Vivo V27 Pro নাকি OnePlus 11R, ফিচার ও দামের নিরিখে দুই ফোনের মধ্যে কে সেরা

চলতি মাসের প্রথম দিন অর্থাৎ ১ তারিখে ভারতের বাজারে পা রেখেছিল Vivo V27 স্মার্টফোন সিরিজ। আলোচ্য লাইনআপের অধীনে – Vivo V27 এবং V27 Pro এই দুটি মডেল আত্মপ্রকাশ করেছে। যার মধ্যে হাই-এন্ড মডেলটি রেগুলার ভ্যারিয়েন্টের থেকে অধিক উন্নত প্রসেসর সহ এসেছে। পাশাপাশি এই ‘Pro’ মডেলটি কালার-চেঞ্জিং ব্যাক প্যানেল ডিজাইন সহ আসায় অধিক নজর কেড়েছে আমাদের। শুধু তাই নয়, রাতের বেলা হাই-কোয়ালিটি ফটো ক্লিক করার সুবিধার্থে আলোচ্য ডিভাইসকে অরা লাইট ফ্ল্যাশের সাথেও নিয়ে আসা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ফিচার হিসাবে এতে – ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের FHD+ ডিসপ্লে, অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক কাস্টম স্কিন, ৫০ মেগাপিক্সেল মুখ্য সেন্সর যুক্ত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা ইউনিট এবং ২৫৬ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ পাওয়া যাবে। ফলে উল্লেখিত ফিচারের ভিত্তিক Vivo সংস্থার এই লেটেস্ট স্মার্টফোনটি ভারতের বাজারে বিদ্যমান OnePlus 11R 5G মডেলের সাথে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বলে। কেননা ফিচারের পাশাপাশি উভয় মডেলের দামও প্রায় এক সমান। এক্ষেত্রে আপনাদের মধ্যে ‘কোনটি কেনা অধিক লাভজনক হবে?’ এই বিভ্রান্তি দেখা দেওয়াই স্বাভাবিক। তাই আজ আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য নবাগত Vivo V27 Pro এবং ৭ই ফেব্রুয়ারি আগত OnePlus 11R স্মার্টফোনের মধ্যে দাম ও ফিচারগত তুলনামূলক আলোচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

Vivo V27 Pro vs OnePlus 11R : ডিসপ্লে, সেন্সর

ভিভো ভি২৭ প্রো স্মার্টফোনে ৩ডি (3D) কার্ভড এজ সহ ৬.৭৮-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস সুপার অ্যামোলেড (S-AMOLED) ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এই ডিসপ্লের ডিজাইন পাঞ্চ-হোল (কেন্দ্রীভূত) স্টাইলের এবং এটি ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট, ২০:৯ এসপেক্ট রেশিও, ৩৮৮ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটি ও ১.০৮ বিলিয়ন কালার সমর্থন করে। এদিকে সিকিউরিটি ফিচার হিসাবে এতে আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার উপলব্ধ।

ওয়ানপ্লাস ১১আর ৫জি স্মার্টফোনে আছে ৬.৭৪ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস (২৭৭২×১২৪০ পিক্সেল) কার্ভড ১০ বিট অ্যামোলেড (AMOLED) ডিসপ্লে, যা ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট, ৪৫০ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটি, ৩৬০ হার্টজ টাচ স্যাম্পলিং রেট এবং HDR10+ টেকনোলজি সাপোর্ট করে। এই ডিসপ্লেতে – আই কমফোর্ট, ইমেজ শার্পনার, ভিডিও কালার এনহ্যান্সার সহ একাধিক কার্যকর ফিচার মজুত রয়েছে। আর নিরাপত্তার জন্য এতেও আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার পাওয়া যাবে।

