WhatsApp কে টেক্কা দিতে ভয়েস চ্যাট ফিচার আনলো Telegram

telegram-brings-voice-chat-and-animated-sticker-features

ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ WhatsApp এর সাথে Telegram এর প্রতিদ্বন্দ্বিতা নতুন কিছু নয়। দুটি প্ল্যাটফর্মেই নিত্য নতুন ফিচার এসে থাকে। তবে এবার এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা আরও বাড়তে চলেছে। কারণ টেলিগ্রামের নতুন আপডেটে জুড়তে চলেছে ভয়েস চ্যাট (Voice Chats) ফিচার। এতদিন হোয়াটসঅ্যাপের মতো টেলিগ্রামেও অনলাইন ভয়েস কলিং সম্ভব ছিলো। কিন্তু ভয়েস চ্যাট ফিচারটি এর থেকে একটু আলাদা। এর মাধ্যমে একটি টেলিগ্রাম গ্রুপের সদস্যরা চলমান কনফারেন্স কলে যুক্ত হতে পারবেন। আবার নিজের ইচ্ছানুযায়ী তিনি এই কনফারেন্স ছেড়ে বেরিয়ে আসার বিকল্পও পেয়ে যাবেন।

ভয়েস চ্যাট ফিচার সম্পর্কে Telegram এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ” এবার থেকে যে কোন টেলিগ্রাম গ্রুপের সদস্যরা ভয়েস চ্যাট রুমে যুক্ত হতে পারবেন যা সর্বক্ষণ সচল থাকবে। ভয়েস চ্যাট টেক্সট এবং মিডিয়া নির্ভর যোগাযোগের সমান্তরাল একটি পরিষেবা যা গ্রুপে ক্ষণস্থায়ী চ্যাটিংয়ের সুবিধা প্রদান করবে। এর ফলে গ্রুপগুলিকে ভার্চুয়াল অফিস স্পেস বা ইনফর্মাল লাউঞ্জ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে।”

টেলিগ্রামের নতুন আপডেটে কল চলাকালীন ইউজাররা গ্রুপ চ্যাটের উপরের দিকে ‘Voice Chat’ ব্যানারটি দেখতে পাবেন। কলটিতে কতজন সক্রিয় সদস্য যুক্ত রয়েছেন, তা আপনি এখানে দেখে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে ভয়েস চ্যাটিংয়ে অংশগ্রহণের জন্য ‘Join’ বাটনে ট্যাপ করতে হবে। অংশগ্রহণের সময় মিউটেড থাকলেও ‘Mic’ বাটন ট্যাপ করে আনমিউট এবং কথা বলা যাবে।

এই ফিচারে কল চলাকালীন ইউজার স্বচ্ছন্দভাবে অ্যাপের মাধ্যমে অন্যদের মেসেজ বা ফাইল সেন্ড করতে পারবেন। নতুন আপডেটে টেলিগ্রাম অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা একটি ফ্লোটিং উইজেট অপশন পাবেন, যার মাধ্যমে ইউজার তাৎক্ষণিকভাবে মিউট, স্পিকার বা end call -এর মতো মৌলিক কলিং ফিচারগুলি অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

আপাতত ভয়েস চ্যাট ফিচারটি অডিও নির্ভর চ্যাটিং বিকল্প হিসেবেই সামনে এসেছে। তবে Telegram কর্তৃপক্ষের দাবী আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই তারা ভিডিও চ্যাট ও স্ক্রিন শেয়ারিংয়ের মতো ফিচার নিয়ে আসতে চলেছেন। ভয়েস চ্যাট ছাড়াও টেলিগ্রাম তাদের লেটেস্ট ভার্সনে কিছু অ্যানিমেটেড স্টিকার যুক্ত করেছে।