বছরের শেষেই বাজারে আসতে পারে TATA Altroz এর টার্বো ভার্সন

tata-altroz-turbo-road-driving-test-images-leaks

প্রিমিয়াম হ্যাচব্যাক ক্যাটাগরীর TATA Altroz Turbo Petrol এই বছরের শেষের দিকে বা আগামী বছরের প্রথমদিকে লঞ্চ হবে বলে জানা গিয়েছিল। সম্প্রতি Turbo Petrol ভ্যারিয়েন্ট গাড়িটিকে আবার পালবিক রোডে ড্রাইভিং টেস্ট করতে দেখা গেছে। স্পাই ইমেজের মাধ্যমে, গাড়িটির টেইলগেটের ডানদিকে একটু নীচে টার্বো ব্যাজিং দেখা গেছে। যার মাধ্যমে চিহ্নিত করা গেছে, এটিই TATA Altroz Turbo।

গাড়িটিকে টেকটনিক ব্লু কালারের শেডে দেখা গেছে। যেটি এক্সক্লুসিভলি সংস্থার Nexon ও Tiago মডেলের গাড়িগুলির সাথে অফার করা হয়। এছাড়াও স্পাই ইমেজের মাধ্যমে গাড়িটিতে রিয়ার উইপার, ডাইমন্ড কাট অ্যালই হুইলস এবং একটি কনট্রাস্ট কালারড স্কিড প্লেট দেখা গেছে। TATA Altroz এর মডেলগুলি বর্তমানে ৫.৪৪- ৯.৩৫ লক্ষ টাকায় (এক্স-শোরুম দিল্লী ) বাজারে উপলব্ধ। মনে করা হচ্ছে Turbo ভার্সানটির দাম ৮ লক্ষ থাকা থেকে শুরু হতে পারে।

TATA Altroz-এ দেওয়া হয়েছে তিনটি সিলিন্ডার সহ ১.২ লিটারর ১,১৯৯ সিসির পেট্রোল ইঞ্জিন এবং চারটি সিলিন্ডার সহ ১.৫ লিটারের ১, ৪৯৭ সিসির ডিজেল ইঞ্জিন। পেট্রোল ইঞ্জিনটি সর্বোচ্চ ৮৬ পিএস এবং ১১৩ এনএম টর্ক এবং ডিজেল ইঞ্জিনটি ম্যাক্সিমান ৯০ পিএস ও ২০০ টর্ক জেনারেট করতে পারে। এছাড়া TATA Altroz এর অন্যান্য ফিচারের কথা বললে এতে আছে অ্যান্টি লক ব্রেকিং সিস্টেম, এয়ারব্যাগ, সামনে ফগ লাইটস, পাওয়াল স্টিয়ারিং ইত্যাদি ৷

মনে করা হচ্ছে Altroz টার্বোতে TATA Nexon এর ১.২ লিটারের টার্বো পেট্রোল ইঞ্জিনের একটি ডিটিউনড ভার্সান ব্যবহার করা হয়েছে৷ এটি সর্বোচ্চ ১০২ পিএস ও ১৪০ এমএম টর্ক জেনারেট করতে সক্ষম হবে। যা নেক্সনের থেকে যথাক্রমে ১৬ পিএস এবং ৩০ এনএম কম ক্ষমতাসম্পন্ন। তবে Altroz Turbo তে নেক্সনের সিক্স স্পীড অটোমেটেড ম্যানুয়াল ট্রান্সমিশানের পরিবর্তে ডুয়াল ক্ল্যাচ অটোম্যাটিক ট্রান্সমিশান থাকবে বলে জানা গিয়েছে। এই লাইনআপে একটি ম্যানুয়াল গিয়ারবক্সও থাকতে পারে।

অন্যান্য ফিচারের মধ্যে TATA Altroz Turbo তে দেওয়া হতে পারে সাত ইঞ্চি টাচস্ক্রিনের ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম, অ্যাপেল কার পে, অ্যান্ড্রয়েড অটো কানেক্টিভিটি, সেভেন ইঞ্চ টিএফটি ডিজিট্যাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্ল্যাস্টার, ইঞ্জিন স্টার্ট/স্টপ বাটন, মাল্টি ফাংশানাল স্টিয়ারিং হুইল প্রভৃতি ৷