Vivo V27 Pro vs OnePlus 11R : প্রসেসর, অপারেটিং সিস্টেম, র‍্যাম, স্টোরেজ

অভ্যন্তরীণ স্পেসিফিকেশনের কথা বললে, ভিভো ভি২৭ প্রো ফোনে মালি-জি৬১০ এমসি৬ (Mali-G610 MC6) জিপিইউ এবং ৪ এনএম প্রসেসিং নোড ভিত্তিক মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮২০০ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। ডিভাইসটি ১২ জিবি পর্যন্ত LPDDR5 র‍্যাম এবং সর্বোচ্চ ২৫৬ জিবি UFS 3.1 স্টোরেজ সহ এসেছে। এটি লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১৩ (Funtouch OS 13) কাস্টম স্কিন দ্বারা চালিত।

মাল্টিটাস্কিং ও উন্নত পারফরম্যান্সের জন্য ওয়ানপ্লাস ১১আর ফোনে শক্তিশালী কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮+ জেন ১ ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর এবং অ্যাড্রেনো ৭৩০ জিপিইউ থাকছে। উক্ত ডিভাইসে ১৬ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং সর্বাধিক ২৫৬ জিবি মেমরি উপলব্ধ। আর অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এই ফোনে অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক অক্সিজেনওএস ১৩ (OxygenOS 13) কাস্টম ইউজার ইন্টারফেস পাওয়া যাবে।

Vivo V27 Pro vs OnePlus 11R : ক্যামেরা সেটআপ

ফটো ও ভিডিওগ্রাফির জন্য Vivo V27 Pro স্মার্টফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে। এই ক্যামেরাগুলি হল – OIS সহ ৫০ মেগাপিক্সেল Sony IMX766 প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। আবার সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য এতে অটোফোকাস সহ ৫০ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা রয়েছে।

ক্যামেরা ফ্রন্টের ক্ষেত্রে, OnePlus 11R ফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বিদ্যমান। এই ক্যামেরাগুলি হল – ৫০ মেগাপিক্সেল Sony IMX890 প্রাইমারি সেন্সর, এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল OV08D10 সেন্সর এবং এফ/২.৪ অ্যাপারচার সহ ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো OV02B10 সেন্সর। এদিক, ফোনটির ডিসপ্লের উপরিভাগে ১৬ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা অবস্থিত।

Vivo V27 Pro vs OnePlus 11R : ব্যাটারি, চার্জিং প্রযুক্তি

পাওয়ার ব্যাকআপের ক্ষেত্রে ভিভো ভি২৭ প্রো স্মার্টফোনে ৬৬ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি সমর্থিত ৪,৬০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে।

ওয়ানপ্লাস ১১আর ফোনে আছে ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি, যা ১০০ ওয়াট সুপারভোক (SuperVOOC) ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।

Vivo V27 Pro vs OnePlus 11R : দাম

ভারতের বাজারে ভিভো ভি২৭ প্রো স্মার্টফোনকে তিনটি স্টোরেজ কনফিগারেশনে নিয়ে আসা হয়েছে। যার মধ্যে ৮ জিবি র‍্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ যুক্ত বেস ভ্যারিয়েন্টের দাম রাখা হয়েছে ৩৭,৯৯৯ টাকা। আর ৮ জিবি র‍্যাম + ২৫৬ জিবি স্টোরেজ এবং ১২ জিবি র‍্যাম + ২৫৬ জিবি স্টোরেজ যুক্ত টপ-এন্ড মডেলের বিক্রয় মূল্য যথাক্রমে ৩৯,৯৯৯ টাকা ও ৪২,৯৯৯ টাকা ধার্য করা হয়েছে। এটিকে নোবেল ব্ল্যাক এবং ম্যাজিক ব্লু কালার অপশনে বেছে নেওয়া যাবে।

ভারতে ওয়ানপ্লাস ১১আর স্মার্টফোনের প্রারম্ভিক মূল্যে ৩৯,৯৯৯ টাকা। এই দাম ফোনটির ৮ জিবি র‍্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের। আর ১৬ জিবি র‍্যাম + ২৫৬ জিবি স্টোরেজ যুক্ত টপ-এন্ড মডেলটি কিনতে খরচ পড়বে ৪৪,৯৯৯ টাকা। এটি গ্যালাকটিক সিলভার এবং সনিক ব্ল্যাক কালার অপশনে উপলব্ধ।