Homeটেলিকমশীঘ্রই চালু হবে BSNL 4G, কোর নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের কাজ শেষ করল রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম কোম্পানিটি

শীঘ্রই চালু হবে BSNL 4G, কোর নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের কাজ শেষ করল রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম কোম্পানিটি

BSNL-এর পক্ষে আগামী ৬ মাসের মধ্যেই দেশব্যাপী 4G নেটওয়ার্ক রোলআউট করা সম্ভব হবে বলে আমাদের অনুমান

সম্পূর্ণ স্বদেশী প্রযুক্তির উপর নির্ভরশীল 4G নেটওয়ার্ক লঞ্চের পূর্বে প্রয়োজনীয় নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের কাজ সেরে ফেললো বিএসএনএল (BSNL)। সম্প্রতি জনপ্রিয় সংবাদ সংস্থার রিপোর্টে এই খবর উঠে এসেছে। এর ফলে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলকোর পক্ষে আগামী ৬ মাসের মধ্যেই দেশব্যাপী 4G নেটওয়ার্ক রোলআউট করা সম্ভব হবে বলে আমাদের অনুমান। যদিও এক্ষেত্রে কোনো নিশ্চিত তারিখের কথা জানানো এখনই সম্ভব নয়।

কোর নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের কাজ সেরে ফেললো BSNL

একথা হয়তো অনেকেই জানেন যে 4G ট্রায়ালের ক্ষেত্রে BSNL প্রথম থেকেই ভরসাযোগ্য টাটা কনসালটেন্সি সার্ভিসেস বা টিসিএসের (TCS) সহায়তা পেয়েছে। নইলে সরকারি নিয়ন্ত্রণাধীন এই টেলিকম পরিষেবা সরবরাহকারীর পক্ষে স্বদেশী প্রযুক্তি-নির্ভর 4G নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা সম্ভব হতোনা। সেক্ষেত্রে টিসিএসের (TCS) সঙ্গে জোট বেঁধে বিএসএনএল গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি নাগাদ 4G নেটওয়ার্ক ট্রায়াল শেষ করেছে বলে শোনা গিয়েছে। যদিও কোর নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের পরে সংস্থাটি এখন রেডিও নেটওয়ার্ক ট্রায়াল পরিচালনায় ব্যস্ত রয়েছে, যা আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে শেষ হতে পারে।

অবগতির জন্য জানিয়ে রাখি, ইতিমধ্যেই বিএসএনএল ভারতের বিভিন্ন মহানগরে 4G লঞ্চের উপযোগী পরিকাঠামো তৈরী করে ফেলেছে। সংবাদ সংস্থা Financial Express -এর প্রতিবেদন অনুযায়ী আসন্ন ৪ থেকে ৬ মাসের মধ্যে 4G রোলআউটের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত টেলকো দেশে ১ লক্ষ নতুন সাইট আপগ্রেডেশনের কাজ শেষ করতে চলেছে। সেক্ষেত্রে ২০১৯ সালে সর্বপ্রথম সংস্থাটি সারা দেশে 4G রোলআউটের কথা বললেও, অনেক প্রতীক্ষার পর ২০২২ সালে সেই সম্ভাবনা সত্যি হতে চলেছে।

এপ্রিল মাসে 4G ইক্যুয়িপমেন্টের অর্ডার দেবে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলকো

উল্লেখ্য, কোর নেটওয়ার্ক ট্রায়ালের কাজ শেষ হওয়ায়, আগামী এপ্রিল মাসেই বিএসএনএল জরুরি 4G ইক্যুয়িপমেন্টের অর্ডার দিতে পারে। এরপর দ্রুততার সঙ্গে টেলকোর পক্ষ থেকে 4G লঞ্চের দিনক্ষণ ধার্য করা হবে।

বলা বাহুল্য যে নিজস্ব 4G নেটওয়ার্ক লঞ্চে সফল হলে BSNL প্রতিদ্বন্দ্বী বেসরকারি টেলকোগুলির জন্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। সেক্ষেত্রে টিসিএসের (TCS) সহায়তায় তৈরী স্বদেশী প্রযুক্তি-নির্ভর 4G পরিষেবা বাজারে বিএসএনএলের বেহাল পরিস্থিতিকেও কিছুটা উন্নত করবে। তাই অসংখ্য উপভোক্তার মতো বিএসএনএল কর্তারাও বর্তমানে 4G রোলআউটের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন।

আরও পড়ুন