সাইবার হানার শিকার Samsung, হ্যাকার ফাঁস করল সংস্থার ১৯০ জিবি ডেটা

এবার বড়োসড়ো রকমের সিকিউরিটি ব্রিচের শিকার হল জনপ্রিয় সংস্থা Samsung Electronics, গোটা ঘটনায় সংস্থার মোট ১৯০ জিবি ডেটা ফাঁস হয়েছে।

ডেটা ফাঁসের খবর এখনকার দিনে নতুন কিছু নয়। প্রায়শই একাধিক নামজাদা কোম্পানির ডেটা ফাঁস হওয়ার খবর সামনে আসে। তবে এবার বড়োসড়ো রকমের সিকিউরিটি ব্রিচের শিকার হল জনপ্রিয় সংস্থা Samsung Electronics (স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স)। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, এই ঘটনার পিছনে যুক্ত হ্যাকাররা দাবি করেছে যে, তারা মোট ১৯০ জিবি ডেটা ফাঁস করেছে যার মধ্যে সংস্থার সোর্স কোড এবং বায়োমেট্রিক আনলকিং অ্যালগরিদম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

Bleeping Computer-এর রিপোর্ট (Apple Insider-এর মাধ্যমে প্রকাশিত) অনুযায়ী, দক্ষিণ কোরিয়ার টেক জায়ান্টটি এই মাসের শুরুর দিকেই সিকিউরিটি ব্রিচের শিকার হয়েছে। এই হ্যাকিংয়ের ঘটনার পিছনে থাকা গ্রুপটি হল Lapsus$ (ল্যাপসাস), যারা দাবি করেছে যে তারা স্যামসাং ইলেকট্রনিক্সের কাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে ডেটা চুরি করেছে। সেক্ষেত্রে যদি এই খবরটি সত্যি হয়, তবে আগামী দিনে ব্র্যান্ডটির নিরাপত্তা সংক্রান্ত উদ্বেগের যথেষ্ট কারণ রয়েছে। উল্লেখ্য, স্যামসাং সফ্টওয়্যারে C/C++ নির্দেশাবলীর একটি ছবি সহ গত শুক্রবার সংশ্লিষ্ট গ্রুপটি এই ডেটা লিকের বিষয়টি সর্বপ্রথম প্রকাশ্যে এনেছে।

গ্রুপটি আরও বলেছে যে, এই ডেটা লিকের মধ্যে “গোপনীয় স্যামসাং সোর্স কোড”-ও রয়েছে। জানা গেছে যে, এই কোডটিতে স্যামসাং-এর TrustZone এনভায়রনমেন্টের প্রতিটি Trusted Applet-এর সোর্স অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, যা হার্ডওয়্যার ক্রিপ্টোগ্রাফি এবং অ্যাক্সেস নিয়ন্ত্রণের মতো প্রতিটি সংবেদনশীল কাজের জন্য দায়ী। এছাড়া, লিকের মধ্যে বায়োমেট্রিক আনলক অপারেশন অ্যালগরিদম, সাম্প্রতিক ডিভাইসগুলির জন্য বুটলোডার সোর্স, অ্যাক্টিভেশন সার্ভার সোর্স কোড, এবং স্যামসাং অ্যাকাউন্টগুলি অথেন্টিকেট ও অথোরাইজড করতে ব্যবহৃত ফুল সোর্স কোড সম্পর্কিত অন্যান্য সংবেদনশীল তথ্যও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এসবের পাশাপাশি একথাও মনে করা হচ্ছে যে, Qualcomm সম্পর্কিত কিছু গোপনীয় সোর্স কোডও ফাঁস হয়েছে। হ্যাকার গ্রুপটি টরেন্টের মাধ্যমে ফাঁস হওয়া তথ্য শেয়ার করে নিয়েছে, যদিও গ্রুপটি ঠিক কতটা ডেটা আয়ত্তে আনতে সক্ষম হয়েছে তা বর্তমানে অজানা। এছাড়া, গ্রুপটি ঠিক কী কাজে এই ডেটাগুলিকে ব্যবহার করবে, সে বিষয়টিও এখনও ঠিক স্পষ্ট নয়। যদিও Samsung-এর কর্মকর্তারা বলেছেন যে, তাঁরা সিকিউরিটি ব্রিচের সামগ্রিক পরিস্থিতি মূল্যায়ন করছেন, তবে শেষপর্যন্ত কোথাকার জল কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা একমাত্র সময়ই বলতে পারবে!

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন