নিউজ

ফের কোভিড কেস বৃদ্ধির কারণে অফিস খোলার পরিকল্পনা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত রাখল Microsoft

গত প্রায় দেড় বছর ধরে করোনার ভয়াল থাবায় গোটা বিশ্ব চরমভাবে বিপর্যস্ত। বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজের ধরনের পাশাপাশি সমগ্র পরিকাঠামোয়ও আমূল পরিবর্তন ঘটিয়েছে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস। আতঙ্ক এখনও মানুষের পিছু ছাড়েনি, বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে কোভিডের ভয়াবহতার মাত্রা ওঠানামা করছে, এবং তার ওপর নির্ভর করেই নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কিত সিদ্ধান্ত, যার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে মানুষের রুজি-রোজগার ও ভবিষ্যৎ। জানা গেছে সম্প্রতি দেশে ক্রমবর্ধমান কোভিড-১৯ (Covid-19) কেসকে প্রত্যক্ষ করে মাইক্রোসফট (Microsoft) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তাদের অফিসগুলি সম্পূর্ণভাবে পুনরায় খোলার পরিকল্পনা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মাঝে কোভিড সংক্রমণের হার কিছুটা কমায় পুরোদমে অফিস চালু করার পরিকল্পনা করলেও সাম্প্রতিক অবস্থা দেখে সংস্থাটি আবার পিছিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছে।

Microsoft এর আগে ৪ অক্টোবর ওয়াশিংটনের সদর দপ্তর পুনরায় খোলার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্ত এই অঞ্চলে কোভিড-১৯ কেস বৃদ্ধির সাথে সাথে সংস্থাটি তার পরিকল্পনা স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে। Microsoft একটি ব্লগ পোস্টে বলেছে যে, তারা আর এখন থেকে পুনরায় অফিস খোলার কোনো নির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা করবে না। পরিবর্তে কোম্পানির নির্দিষ্ট মানদণ্ড এবং স্থানীয় স্বাস্থ্য নির্দেশিকার উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যতে নির্বাচিত মার্কিন অফিসগুলি পুনরায় খুলবে। কোভিড-১৯-এর অনিশ্চয়তার পরিপ্রেক্ষিতে অফিস খোলার তারিখ প্রসঙ্গে কোম্পানির কোনো পূর্বাভাস না দেওয়ার সিদ্ধান্ত যথার্থই যুক্তিযুক্ত।

উল্লেখ্য, সংস্থাটি সর্বপ্রথম সীমিত কিছু কর্মীদের ডেকে মার্চ মাসে অফিস শুরু করে। এরপর সংস্থাটি জুলাই মাসে সমস্ত কর্মীদের নিয়ে পুরোদমে অফিস শুরু করার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু দেশে ক্রমবর্ধমান কোভিড কেসের দরুন সেই প্রচেষ্টা ক্রমাগত পিছোতে থাকে ও প্রথমে সেপ্টেম্বর, তারপর অক্টোবর এবং অবশেষে বর্তমানে এক অনিশ্চয়তার মুখোমুখি এসে দাঁড়িয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্রমবর্ধমান ডেল্টা ভেরিয়েন্ট কেসের জন্যই সেখানে পুরোদমে অফিস খোলার পরিকল্পনাটি অনির্দিষ্টকালের জন্য বিলম্বিত হয়েছে বলে Microsoft তার ব্লগে উল্লেখ করেছে। সংস্থাটি স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে, তারা এখন একটি অঞ্চলে কেবলমাত্র তখনই অফিস খুলবে যদি সেটি “স্টেজ ৬” ছাড়পত্র (“Stage 6” clearance) পায়। আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, কোনো জায়গা তখনই Stage 6 ক্লিয়ারেন্স পাবে যদি সরকার নির্ধারিত কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয় যে, সেই অঞ্চলে কোভিড-১৯-এর ভয়াবহতা ও সংক্রমণ একেবারেই কমে গেছে, এবং সাধারণ মরশুমি ফ্লু-এর মতো এটি একটি স্থানীয় ভাইরাসের আকার নিয়েছে।

Covid-19-এর দ্বিতীয় ঢেউ বহু দেশে ভয়াল থাবা বসালেও সেটির রেশ কেটে যাওয়ার পর বর্তমানে অধিকাংশ জায়গাতেই তৃতীয় ঢেউ এসে গেছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। তাই শুধু মাইক্রোসফট-ই নয়, বিশ্বের অন্যান্য অনেক নামজাদা সংস্থাই সাম্প্রতিক কোভিড অ্যাক্টিভ কেসকে প্রত্যক্ষ করে তাদের অফিস পুরোদমে খোলার তারিখ পিছিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছে। আবার সংক্রমণ রুখতে অনেক কোম্পানি শুধুমাত্র সেইসব কর্মীদেরই অফিসে আসার অনুমতি দিয়েছে যাদের টিকা নেওয়া হয়ে গেছে। আগামী দিনে এই মারণ ভাইরাস আমাদের কী পরিস্থিতির সম্মুখীন করতে চলেছে তা একমাত্র সময়ই বলতে পারবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

Back to top button