নিউজমোবাইল ফোনের তুলনা

Free Fire Smartphones: ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স গেম খেলার জন্য সেরা বাজেট রেঞ্জের মোবাইল ফোন দেখে নিন

অল্প সময়ের মধ্যেই Free Fire Max নামক রয়েল ব্যাটেল মোবাইল গেমটি ভারতীয় গেমারদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে। ফলে, এখনকার গেম প্রেমীদের মধ্যে অনেকেই উচ্চতর ‘গেমিং এক্সপিরিয়েন্স’ লাভ করার জন্য এমন স্মার্টফোন খুঁজছে, যেগুলি উৎকর্ষমানের ভিজ্যুয়াল গ্রাফিক্স ও সাউন্ড সহ ‘স্মুথ’ পারফরম্যান্স অফার করবে। তাই, আজ আমরা গেমারদের সুবিধার্থে ভারতের বাজারে বিদ্যমান ৫টি সেরা বাজেট রেঞ্জের গেমিং স্মার্টফোনের খোঁজ দেব। এই তালিকায় – Samsung Galaxy M21, Samsung Galaxy M12, Poco M4 Pro 5G, Redmi Note 10S এবং Redmi 9 Power স্মার্টফোন অন্তর্ভুক্ত আছে। জানিয়ে রাখি, উল্লিখিত প্রত্যেকটি মডেলের দাম ১৫,০০০ টাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকছে। আর, উক্ত গেমটির পাশাপাশি Garena Free Fire, Clash of Clans, BGMI এর মতো জনপ্রিয় অ্যাপগুলিও অ্যাক্সেস করা যাবে এই ৫টি স্মার্টফোনে। চলুন তাহলে এবার তালিকাভুক্ত স্মার্টফোনগুলির দাম ও ফিচার সম্পর্কে বিশদে জেনে নেওয়া যাক।

১৫,০০০ টাকার নিচে উপলব্ধ Free Fire Max গেমের জন্য উপযুক্ত ৫টি সেরা গেমিং স্মার্টফোনের তালিকা

১. Samsung Galaxy M21 : ১২,৯৯৯ টাকা

কম দামের ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স খেলা যায় এমন গেমিং ফোন কিনতে হলে, গ্যালাক্সি এম-সিরিজের এই লেটেস্ট স্মার্টফোনটি উপযুক্ত প্রমাণিত হতে পারে। ভালো গেমিং পারফরম্যান্স অফার করার জন্য এই ফোনে এক্সিনস ৯৬১১ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। আর পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য এতে ৬,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে। ‘ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যান্স’ (Clash of Clans), ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স’ (Free Fire Max) এবং ‘ক্ল্যাশ রয়েল’ (Clash Royale) এর মতো জনপ্রিয় গেমগুলি যথেষ্ট স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে আপনারা এই ফোনে খেলতে পারবেন। প্রসঙ্গত, একটি চমৎকার গেমিং ফোন হওয়ার পাশাপাশি, গ্যালাক্সি এম২১ ফোনের ক্যামেরা ফ্রন্টও খুব ভালো। সেক্ষেত্রে, এই মডেলে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে, যা কম আলোতেও ভালো ছবি তোলার সুবিধা দেয়।

২. Samsung Galaxy M12 : ১৩,৪৯৯ টাকা

বাজেট রেঞ্জের আরেকটি সেরা গেমিং ফোন হল স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২। উক্ত মডেলটি অক্টা-কোর প্রসেসর এবং ৬.৫০ ইঞ্চির বড় ডিসপ্লের সাথে আসার দরুন, দুর্দান্ত গেমিং অভিজ্ঞতা প্রদান করে থাকে। সাথে, এই ডিভাইসে ৬,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা দীর্ঘ ব্যাকআপ অফার করার মাধ্যমে গেমারদের বর্ধিত সময়ের জন্য গেম খেলতে দেয়। তদুপরি, ‘হেভি ইউসেজ’ এর জন্য স্যামসাংয়ের এই ফোনকে দুটি র‌্যাম ভ্যারিয়েন্টে নিয়ে আসা হয়েছে।

৩. Poco M4 Pro 5G : ১৪,৯৯৯ টাকা

পোকো এম৪ প্রো ৫জি স্মার্টফোনে একটি ৬.৬ ইঞ্চির ডিসপ্লে প্যানেল, মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮১০ এমটি৬৮৩৩ প্রসেসর এবং ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে। একই সাথে, এতে ৫জি কানেকশন সাপোর্ট করায়, হাই-স্পিড ব্রাউজিংও করা যাবে। ফলে, এই সকল ফিচার, উক্ত ফোনটিকে ‘ক্ল্যাশ রয়্যাল’ (Clash Royale), ‘ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স’ (Free Fire MAX) এবং ব্যাটেলগ্রাউন্ডস মোবাইল ইন্ডিয়া (BGMI) -এর মতো গ্রাফিক্যালি ডিমান্ডিং গেমগুলি খেলার জন্য উপযুক্ত করে তুলেছে। প্রসঙ্গত, দুর্দান্ত গেমিং ফিচারের পাশাপাশি, ফোনে ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর সহ ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপও বিদ্যমান আছে, যা ভালো ফটোগ্রাফি করার জন্য যথেষ্ট সহায়তা করবে।

৪. Redmi Note 10S (64 GB) : ১৪,৯৯৯ টাকা

বাজেট রেঞ্জের রেডমি নোট ১০এস, একটি চমৎকার গেমিং স্মার্টফোন। এতে, ‘ফ্রি ফায়ার ম্যাক্স’ (Free Fire MAX) এবং ব্যাটেলগ্রাউন্ডস মোবাইল ইন্ডিয়া (BGMI) এর মতো একাধিক ‘টপ রেটেড’ গেমিং অ্যাপগুলি সাপোর্ট করে৷ ফিচার হিসাবে এই ফোনে, মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি হেলিও জি৯৫ প্রসেসর, ৬ জিবি র‍্যাম এবং ৫,০০০ এমএএইচ পাওয়ারের ব্যাটারি আছে, যা গেমিংয়ের সময়ে অসাধারণ ও নিখুঁত ভিজ্যুয়াল গ্রাফিক্স অফার করবে ইউজারদের৷

৫. Redmi 9 Power : ১৩,৯৯৯ টাকা

৬.৫৩ ইঞ্চির IPS LCD ডিসপ্লে, কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২ প্রসেসর, ৬ জিবি র‌্যাম, ১২৮ জিবি স্টোরেজ এবং ৬,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি সহ আসা রেডমি ৯ পাওয়ার, ভারতীয় বাজারে বিদ্যমান আরেকটি সাশ্রয়ী মূল্যের গেমিং স্মার্টফোন। আর, উল্লেখিত প্রত্যেকটি ফিচার নিঃসন্দেহেই এই মডেলকে রেডমির গেমিং ফোনগুলির মধ্যে সর্বাধিক সেরা করে তুলেছে৷ যাইহোক, গেমিং ফিচারের পাশাপাশি, উক্ত হ্যান্ডসেটের ক্যামেরা ফ্রন্টও যথেষ্ট আকর্ষণীয়। ইউজাররা এতে ৪৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর সহ কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ পেয়ে যাবেন।

Back to top button