখন সব জায়গায় 4G নেটওয়ার্ক এর সুবিধা ছিল না। তাই যেসব অপারেটররা 2015 সালের পরের এরিকসনের রেডিও সিস্টেম ব্যবহার করছে তাদের জন্য 5G পরিষেবা চালু করতে হলে শুধু একটা সফটওয়্যার আপডেট করলেই হয়ে যাবে,কিন্তু যেসব এলাকায় 4G পরিষেবা রয়েছে,সেখানেই 5g চালু করা হচ্ছে।তাই এই নতুন যন্ত্রাংশ গুলি সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ এলাকা গুলিতেই ব্যবহার করা হয়েছে।

আমাজনে প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

এরিকসনের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী ভারতে প্রতি স্মার্টফোন পিছু মাসিক ডেটার ব্যবহার 9.8 জিবি, যা 2024 সালে 1.1 বিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার হওয়ার সাথে সাথে দ্বিগুন হয়ে যাবে। কিন্তু 5G পরিষেবা চালু হওয়ার জন্য এত গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে তা নয়, পরিসংখ্যান বলছে 2024 সালের মধ্যে এলটিই পরিষেবা প্রায় 82% গ্রাহক ব্যবহার করলেও তার মধ্যে মাত্র 6% 5G পরিষেবা ব্যবহার করবে।

ভারতের স্মার্টফোন ইউজাররা প্রিমিয়াম 5G পরিষেবা যেমন 5G টিভি, ভিআর ক্লাউড গেমিং, ভারচুয়াল ট্যাকটাইল শপিং এর জন্য 66% বেশি মূল্য দিতেও আগ্রহী, এমনটাই জানাচ্ছেন এরিকসনের রিপোর্ট। কিন্তু তার জন্য গ্রাহকেরা এমন স্মার্টফোন আশা করছে যার মধ্যে ব্যাটারির ক্ষমতা ও ইন্টারনাল স্টোরেজ 5G ব্যবহারের উপযুক্ত হয়। যদিও ওয়ানপ্লাস ও স্যামসাং এর মতো কোম্পানি এখনই তাদের 5G স্মার্টফোনের বিক্রি শুরু করে দিয়েছে, আশা করা যাচ্ছে 2025 সালের মধ্যে মাসিক ডেটার ব্যবহার 145 জিবিতে পৌছে যাবে।

বানসল আশা করছেন ভবিষ্যতে 5G এর ব্যবহারের ফলে অপারেটর গুলির আয়ের ক্ষেত্রে নতুন রাস্তা তৈরি হবে।একদিকে যেমন স্মার্টফোনে 5G ব্যবহারের ফলে গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি , নেট ব্যবহারের পরিমান বাড়ার ফলে আয়ের পরিমান ও বাড়বে।অন্যদিকে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান গুলি 5G পরিষেবা ব্যবহার করার ফলে 2027 সালের মধ্যে 27 বিলিয়নের অতিরিক্তি আয়ের সম্ভাবনা রয়েছে,যার মধ্যে 13 বিলিয়ন অপারেটরদের আয় হতে পারে।

পড়ুন : অপেক্ষা শেষ 5G ফোনের, 26 জুলাই লঞ্চ হবে Huawei Mate 20X 5G

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

টেক ভিডিও দেখার জন্য আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন – এখানে ক্লিক করুন

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন