রাতারাতি ২ এ নেমে গেল টিকটকের রেটিং, উঠছে ভারতে ব্যানের দাবি

স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও প্লাটফর্মে TikTok এর রেটিং গুগল প্লে স্টোরে নিচে নামতে শুরু করলো। হঠাৎ টিকটকের রেটিং গুগল প্লে স্টোরে কেবল ৫ এর মধ্যে ২ স্টার হয়ে গেছে। কয়েকদিন আগেই এই রেটিং ৪.৭ স্টার ছিল। আসলে কয়েক সপ্তাহ আগে ইউটিউব ও টিকটকের মধ্যে কে সেরা প্ল্যাটফর্ম সেই নিয়ে লড়াই শুরু হয়েছিল। এর পর জনপ্রিয় ইউটিউবার ক্যারি মিনাটির টিকটক রোস্ট ভিডিও Youtube থেকে ডিলিট হতেই মানুষ টিকটকের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছে। টুইটারে #টিকটকব্যান ও ১স্টার রেটিং ট্রেন্ড করছে।

গুগল প্লে স্টোরে TikTok এর অফিসিয়াল অ্যাপে আপাতত ২.৪২ কোটির বেশি মানুষ রেটিং দিয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ রেটিং হল ১ এবং এই কারণেই টিকটকের মোট রেটিং ২ স্টারের কাছে পৌঁছে গেছে। এমনকি TikTok Lite এরও রেটিং অনেক কমে গিয়েছে। আপাতত টিকটকের লাইট ভার্সনে ৭ লাখের বেশি মানুষ রেটিং দিয়েছে, যার মধ্যে বেশিরভাগই ১ স্টার রেটিং দিয়েছে এই অ্যাপে। Tiktok Lite এর রেটিং এই মুহূর্তে ১.১ স্টার । যা কয়েকদিন আগে ছিল ৪.৮ স্টার

টিকটকের রেটিং কমার কারণ কি :

দুই জনপ্রিয় ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটক ও ইউটিউবের কিছু ক্রিয়েটরদের মধ্যে, কোন প্ল্যাটফর্ম বড় সেই নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল কয়েক সপ্তাহ আগে। বিতর্কের সূত্রপাত, এলভিস যাদব যখন তার দ্বিতীয় ইউটিউব চ্যানেল Elvish Yadav Vlogs থেকে টিকটকের উপর একটি রোস্ট ভিডিও আপলোড করে।

যেখানে এলভিস যাদব রিভলবার রানী সহ টিকটকের জনপ্রিয় কিছু ক্রিয়েটরদের নিয়ে মজা করে। যা মোটেই পছন্দ হয়নি কিছু টিকটক ক্রিয়েটরের। এরপর Amir Siddiqui নামে একজন টিকটকার IGTV তে একটি ভিডিও পোস্ট করে ইউটিউব ও তাদের ক্রিয়েটরদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে যে, ইউটিউবারদের মধ্যে কোনো একতা নেই এবং ইউটিউবাররা টিকটকের ভিডিও নিয়ে জনপ্রিয়তার পাশাপাশি পয়সা কামাচ্ছে।

আমির সিদ্দিকী এও জানায় যে, বড় বড় ব্র্যান্ড ইউটিউব ছেড়ে এখন টিকটকে আসছে। এই ভিডিও আসার পর আর বসে থাকেনি ভারতের নম্বর ওয়ান ইউটিউব রোস্টার CarryMinati (অজেয় নাগর)। ক্যারি তার চ্যানেলে YOUTUBE VS TIK TOK: THE END নামে একটি ভিডিও আপলোড করে। যেখানে সে আমির সিদ্দিকীর সমস্ত অভিযোগ খণ্ডন করে। তবে সেই ভিডিও ইউটিউব থেকে ডিলিট করে দেওয়া হয়। এরপর অনেকেই অভিযোগ করতে থাকে যে টিকটকের ক্রিয়েটররা রিপোর্ট মেরে এই রিপোর্ট ডিলিট করিয়েছে। যদিও তার কোনো প্রমান এখনও মেলেনি। তবে ভিডিও ডিলিট হতেই ক্ষোভে ফেটে পরে ইউটিউব ফ্যানরা। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছায় যে টিকটককে ভারতে ব্যান করার দাবি জানায় তারা। এছাড়াও সব্বাই কে টিকটকে ১ স্টার রেটিং দিতে বলা হয়। যার কারণেই টিকটকের রেটিং আচমকাই এত কমে গেছে।

WhatsApp এ সব খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন।