মুহুর্তে চার্জ হওয়া Xiaomi 11T Pro ‘Hyperphone’ চলতি মাসেই ভারতে পা রাখছে, জোর জল্পনা

শাওমি’র হাইপারচার্জ’র পর এবার হাইপারফোন নিয়ে জল্পনা! ফোনটি কী অর্থে হাইপার তা অবশ্য বলতে নারাজ সংস্থাটি। তবে সেটি যে ফ্ল্যাগশিপ ফোন হতে চলেছে, সেই বিষয়ে কোনও দ্বিমত নেই। যারা আদ্যোপান্ত কিছু বুঝতে না পেরে মাথা চুলকাচ্ছেন, তাদের জন্য জানিয়ে রাখি, গত ৬ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, Xiaomi 11i ও Xiaomi 11i Hypercharge এর লঞ্চ ইভেন্টের শেষে নতুন “Hyperphone” বলে একটি স্মার্টফোনকে টিজ করা হয়েছিল। Xiaomi 11i Hypercharge-এর পর যা ভারতে সংস্থার ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংযুক্ত দ্বিতীয় হ্যান্ডসেট হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে। শাওমি ফোনটির পরিচয় গোপন রাখলেও স্মার্টফোন জগতের ভেতরের খবর ফাঁস করার জন্য পরিচিত এক টিপস্টারের মতে, Hyperphone আসলে Xiaomi 11T Pro।

টিপস্টার যোগেশ ব্রার (Yogesh Brar) দাবি করেছেন, Hyperphone বলতে আসলে Xiaomi 11T Pro-কেই বোঝানো হয়েছে। তাঁর বিশ্বাস, চলতি বছরে Xiaomi 11T Pro-সহ একাধিক Snapdragon 888 প্রসেসরের ফোন ভারতে পা রাখবে। টিপস্টার যোগ করেছেন, Hyperphone ছদ্মনামের Xiaomi 11T Pro এ মাসের শেষান্তেই লঞ্চের মুখ দেখতে পারে। তবে ফেব্রুয়ারিতে লঞ্চের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেননি তিনি।

শাওমি ইন্ডিয়া’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর মনু কুমার জৈন’র বক্তব্য ধরলে যোগেশের দাবি খারিজ করা যাচ্ছে না। কারণ মনু জৈন জানিয়েছিলেন, ‘হাইপারচার্জ বিপ্লবের শুধু প্রথম পর্বটি হল Xiaomi 11i সিরিজের লঞ্চ।’ আর এর পরেও বিশেষ কিছু আসছে। যারা মোটামুটি ফোনের খোঁজখবর রাখেন, তারা নিশ্চয় জানেন, দ্রুত গতিতে চার্জ হওয়ার ক্ষমতা Xiaomi 11i সিরিজের ইউএসপি। 11i ও 11i Hypercharge-এর ব্যাটারি যথাক্রমে ৬৭ ওয়াট ও ১২০ ওয়াট চার্জিং ব্যবস্থায় চার্জ হয়। আবার Xiaomi 11T Pro ফ্ল্যাগশিপ ১২০ ওয়াট র‌্যাপিড চার্জিং সাপোর্ট করে। সে ক্ষেত্রে Hyperphone হিসেবে 11T Pro ভারতে লঞ্চ হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

সদ্য লঞ্চ হওয়া Xiaomi 12 Pro-ও ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। কিন্তু এটি ভারতে লঞ্চ করতে চাইলে শাওমি’র টিজ করার ভাষাটাও অন্যরকম হত। সে ক্ষেত্রে ফাস্ট চার্জিংয়ের সক্ষমতার উপর গুরুত্ব না দিয়ে অন্য বিষয়গুলি নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা দেওয়া হত বলেই আমরা মনে করে। কিন্তু তেমনটা হয়নি। সুতরাং Hyperphone বলতে Xiaomi 11T Pro-দিকেই পাল্লা ঝুঁকে।

শাওমি ১১টি প্রো প্রিমিয়াম গ্রেডের ফোন। শাওমি ১১টি’র সঙ্গে গত বছর আত্মপ্রকাশ করেছে। শাওমি ১১টি প্রো’র দাম ভারতে ৪০,০০০ টাকার আশেপাশে থাকতে পারে। যদিও শাওমি ১১টি প্রো’র সঙ্গে বেস মডেল অর্থাৎ শাওমি ১১টি এ দেশে আসবে কিনা, তা স্পষ্ট নয়।

উল্লেখ্য, উল্লেখ্য, ফিচার ও ডিজাইনের ক্ষেত্রে, Xiaomi 11T ও Xiaomi 11T Pro-এর মধ্যে পার্থক্য খোঁজা মুশকিল। কেবলমাত্র কয়েকটি ক্ষেত্রে ফোনগুলি আলাদা। যেমন Snapdragon 888 প্রসেসর, LPDDR5 র‌্যাম, 120W ফাস্ট চার্জিং, ডলবি ভিশন, হার্মান কার্ডন স্পিকার-সহ এসেছে Xiaomi 11T‌ Pro। অন্য দিকে, Xiaomi 11T-তে রয়েছে Dimensity 1200 প্রসেসর, LPDDR4x র‌্যাম, এবং 67W চার্জিং সাপোর্ট।