সরকারকে বকেয়া পরিশোধের জন্য টেলিকম সংস্থাগুলিকে ১০ বছর সময় দিল সুপ্রিমকোর্ট

রেহাই পেল না ভারতের টেলিকম অপারেটরগুলি। মাসের ১ম দিনেই সুপ্রিমকোর্ট, টেলিকম সংস্থাগুলিকে সরকারের AGR (অ্যাডজাস্টেড গ্রস রেভিনিউ) বকেয়া পরিশোধ করার আদেশ দিয়েছে। এর আগে টেলিকম সংস্থাগুলিকে জানুয়ারির মাসের মধ্যে টাকা শোধ করার সময়সীমা দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু সংস্থাগুলি এই ‌ঋ‌ণ পরিশোধে ব্যর্থ হয় এবং সমস্যাটি আদালত অবধি গড়িয়ে যায়। আজ শীর্ষ আদালত এই বকেয়া টাকা শোধ করার জন্য সমস্ত টেলিকম সংস্থাগুলিকে ১০ বছরের সময় দিয়েছে।

আসলে ভারতের টেলিকম সার্ভিস প্রোভাইডারদের স্পেকট্রাম বা এয়ারওয়েভ ব্যবহার করার জন্য, টেলিকমিউনিকেশন বিভাগ (DoT)-কে ৩-৫% AGR এবং ৮% লাইসেন্স ফি দিতে হয়। কিন্তু টেলিকম অপারেটররা এই ফী পুনর্বিবেচনার দাবি জানাচ্ছিল।

যাইহোক, শীর্ষ আদালতের এই সিদ্ধান্তে ফলে কিছুটা রেহাই পেয়েছে ব্রিটেনের Vodafone Plc গ্রুপ এবং ভারতের Idea সেলুলারের মিলিত উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত Vodafone-Idea লিমিটেড। সংস্থাটি বিগত আটটি ত্রৈমাসিক ক্ষতির কথা জানিয়ে বকেয়া পরিশোধের জন্য, সুপ্রিমকোর্টের কাছে ১৫ বছর চেয়েছিল। আদালত সে অনুমতি না দিলেও, কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস যে ফেলেছে ভোডাফোন-আইডিয়া তা বলাই যায়। এখনো পর্যন্ত সংস্থাটি ১.০৮ বিলিয়ন ডলার (প্রায় ৭৮.৫৪ বিলিয়ন টাকা) শোধ করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু এখনো সরকারের সংস্থাটির থেকে প্রায় ৫০০ বিলিয়ন টাকা পাওনা বাকি রয়েছে।

এদিকে অন্য আর এক জনপ্রিয় টেলিকম অপারেটর, Airtel সেল্ফ-অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে জানিয়েছে, তারা এখনো পর্যন্ত ১৮০ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে, তবে সরকারী হিসাব অনুযায়ী সংস্থাটিকে এখনো ২৫৯.৭৬ বিলিয়ন টাকা দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরে ভোডাফোন-আইডিয়ার শেয়ার ১৪.৭% কমেছে। অন্যদিকে এয়ারটেলের শেয়ার ৫.৩% বেড়েছে এমনটাই মনে হচ্ছে। তবে এই দুই অপারেটরের বেশ কিছু সংখ্যক ইউজার Reliance Jio-র সার্ভিস গ্রহণ করেছেন। আপনাদের জানিয়ে রাখি, জিও ইতিমধ্যেই তার স্বল্প বকেয়া পরিশোধ করে ফেলেছে।