ফোনে কথা বলতে দিতে হবে বেশি টাকা, প্ল্যানের দাম বাড়ানোর ভাবনায় টেলিকম কোম্পানিগুলি

Tariff Hike recharge expensive up to 10 percent

চিঠির জমানা গিয়ে ল্যান্ডলাইন হয়ে মোবাইল পরিষেবা এসেছে অনেকদিন হল। কিন্তু মোবাইল ব্যবহারের খরচ যেভাবে পকেটে টান ফেলছে, তাতে আমাদের হয়তো যোগাযোগের জন্য আবার চিঠি বা অন্যান্য পুরনো মাধ্যম ব্যবহার করতে হতে পারে। বেশ কয়েকদিন আগেই Airtel-এর চেয়ারম্যান ইউজারদের আরো বেশি খরচের জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেছিলেন। সম্প্রতি পাওয়া খবর অনুযায়ী, এবার সত্যিই আরো বাড়তে চলেছে মোবাইল খরচ। রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রায় ১০% ব্যয়বহুল হতে পারে টেলিকম পরিষেবা।

আসলে গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট টেলিকম অপারেটরদের, সরকারের কাছে তাদের বকেয়া পরিশোধের জন্য ১০ বছর সময় দিয়েছে বটে, কিন্তু একইসাথে দেশের শীর্ষ আদালত, টেলিকম সংস্থাগুলিকে আদায় করা মোট আয়ের দশ শতাংশ ২০২১ সালের ৩১ শে মার্চের মধ্যে পরিশোধ করার আদেশ দিয়েছে। এছাড়া ২০২২ সালের ২০ মার্চের মধ্যে ১০টি কিস্তি দেওয়ার রায় দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট। ফলে, Airtel এবং Vodafone-কে বকেয়া টাকা পরিশোধ করার জন্য পরিষেবার চার্জ বাড়াতে হতে পারে, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

সুপ্রিমকোর্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২০২১ সালের মার্চের মধ্যে এয়ারটেলকে ২,৬০০ কোটি টাকা এবং ভোডাফোন-আইডিয়াকে ৫,০০০ কোটি টাকা সরকারকে দিতে হবে। ব্রোকারেজ ফার্ম জেফারিজের (Jefferies) মতে, এয়ারটেল ইউজারদের থেকে গড় ১০% আয় বাড়ানোর চেষ্টা করবে, অন্যদিকে ভোডাফোন ২৭ শতাংশ চার্জ বাড়িয়ে তুলতে পারে।

প্রসঙ্গত, চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে Airtel এর ARPU (অ্যাভারেজ রেভেনিউ পার ইউজার) ছিল ১৫৭ টাকা, যেখানে Vodafone-Idea এর ছিল অ্যাভারেজ রেভেনিউ ছিল ১১৪ টাকা। জেফারিজ মনে করছে, আগামী বছরগুলিতে, সংস্থাগুলি ১০ শতাংশ অবধি শুল্ক ব্যয়বহুল করতে পারে।

অন্যদিকে, বিখ্যাত ইন্টারপ্রিনিউয়ার এবং টিএমটি উপদেষ্টা সঞ্জয় কাপুর মনে করছেন, শীর্ষ আদালতের সিদ্ধান্তের কারণে টেলিকম সংস্থাগুলি তাদের ভবিষ্যত প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিচ্ছে। কাপুর বলেন, যদি স্পেকট্রামের খরচ এবং অন্যান্য বিনিয়োগের কথা বাদও দেওয়া হয়, তাহলেও সার্ভিস প্রোভাইডারদের ডেক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে প্রতি ইউজারের থেকে ৩-৪ ডলার আয় করতে হবে।

বিগত চার বছরে প্রথমবার গত বছরের ডিসেম্বরে, টেলিকম অপারেটররা তাদের প্ল্যানগুলি ৪০ শতাংশ ব্যয়বহুল করে তুলেছিল। ফলস্বরূপ, চলতি বছরের প্রথমার্ধে সংস্থাগুলির আয়ের পরিমাণ ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ভারত এবং মধ্য প্রাচ্যের অ্যানালিসিস ম্যাসন বিভাগের প্রধান রোহম ধামিজা বলেছেন, আগামী ২ বছরের মধ্যে টেলিকম সংস্থাগুলি কে ইউজারদের কাছ থেকে প্রতি মাসে ২০০ টাকা আয় করতে হবে। তবেই সংস্থাগুলি বাজারে টিকে থাকতে পারবে। অতএব আগামী দিনে রিচার্জ করতে গিয়ে সাধারণ মানুষের পকেটে যে আরো টান পড়বে তাতে কোনো সন্দেহ নেই!