Homeটেলিকম5G Launch Today: ঐতিহাসিক মুহূর্ত, মোদীর হাত ধরে আজ দেশে লঞ্চ হচ্ছে ৫জি পরিষেবা

5G Launch Today: ঐতিহাসিক মুহূর্ত, মোদীর হাত ধরে আজ দেশে লঞ্চ হচ্ছে ৫জি পরিষেবা

আজ মহাষষ্ঠী! এদিকে সুদীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে আজই সেই মাহেন্দ্রক্ষণ এসে উপস্থিত হয়েছে, যেটিকে চলতি বছরে আপামর ভারতবাসীর জন্য সেরা খুশির মুহূর্ত বললেও খুব একটা ভুল বলা হবে না! আসলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ অর্থাৎ ১ অক্টোবর নয়াদিল্লির প্রগতি ময়দানে অনুষ্ঠিত ইন্ডিয়া মোবাইল কংগ্রেস ২০২২ বা IMC 2022 (আইএমসি ২০২২) ইভেন্টে ভারতে 5G (৫জি) পরিষেবা লঞ্চের কথা ঘোষণা করবেন। বছরের প্রায় শেষ প্রান্তে এসে পৌঁছে সমগ্র দেশবাসীর জন্য এ যে এক নিদারুণ আনন্দ সংবাদ, সেকথা নিঃসন্দেহে বলাই বাহুল্য। সেক্ষেত্রে দর্শকরা চাইলে IMC-র অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে উক্ত ইভেন্টটির পাস সংগ্রহ করতে পারেন।

আজই লঞ্চ হবে Jio এবং Airtel-এর 5G নেটওয়ার্ক?

সাম্প্রতিক এক রিপোর্টে জানা গেছে যে, রিলায়েন্স জিও (Reliance Jio) এবং এয়ারটেল (Airtel) সহ দেশের অন্যান্য টেলিকম অপারেটররা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবে এবং তাদের নিজস্ব ৫জি পরিষেবার ওপর আলোকপাত করবে। আবার বেশ কিছু প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুকেশ আম্বানি, সুনীল ভারতী মিত্তল এবং কুমার মঙ্গলম বিড়লার উপস্থিতিও এই অনুষ্ঠানে লক্ষ্য করা যাবে। স্বাভাবিকভাবেই এই উৎসবের মরসুমেও প্রযুক্তিপ্রেমীরা সম্ভাব্য কোনো বড় ঘোষণার দিকে তাকিয়ে আছেন। সেক্ষেত্রে আসুন, আসন্ন ৫জি পরিষেবা লঞ্চের আগে এই সম্পর্কিত কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের ওপর একনজরে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক।

5G-র আগমন ঘটলে কী কী সুবিধা পাওয়া যাবে?

সরকারের দাবি অনুযায়ী, বিদ্যমান ৪জি (4G)-র তুলনায় ৫জি নেটওয়ার্ক ১০ গুণ বেশি গতিসম্পন্ন হবে। এই ‘রকেট’ স্পিড বিশিষ্ট নেটওয়ার্কের দৌলতে ‘বাফারিং’ (buffering) শব্দটির অস্তিত্বই হয়তো মুছে যাবে; কেননা বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে, ৫জি ব্যবহার করে চোখের পলকে ডাউনলোড করা যাবে একটা গোটা এইচডি মুভি! তদুপরি, অডিও ও ভিডিও কলের মানও পূর্বের তুলনায় আরও উন্নত হবে। এই নেটওয়ার্কের সাহায্যে নির্ঝঞ্ঝাটে চালানো যাবে রিমোট পরিচালিত যানবাহন ও মেশিন। এছাড়া, পরবর্তী প্রজন্মের দ্রুতগতির নেটওয়ার্ক গেমিং সেক্টরেও আমূল পরিবর্তন আনবে বলে আশা করা হচ্ছে। অর্থাৎ সোজা কথায় বললে, ভারতের ডিজিটাল যাত্রায় এক বিপ্লব আনতে চলেছে ৫জি। এর সুবাদে আপামর জনগণ যেমন উন্নত পরিষেবা পাবেন, তেমনই দেশের ব্যবসায়িক ক্ষেত্রেও প্রভূত উন্নতিসাধন হবে।

২০২৩ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি কোণায় মিলবে 5G সার্ভিস

আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি যে, আজকের ইভেন্টটিতে কেবলমাত্র আনুষ্ঠানিকভাবে ৫জি সার্ভিস লঞ্চ করা হবে; অর্থাৎ, এখনই ইউজাররা এই পরিষেবা ব্যবহারের সুযোগ পাবেন না। ফলে এই মুহূর্তে ব্যবহারকারীদের ৫জি-কে কেন্দ্র করে বিশেষ মাতামাতি করার কোনো প্রয়োজন নেই। তবে সম্প্রতি এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, আগামী দিওয়ালির মধ্যে এয়ারটেল এবং জিও ভারতের নির্বাচিত কয়েকটি শহরে সর্বপ্রথম ৫জি পরিষেবা চালু করবে, তারপরে ধীরে ধীরে দেশের অন্যান্য শহরের বাসিন্দারাও এই দুরন্ত গতির নেটওয়ার্ক সার্ভিস ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। জানা গিয়েছে যে, কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই এবং চেন্নাই – এই চারটি শহরে জিও সবার আগে তাদের পরিষেবা চালু করবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, আগামী ২০২৩ সালের মধ্যেই দেশের প্রতিটি কোণায় ৫জি সার্ভিস পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে জিও এবং এয়ারটেল।

আসন্ন 5G প্ল্যানের দাম কত হবে?

বিশেষজ্ঞদের মতে, যদিও 5G ‘রকেটের’ গতির নেট স্পিড অফার করার কথা দাবি করছে, তবে চালু হওয়ার সাথে সাথেই কিন্তু ইউজাররা এই দুরন্ত গতির নেটওয়ার্ক পরিষেবা ব্যবহারের সুযোগ পাবেন না। তাই রোলআউট হওয়ার পর 5G প্ল্যানগুলির দাম বিদ্যমান 4G প্ল্যানের সমতুল্য হবে বলেই আশা করা হচ্ছে। তবে ধীরে ধীরে পরিষেবার মান যত উন্নত হবে, তার ওপর ভিত্তি করে এর দাম বাড়াবে টেলিকম কোম্পানিগুলি। মোদ্দা কথা হল, দুর্বার গতির স্পিড পেতে হলে বিদ্যমান 4G প্ল্যানের চাইতে আসন্ন 5G প্ল্যানের জন্য গ্রাহকদেরকে বেশ কিছুটা অতিরিক্ত টাকা খসাতে হবে বলেই ধরে নেওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুন