একের পর এক আত্মহত্যা, অনলাইন বেটিং গেম ব্যান করতে চলছে বেশ কয়েকটি রাজ্য

বর্তমানে অনেক অনলাইন বেটিং গেম অ্যাপে টাকাপয়সা জেতার সুযোগ পাওয়া যায়। তবে এগুলির কোনোটাই প্রায় বিনামূল্যে আপনাকে এই সুযোগ দেয় না। গেম খেলার জন্য অবশ্যই আগে টাকা জমা করতে হয়। অর্থাৎ সাদা বাংলায় যাকে বলে জুয়া খেলা। ভারতে এই ধরনের বেশ কিছু অ্যাপ চরম জনপ্রিয়তাও অর্জন করেছে। কিন্তু এই অ্যাপগুলির খারাপ দিকটাও ধীরে ধীরে মানুষের চোখে পড়ছে। এই ধরনের গেমিং অ্যাপের মাধ্যমে বেটিং করে টাকা হারিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে অনেকে। সেজন্য এবার তামিলনাড়ু সরকার তাদের রাজ্যে অনলাইন বেটিং গেম ব্যান করার জন্য একটি বিল পাস করেছে। এমনকি কর্ণাটক সরকারও একই পদক্ষেপ নিতে চলেছে।

কেন এই বিল?

কিছু দিন আগেই তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটুর এলাকায় তিন জন ব্যক্তি অনলাইন গেমিং প্ল্যাটফর্মে বিপুল পরিমাণ অর্থ হারিয়ে আত্মহত্যা করেছিল। এছাড়াও মাদ্রাস হাইকোর্টে অনলাইন গেমিং-এর বিরুদ্ধে একটি জনস্বার্থ মামলা চলছে। এমতাবস্থায়, তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী কে. পালানিস্বামী অনলাইন গেমিং প্ল্যাটফর্মের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। তারপরেই শুক্রবার রাজ্যপাল বনোয়ারিলাল পুরোহিত এই বিলটি পাস করেন। এই বিলের মধ্যে বলা হয়েছে, “যে সমস্ত ব্যক্তি ইন্টারনেটে কম্পিউটার বা অন্য কোন ডিভাইস ব্যবহার করে বাজি রাখবে বা বেটিং করবে তাদের ব্যান করা হবে।” তাছাড়া এই বিলে বলা হয়েছে, এই ধরনের গেমিং-এর সঙ্গে কেউ যুক্ত থাকলে তাকে ৫০০০ টাকার জরিমানা ও ৬ মাসের কারাদন্ড ভোগ করতে হবে। রেহাই পাবে না গেমিং হাউস চালানো ব্যক্তিরাও। তাদের ক্ষেত্রে থাকছে ১০,০০০ টাকা জরিমানা এবং দুই বছরের কারাদন্ড।

সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, “অনলাইন গেমিং-এর জন্য নিষ্পাপ ব্যক্তিরা, বিশেষত তরুণরা প্রতারিত হচ্ছে এবং কয়েকজন আত্মহত্যাও করেছে। এই ধরনের আত্মহত্যার ঘটনা যাতে না হয় এবং নিষ্পাপ ব্যক্তিরা যাতে অনলাইন গেমিং-এর খারাপ চক্করে না পড়েন তার জন্য” এই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি অন্ধ্র সরকারও তাদের রাজ্যে বেটিং ও জুয়া-সহ সমস্ত ধরনের অনলাইন গেমিং ব্যান করেছে। কেন্দ্রশাসিত রাজ্য পন্ডিচেরী থেকেও অনলাইন গেমিং-এর উপর ব্যান জারি করার জন্য কেন্দ্র সরকারকে লিখিত অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত, পন্ডিচেরীতেও এই অনলাইন গেমিং-এ টাকা হারিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক ব্যক্তি। আশা করা যায়, ভবিষ্যতে এই ধরনের ক্ষতিকর অ্যাপগুলি থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করার জন্য কেন্দ্রীয় স্তরে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।