HomeনিউজGmail কে টেক্কা দিতে ইমেল পরিষেবা আনছে Zoom

Gmail কে টেক্কা দিতে ইমেল পরিষেবা আনছে Zoom

অতিমারির দিনগুলিতে সারা বিশ্বজুড়েই শিক্ষা, জীবিকা, থেকে শুরু করে ব্যবসা-বাণিজ্য সহ জনজীবনের প্রতিটি স্তরে সৃষ্টি হয়েছে অচলাবস্থার। আবার এমন কিছু প্রতিষ্ঠানের নাম এখানে উল্লেখ করা যায়, করোনাকালে যারা বিপুল মুনাফার পাহাড়ের উপর চেপে বসেছেন। যেমন ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ Zoom। ২০২০ সালের আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই অ্যাপ্লিকেশনটির ইউজার বেস ছিলো আজকের তুলনায় সামান্য। কিন্তু বর্তমানে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের বাহুল্যে ‘জুম’ একটি বিশ্বজনীন নাম। এখন বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিনিয়ত এই অ্যাপটি ব্যবহার করছেন। তবে Zoom কেবলমাত্র ভিডিও কনফারেন্সিং পরিষেবা প্রদানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে রাজি নয়। ২০২১ সালে গুগল এবং মাইক্রোসফটের প্রবলতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তারা নিজেদের ইমেল (Email) পরিষেবা বাজারে আনতে চলেছে বলে খবর। একইসাথে জুম একটি ক্যালেন্ডার অ্যাপ্লিকেশন লঞ্চ করতে পারে বলে শোনা গেছে।

জুমের ইমেল পরিষেবা আপাতত পরীক্ষা-নিরীক্ষার স্তরে রয়েছে। আগামী বছরে Zoom এই সম্পর্কে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করতে পারে। অন্যদিকে ক্যালেন্ডার অ্যাপটির ডেভলপমেন্টের ব্যাপারেও এখন তেমন কিছুই জানা যায়নি।

আমরা সবাই জানি গুগল এবং মাইক্রোসফট উভয় সংস্থাই গ্রাহককে একগুচ্ছ পরিষেবা প্রদান করে থাকে। এর মধ্যে তাদের ইমেল সার্ভিস, ভিডিও কনফারেন্সিং টুল, ক্যালেন্ডার অ্যাপ, সার্চ ইঞ্জিন সহ একাধিক পরিষেবা বহুল ব্যবহৃত এবং জনপ্রিয়। বর্তমানে Zoom কর্তৃপক্ষ এই সমস্ত ক্ষেত্রগুলিতেও গুগল এবং মাইক্রোসফটকে টেক্কা দিতে আগ্রহী। এজন্যই তারা নিজস্ব ইমেল পরিষেবা বাজারে আনতে চাইছে বলে আমাদের অনুমান।

জানিয়ে রাখি, সম্প্রতি Apple ও Google দুই সংস্থাই ২০২১ সালের দ্বিতীয়ার্ধ পর্যন্ত নিজেদের কর্মীদের জন্য ওয়ার্ক ফ্রম হোমের সুবিধা বজায় রাখছে। তবে অনেক প্রতিষ্ঠানই বর্তমানে নিজেদের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে, যার ফলে তারা নিজেদের কর্মীদের অফিস এসে কাজ করার নির্দেশ দিতে পারে। এর ফলে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের প্রয়োজনীয়তা অনেকটাই হ্রাস পাবে। সুতরাং Zoom কর্তৃপক্ষের আশঙ্কার একটা কারণ কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। আর সেকারণেই Zoom নিজেদের ব্যবসা সম্প্রসারণে উৎসাহী।

২০২০ সাল Zoom কর্তৃপক্ষের জন্য একটি অনন্যসাধারণ বছর। চলতি বছরের শুরুতে তাদের মার্কেট ভ্যালু ছিলো ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের কাছাকাছি। কিন্তু নভেম্বর, ২০২০ -তে পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী তাদের মোট মার্কেট ভ্যালু বেড়ে প্রায় ১৪০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার দাঁড়িয়েছে। অর্থাৎ চলতি বছরে মূলধন বৃদ্ধির দিক থেকে জুম ধরাছোঁয়ার বাইরে। ২০২১ -এ নিজস্ব ইমেল পরিষেবা লঞ্চ করলে সেটা যে তাদের শ্রীবৃদ্ধিকেই আরো ত্বরান্বিত করবে সেই বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।

আরও পড়ুন