নিউজ

iPhone 14 Price: নয়া আইফোন ১৪ কিনতে ইচ্ছুক? আপনার জন্য জন্য সুখবর

অ্যাপল (Apple)-এর তরফে এখনও নিশ্চিত না করা হলেও, প্রযুক্তি সংস্থাটি যে তাদের পরবর্তী প্রজন্মের iPhone 14 সিরিজটি আগামী মাসেই বিশ্ববাজারে লঞ্চ করবে, তা নিয়ে অ্যাপল বিশেষজ্ঞদের মনে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই। আপকামিং এই লাইনআপে iPhone 14, 14 Max, 14 Pro এবং 14 Pro Max-এই চারটি মডেল অন্তর্ভুক্ত থাকবে বলে জানা গেছে। এই ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসগুলি অনেকদিন ধরেই চর্চায় রয়েছে। বিভিন্ন রিপোর্ট ও সূত্র থেকে এগুলির স্পেসিফিকেশন সম্পর্ক একাধিক তথ্য সামনে এসেছে। এখন আবার ন্যাভার এক ইউজার তার একটি ব্লগ পোস্টে উল্লেখ করেছেন যে, iPhone 14 গতবছর লঞ্চ হওয়া পূর্বসূরি iPhone 13-এর মতো একই দামে লঞ্চ হতে পারে। মূল্যস্ফীতি এবং সাপ্লাই চেইনের সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও অ্যাপলের শীর্ষ কর্মকর্তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে। এর পাশাপাশি এক টিপস্টার দাবি করেছেন যে, iPhone 14 এবং iPhone 14 Max মডেলগুলি অ্যাপলের লেটেস্ট A16 Bionic প্রসেসরের পরিবর্তে গত বছরের A15 Bionic দ্বারা চালিত হলেও, এগুলিতে নতুন সেলুলার মডেম এবং নতুন অভ্যন্তরীণ ডিজাইন থাকার কারনে আগের প্রজন্মের তুলনায় ডিভাইসগুলির পারফরম্যান্সে উন্নতি দেখা যেতে পারে।

অ্যাপল আইফোন ১৪-এর সম্ভাব্য দাম (Apple iPhone 14 Expected Price)

ম্যাকরিউমার্স (MacRumors)-এর একটি সাম্প্রতিক রিপোর্ট অনুযায়ী, কোরিয়ান সাইট ন্যাভার (Naver)-এর ইউজার “yeux1122”, তার একটি ব্লগ পোস্টে লিখেছেন যে, আসন্ন অ্যাপল আইফোন ১৪-এর দাম শুরু হতে পারে ৭৯৯ ডলার (প্রায় ৬৩,২০০ টাকা) থেকে। লক্ষণীয়ভাবে গতবছর সেপ্টেম্বরে আইফোন ১৩-ও এই একই দামে লঞ্চ হয়েছিল। যদিও, অ্যাপল এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে দাম সহ আইফোন ১৪ সিরিজের কোনও বিশদ বিবরণ প্রকাশ করেনি।

অন্যদিকে, টিপস্টার ‘শ্রিম্প অ্যাপল প্রো’ টুইটারে জানিয়েছেন যে, iPhone 14 সিরিজের নন-প্রো মডেল অর্থাৎ iPhone 14 এবং iPhone 14 Max-এ কিছু সামগ্রিক পারফরম্যান্সে কিছু উন্নতি পরিলক্ষিত হবে, কারণ স্মার্টফোনগুলিতে নতুন সেলুলার মডেম এবং একটি নতুন অভ্যন্তরীণ ডিজাইন থাকবে। আগেই জানা গিয়েছিল যে, উভয় নন-প্রো মডেল গত বছরের অ্যাপল এ১৫ বায়োনিক চিপসেট দ্বারা চালিত হবে, যদিও, iPhone 14 Pro এবং iPhone 14 Pro Max মডেলগুলিতে এ১৬ বায়োনিক প্রসেসরটি ব্যবহার করা হবে।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক আরেকটি রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে যে, iPhone 14-এর রিয়ার ক্যামেরা লেন্সের গুণমান নিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে অ্যাপলকে। মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থাটি জিনিয়াস (Genius) নামক একটি সরবরাহকারীর কাছ থেকে ক্যামেরা লেন্সগুলি সংগ্রহ করেছে বলে জানা গেছে। রিপোর্টে যোগ করা হয়েছে যে, এই লেন্সগুলিতে “কোটিং-ক্র্যাক কোয়ালিটি ইস্যু” দেখা দিয়েছে। অ্যাপল ইতিমধ্যেই অন্য ফার্মে তাদের অর্ডার স্থানান্তর করেছে, আর ওই সরবরাহকারী বর্তমানে সমস্যাগুলির সমাধান করার চেষ্টা করছে।

Back to top button