Facebook কে হারিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া অ্যাপ এখন TikTok

Tiktok Beats Facebook in numbers of Download in the world WhatsApp Telegram Nikkei Asia
Facebook কে হারিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া অ্যাপ এখন TikTok

চিনা শর্ট ভিডিও প্রস্তুতকারক অ্যাপ্লিকেশন টিকটকের(TikTok) মাথায় গৌরবের নতুন পালক যুক্ত হলো। ভারতে নিষেধাজ্ঞার মুখ দেখলেও বিশ্বে সবথেকে বেশী ডাউনলোড হওয়া অ্যাপের তালিকায় এক নম্বরে উঠে এলো তারা। এক্ষেত্রে ফেসবুকের (Facebook) মতো অ্যাপ্লিকেশনকে পিছনে ফেলে তারা রীতিমতো চমক লাগিয়ে দিয়েছে!

Facebook-কে টপকে গেলো TikTok

সম্প্রতি Nikkei Asia-র প্রতিবেদনে পৃথিবী জুড়ে সর্বাধিক ডাউনলোড হওয়া অ্যাপ্লিকেশনগুলির একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। ২০২০ সালের বৈশ্বিক সমীক্ষার ফলাফলের উপরে ভিত্তি করে তৈরী এই তালিকায় ফেসবুককে টপকে টিকটক প্রথম স্থান অধিকার করেছে। এবছর প্রথম নয় বরং ২০১৮ সাল থেকে প্রতি বছর উক্ত সমীক্ষাটির ফলাফল পেশ করা হয়।

উল্লেখ্য, চিনা সংস্থা বাইটডান্স (ByteDance) ২০১৭ সালে তাদের TikTok অ্যাপ্লিকেশন লঞ্চ করে। এরপর ক্রমশ জনপ্রিয়তা অর্জন করে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও তৈরীর এই প্ল্যাটফর্ম নেটাগরিকদের ডিভাইসে জায়গা করে নেয়। এর ডাউনলোডের সংখ্যা দিন দিন বাড়তে থাকে এবং বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ (Whatsapp), ইনস্টাগ্রাম (Instagram), ফেসবুক মেসেঞ্জারের (Facebook Messenger) মতো অ্যাপ্লিকেশনকে ধরাশায়ী করে TikTok সেরার সেরা শিরোপা অর্জন করেছে। বিশেষ করে, অতিমারিকালে TikTok‌ ডাউনলোডকারীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। ইউরোপ, দক্ষিণ আমেরিকা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপ্লিকেশনটির ডাউনলোডের হার সর্বাধিক।

বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোডে অতিমারির প্রভাব

টিকটক ছাড়াও অতিমারির ফলে লাভবান হয়েছে চ্যাট এবং কমিউনিকেশনস প্ল্যাটফর্ম ডিসকর্ড (Discord)। এটি সনি গ্রুপের (Sony Group) বিনিয়োগের উপরে প্রস্তুত অ্যাপ্লিকেশন। গেমারদের মধ্যে অনলাইন চ্যাটিংয়ের জন্য ডিসকর্ডের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে।

অন্যদিকে ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ ডাউনলোডকারীর সংখ্যা বরাবরই বেশী থাকে। এর কারণ অ্যাপ্লিকেশনের সর্বজনীন গ্রহণযোগ্যতা। তবে ২০২১ সালের শুরুতে তারা নিজেদের প্রাইভেসি নীতিতে কিছু পরিবর্তন আনে, যাকে কেন্দ্র করে ইউজারদের মধ্যে বিরোধ পুঞ্জীভূত হয়ে ওঠে। ঘোষণা অনুযায়ী হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের মেসেজিং ডেটা ফেসবুকের সঙ্গে আদান-প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে ব্যক্তিগত তথ্য হাতবদলের ভয়ে অনেকেই হোয়াটসঅ্যাপের উপর থেকে ভরসা হারাতে শুরু করেন। ঘটনাটি সিগন্যাল (Signal) ও টেলিগ্রামের (Telegram) মতো অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধিতে মদত দেয়।

অবগতির জন্য জানিয়ে রাখি, টেলিগ্রাম অ্যাপ্লিকেশনটি রুশদেশে তৈরী করা হলেও, বর্তমানে এটি জার্মানিকে কেন্দ্র করে ব্যবসা বাড়াচ্ছে। Nikkei Asia-র প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০২০ সালে বিশ্বে সর্বাধিক ডাউনলোড হওয়া অ্যাপের তালিকায় Telegram সপ্তম স্থানে অবস্থান করছে। তাদের পরে অর্থাৎ অষ্টম স্থানে রয়েছে টিকটকের প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপ্লিকেশন লাইকি (Likee)। টিকটকের মতোই এই অ্যাপ্লিকেশনের জন্মস্থান চীন।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

One of the newest members of the Techgup Family. Soumo grew his liking for gadgets almost a decade back while searching for his first smartphone, and started writing about tech recently in 2020