Homeঅ্যাপ্লিকেশনকোর্টে না গিয়ে সরকারের সাথে পরামর্শ করেই সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজছে টিকটক

কোর্টে না গিয়ে সরকারের সাথে পরামর্শ করেই সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজছে টিকটক

সম্প্রতি ভারতে ৫৮টি চীনা অ্যাপের সাথে Tiktok কে ব্যান করার পর কয়েকটি মিডিয়া দাবি করছিল যে, টিকটকের কোম্পানি বাইটড্যান্স সরকারের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে। যদিও বাইটড্যান্সের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল এরকম কোনো সিধান্ত তারা নিচ্ছেনা। বরং সরকারের সাথে পরামর্শ করেই সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজছে তারা। ভারতে ব্যান হওয়ার পর টিকটকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল যে, সরকার তাদের কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনায় বসার জন্য আহ্বান জানিয়েছে। সেকারণেই হয়তো কোম্পানি কোনো আইনি পদক্ষেপ না নিয়ে সরকারের সাথে কথা বলে বিষয়টি মেটানোর চেষ্টা করছে।

প্রসঙ্গত, নিষিদ্ধ হওয়া ৫৯ টি চীনা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলির বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তারা ইউজারের ব্যক্তিগত ডেটা চুরি করে দেশের বাইরে স্থানান্তর করছে। যদিও নামকরা এক আইনজীবী জানিয়েছিলেন, টিকটক কোনো তথ্যের অপব্যবহার করেনি এমন যুক্তি দিয়ে আগামী সপ্তাহে সরকারের কাছে আবেদন করার পরিকল্পনা চলছে। সরকার কী প্রতিক্রিয়া দেয় তা দেখে পরবর্তী সময়ে দরকার হলে আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সরকারকে দুটি প্রশ্ন করা হবে, এক সরকার যথাযথ পদ্ধতি অনুসরণ করেছে কিনা এবং টিকটককে অভিযোগগুলির প্রতিক্রিয়া জানাতে পর্যাপ্ত সময় দিয়েছে কিনা। আরেকটি হল সরকার নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগে তদন্ত করেছে কিনা। অন্য এক আইনজীবী জানিয়েছেন, সংস্থা এবং তার আইনজীবীরা সরাসরি সুপ্রিম কোর্টে আপিল করা যায় কিনা তা জানার চেষ্টা করছে। যদিও টিকটক এসব কিছু মিথ্যা বলেই জানিয়েছে।

আপনাকে জানিয়ে রাখি ইতিমধ্যেই গুগল প্লে স্টোরে বা অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে টিকটককে। এমনকি যাদের ফোনে এই অ্যাপটি ছিল, তারাও অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারছেনা। সরকারের তরফে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ৫৯টি অ্যাপকে ব্যান করার।

আরও পড়ুন