একবার ফের প্রশ্নের মুখে টিকটকের ভবিষ্যৎ, প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি

চীনা শর্টভিডিও অ্যাপ টিকটক ভারতীয়দের বিভিন্ন তথ্য চিনকে পাঠাচ্ছে এবং যার ফলে অনেক ভুয়ো খবর ও দূষিত কনটেন্ট ছড়াচ্ছে টিকটকের মাধ্যমে, গত বৃহস্পতিবার এমনই অভিযোগ জানিয়েছিল লোকসভার সাংসদ, শশী থারুর। এই সপ্তাহের শুরুতে অন্য একজন সাংসদ ওই একই অভিযোগ করলেন।

বিজু জনতা দলের সাংসদ পিনাকী মিশ্র ও তেলেগু দেশম পার্টির সাংসদ জয়দেব গল্লা পার্লামেন্টে তাদের উদ্বেগ প্রকাশ করেন, টিকটকের পেরেন্ট কোম্পানি চীনা স্টার্ট আপ “বাইট ডান্স” ও আঞ্চলিক সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং অ্যাপ “হ্যালো” কে নিয়ে। তারা বলেন ভারতের প্রতিবেশী হিসাবে চীন বদ্ধ পরিকর ভারতের থেকে বিভিন্ন তথ্য ও ডেটা সংগ্রহ করতে।” পিনাকী মিশ্র সরকারের কাছে আর্জি জানায় ডেটা প্রটেকশন ল প্রয়োগ করার জন্য।

মিশ্র জানান আরএসএস এর ইকোনোমিক উইং এর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে লেখা একটি চিঠিতে তারা জানিয়েছে বাইট ডান্স এর নক্কারজনক কর্মকাণ্ডের কথা। তিনি বলেন” ইনফরমেশন ও ডেটা একবিংশ শতাব্দীতে তেলের সমতুল্য, তাই যে দেশ যত বেশি ডেটা কন্ট্রল করতে পারবে, তারাই শক্তিশালী জায়গায় থাকবে।” টিকটকের মাধ্যমে যে পরিমাণ ডেটা সংগ্রহ করা হচ্ছে, তা খুবই চিন্তার বিষয়।

সোমবার কংগ্রেসের সাংসদ শশী থারুর একটি বিবৃতিতে বলেন টিকটক বেআইনি ভাবে ডেটা সংগ্রহ করছে এবং তা চিনে পাচার করছে। যদিও এই অভিযোগকে টিকটক অস্বীকার করে জানায়, তারা সম্পূর্ণ আইন সম্মত ভাবে কাজ করছে।

গত এপ্রিল মাসে মাদ্রাজ হাই কোর্ট টিকটক নতুন ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে একটি ইন্টারিম ব্যানের আদেশ জারি করে। কারণ হিসাবে বলা হয় টিকটক শিশুদের জন্য বিপজ্জনক। যদিও পরবর্তী সময়ে এই ব্যান তুলে নেওয়া হয়।

ভারতে টিকটকের মাসিক এক্টিভ ইউজারের সংখ্যা প্রায় 120 মিলিয়ন, যা ফেসবুককে প্রতিযোগিতার মুখে ফেলছে। এছাড়াও হ্যালোর মাসিক এক্টিভ ইউজার 50 মিলিয়ন যা ভারতীয় স্টার্ট আপ শেয়ার চ্যাটের সরাসরি প্রতিযোগিতা করছে।

পড়ুন : আপনার তথ্য চুরি করে চীনকে দিচ্ছে টিকটক, বিস্ফোরক মন্তব্য শশী থারুর

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

টেক ভিডিও দেখার জন্য আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন – এখানে ক্লিক করুন

Last Updated on