আরও এক শহরে চালু হল Airtel 5G Plus পরিষেবা, 4G -র তুলনায় ৩০ গুন দ্রুত ইন্টারনেট উপভোগ করা যাবে

Airtel ইতিমধ্যেই দিল্লি, কলকাতা, মুম্বাই, পুনে (কেবল বিমানবন্দরের ভেতরে), বারাণসী, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, হায়দ্রাবাদ, শিলিগুড়ি, পানিপথ, নাগপুর, গুয়াহাটি এবং গুরুগ্রাম এর মতো বড় বড় শহরে 5G পরিষেবা চালু করেছে

Airtel 5G Plus launched in Patna Bihar

Airtel সম্প্রতি আরও একটি নতুন শহর পাটনায় তাদের ৫জি প্লাস (5G Plus) পরিষেবা চালু করলো। সংস্থার তরফে জানা গিয়েছে যে, বিহারের রাজধানীটিতে সর্বপ্রথম কোম্পানির দ্রুতগতির নেট পরিষেবা উপলব্ধ হবে, এবং তারপরে ধীরে ধীরে বিহারের অন্যান্য জায়গার বাসিন্দারাও নিজেদের 5G স্মার্টফোনে এই ঝড়ের গতির নেট সার্ভিস ব্যবহারের মজা উপভোগ করার সুযোগ পাবেন। উল্লেখ্য যে, পাটনা ছাড়াও দেশের আরও বেশ কয়েকটি শহরে ইতিমধ্যেই Airtel 5G Plus পরিষেবা উপলব্ধ রয়েছে। এই তালিকায় রয়েছে দিল্লি, কলকাতা, মুম্বাই, পুনে (কেবল বিমানবন্দরের ভেতরে), বারাণসী, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, হায়দ্রাবাদ, শিলিগুড়ি, পানিপথ, নাগপুর, গুয়াহাটি এবং গুরুগ্রাম এর মতো বড় বড় শহর। ফলে গোটা দেশে পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সার্ভিস রোলআউট করার কাজে Airtel যেভাবে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে, তাতে চলতি বছরের শেষের দিকে আরও বেশ কয়েকটি শহরে সংস্থার 5G পরিষেবা উপলব্ধ হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল বলে ধরে নেওয়া যেতে পারে।

পাটনার এই সকল জায়গায় মিলবে Airtel 5G Plus পরিষেবা

সংস্থার তরফে জানা গিয়েছে যে, পাটনার এয়ারটেল ব্যবহারকারীরা জয় প্রকাশ নারায়ণ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে (পাটনা বিমানবন্দর) নিজেদের পঞ্চম প্রজন্মের কানেক্টিভিটিযুক্ত হ্যান্ডসেটে দুরন্ত গতির ৫জি নেটওয়ার্ক অ্যাক্সেস করতে সক্ষম হবেন। তবে শুধু বিমানবন্দরেই নয়, এর পাশাপাশি পাটনা সাহিব গুরুদ্বার, পাটনা রেলওয়ে স্টেশন, ডাক বাংলো, মৌর্য লোক, বেইলি রোড, বোরিং রোড, সিটি সেন্টার মল, পাটলিপুত্র ইন্ডাস্ট্রিয়াল এরিয়া সহ আরও বেশ কয়েকটি জায়গায় এয়ারটেলের পঞ্চম প্রজন্মের নেট পরিষেবা উপলব্ধ হবে। কোম্পানির তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, পুরো শহরটিতে সংস্থার ৫জি সার্ভিস চালু হয়ে গেলেই ইউজাররা গতিময় নেট স্পিড পেতে সক্ষম হবেন।

এই প্রসঙ্গে বিহার, ঝাড়খন্ড এবং ওড়িশা সার্কেলের ভারতী এয়ারটেলের সিইও অনুপম অরোরা (Anupam Arora) বলেছেন, “পাটনায় এয়ারটেল ৫জি প্লাস লঞ্চ করার কথা ঘোষণা করতে পেরে আমি রোমাঞ্চিত। এই শহরের এয়ারটেল গ্রাহকরা এখন আল্ট্রাফাস্ট নেটওয়ার্ক ব্যবহারের মজা উপভোগ করতে পারবেন। ৫জি-তে ৪জি (4G)-র তুলনায় প্রায় ২০-৩০ গুণ দ্রুতগতির ইন্টারনেট পাওয়া যাবে, যার সুবাদে কোনো বাফারিং ছাড়াই হাই-ডেফিনিশন ভিডিও স্ট্রিমিং, গেমিং, চ্যাটিং, ফটো আপলোডের মতো ইন্টারনেট ক্রিয়াকলাপ অতি অনায়াসে করতে পারবেন ইউজাররা।”

4G সিম মারফতই 5G সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবেন ইউজাররা

Airtel আরও জানিয়েছে যে, এই মুহূর্তে ভারতে সংস্থার পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক পরিষেবা ব্যবহার করতে হলে ইউজারদের কোনো 5G সিম কার্ডের প্রয়োজন হবে না। এখনও যেহেতু আনুষ্ঠানিকভাবে কোম্পানির কোনো 5G প্ল্যান রোলআউট হয়নি, তাই ব্যবহারকারীরা তাদের 4G সিমে বিদ্যমান রিচার্জ প্ল্যান মারফতই এই ঝড়ের গতির নেট পরিষেবা ব্যবহারের মজা উপভোগ করতে পারবেন। এর জন্য ইউজারদের কাছে কেবলমাত্র একটি 5G কানেক্টিভিটি যুক্ত হ্যান্ডসেট থাকলেই চলবে। উল্লেখ্য যে, বর্তমানে Xiaomi, Realme, Oppo, Vivo, এবং OnePlus-এর মতো ব্র্যান্ডগুলির বেশিরভাগ স্মার্টফোনেই Airtel-এর 5G নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে। আবার হালফিলে জানা গিয়েছে যে, Samsung-এর যে-কোনো 5G স্মার্টফোন কিনলেই তাতে Airtel-এর পঞ্চম প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করবে। তবে সমস্ত iPhone এবং Pixel ফোনে এই পরিষেবা পেতে ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।